সংবাদটি প্রকাশ হয়েছেn: Wed, Oct 4th, 2017
bashundhara

ক্যান্টিনবয় থেকে নৃত্যপরিচালক

azad-1

বিনোদন ডেস্ক : এ যেন রূপকথার গল্প! রীতিমতো জিরো থেকে হিরো হওয়ার গল্প। আর এই গল্প তৈরি করেছেন এদেশেরই ফিল্ম ইন্ডাষ্ট্রির এক শিল্পী। তিনি এ কে আজাদ। এই সময়ের ব্যস্ত নৃত্য পরিচালক। প্রায় ৩শ’ ছবির একক নৃত্য পরিচালক হিসেবে অভিজ্ঞতা রয়েছে তার ঝুলিতে।

শুরুটা আজ থেকে পঁচিশ বছর আগে। এ কে আজাদ তখন কিশোর। চলচ্চিত্রের প্রতি দূর্বার ভালোবাসার টানে বিএফডিসি ছুটে আসেন সুদূর নড়াইল থেকে। জেলার লোহাগড়া থানায় তার বাড়ি। শুটিং দেখতে দেখতে আর ফিরে যেতে ইচ্ছে হয়নি। কিন্তু থাকবেন কোথায়? করবেন কী?

নানান চেষ্টা-তদবিরের পর মিলে গেলো একটা সুযোগ। বিএফডিসির ক্যান্টিনে ফুট-ফরমাশ খাটার একটা চাকরি জুটে যায়। ক্যান্টিনবয় হিসেবে শুরু হয় তার চলচ্চিত্রাঙ্গনের জীবন।

কিন্তু শুধু ক্যান্টিনবয় হয়ে থাকার জন্য তো তার জন্ম হয়নি। ছোটবেলা থেকেই নাচের প্রতি তার ছিলো তুমুল আগ্রহ। বিয়ে বাড়ি, খৎনা উৎসবে বন্ধুরা মিলে নেচেও বেড়াতেন। এফডিসিতে বসে সেই ইচ্ছাটা জেগে উঠলো আবার।

মওকাও পেয়ে গেলেন। নৃত্য পরিচালক আজিজ রেজাকে তার ইচ্ছের কথা জানান। আজিজ রেজা ছেলেটার আগ্রকে গুরুত্ব দিয়ে ভর্তি করালেন তার নিজের একাডেমিতে। শুরু হলো তালিম।

সেদিনের কথা বলতে গিয়ে এ কে আজাদ বলেন, ‘আজি রেজা আমার নাচের প্রথম ওস্তাদ। তার সদিচ্ছা ছাড়া আমার আজকের নৃত্য পরিচালক হওয়া সম্ভব ছিলো না। তার প্রতি আমি সারা জীবন কৃতজ্ঞ থাকবো।

আজিজ রেজার নির্দেশনায়ই শুরু হলো তার ক্যারিয়ার। চলচ্চিত্রের গানে গ্রুপ ড্যান্সে অংশ নিতে থাকলেন তিনি। ব্যতিক্রমী প্রতিভার কারণে সেই সময় নজরে পড়ে যান বিখ্যাত নৃত্য পরিচালক আমির হোসেন বাবুর নজরে। আমির হোসেন বাবু তাকে আজিজ রেজার কাছ থেকে নিয়ে যান নিজের দলে। নিজের সহকারী হিসেবে তাকে গড়ে তোলেন।

আমির হোসেন বাবুর মতো শিক্ষক পেয়ে এ কে আজাদ যেন সত্যি সত্যি জ¦লে ওঠেন। মন-প্রাণ দিয়ে শিখতে থাকেন গুরুর কাছ থেকে। পাশাপাশি নিজেকে আরো ক্ষুরধার করতে শিখে নেন ক্ল্যাসিকাল পার্টটুকু।

azad-3প্রায় দশ বছর আমির হোসেন বাবুর সহকারী হিসেবে শ’ পাঁচেক ছবির নৃত্য পরিচালনার সঙ্গে সরাসরি জড়িত ছিলেন এ কে আজাদ। অতঃপর ২০০৩ সালে আমির হোসেন বাবু মারা গেলে শুরু হয় তার একক নৃত্য পরিচালক হিসেবে পথ চলা। সেই পথ চলায় প্রায় ৩শ’ ছবির নৃত্য পরিচালক হিসেবে নিজেকে তুলে এনেছেন অন্য উচ্চতায়।

ক্যান্টিনবয় থেকে চলচ্চিত্র ইন্ডাষ্ট্রির শীর্ষ নৃত্য পরিচালক হওয়ার এই গল্প করার সময় এ কে আজাদ বলেন, ‘এটা আমার প্রেম ও সংগ্রামের গল্প। প্রেমটা ছিলো নৃত্যের সঙ্গে। এই র্শিপটাকে আমি ভালোবেসে ফেলেছিলাম। আর সংগ্রামটা ছিলো পারিপার্শিকতার সঙ্গে। যেহেতু প্রথাগত শিক্ষার বাইরে আমি মূলত ওস্তাদদের কাছ থেকে কাজের ক্ষেত্র থেকেই শিখেছি বেশি, তাই চারপাশের জন্য এটা মেনে নেয়া ছিলো কঠিন। কিন্তু কাজটা আমি করতে পেরেছি। আর এই সংগ্রামের গল্পটা এই জন্য বলছি যে, একাগ্রতা থাকলে যে কেনো কাজেই সফল হওয়া যায় তা এই প্রজন্মের জানা উচিত।

এ কে আজাদের নৃত্য পরিচালনায় মুক্তি পাওয়া ছবির মধ্যে বরিশালের মাইয়া ঢাকার পোলা, দানব সন্তান, তুই যদি আমার হইতিরে, মেঘের কোলে রোদ, রং নাম্বার, জাগো, জগৎ সংসার, আকাশ কত দূরে প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য।

চলচ্চিত্রের নৃত্য পরিচালনার পাশাপাশি একটা একাডেমিও পরিচালনা করছেন তিনি। ‘আজাদ আ স্কুল অব ডান্স’ নামের এ একাডেমিটি মগবাজার রেলগেটের পাশেই অবস্থিত। শ” খানেক স্টুডেন্ট নাচ শিখছেন তার তত্ত্বাবধানে। এখান থেকেই নাচ শিখেছেন বেশ নিলয়, আরিয়ান শাহ, রাজ ও ইমনেরা। এ ছাড়াও চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা, শাহনুর ও কারিশমা তার নাচের ছাত্রী ছিলেন।
সম্পাদনা : আ ই (জি-নিউজবিডি২৪ )

bashundhara
The Most Shocking Kim K's Bikini Body Photos

সর্বশেষ আপডেট

আরকাইভ

October 2017
S M T W T F S
« Sep   Nov »
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031