সংবাদটি প্রকাশ হয়েছেn: Thu, Jun 14th, 2018
bashundhara

বাউফলে পৌনে এক লাখ বিদ্যুত গ্রাহক চরম ভোগান্তির শিকার

mapকামরুল হাসান, বাউফল প্রতিনিধি (পটুয়াখালী): বাউফলে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির অধিনে প্রায় ৭৫ হাজার  গ্রাহকের সেবার জন্য ৭৫ জন লাইনম্যান থাকার কথা থাকলেও আছে মাত্র ২৯ জন । এই স্বল্প সংখ্যক লাইনম্যান দিয়ে বিপুল সংখ্যক গ্রাহকের সঠিক সেবা দেয়া সম্ভব হচ্ছেনা।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বাউফলের গোসিংগা ও কালিশুরী দুইটি সাব-স্টেশনের মাধ্যমে বাউফল ও দশমিনা উপজেলার প্রায় ৭৫ হাজার গ্রাহককে বিদ্যুৎ সুবিধা দেয়া হচ্ছে। এর মধ্যে বাউফল উপজেলায়  গ্রাহক সংখ্যা হলো ৫৯ হাজার বাকি ১৬ হাজার গ্রাহক হলো দশমিনা উপজেলায়।

বিধি অনুযায়ি প্রতি ১ হাজার গ্রাহকের জন্য ১ জন লাইনম্যান ও প্রতি ৪ হাজার গ্রাহকের জন্য  একটি অভিযোগ কেন্দ্র এবং প্রতি ৮ হাজার গ্রাহকের জন্য একটি এরিয়া অফিস থাকার কথা । কিন্তু বাস্তব চিত্র হলো ভিন্ন। বাউফলে একটি এরিয়া অফিস এবং গোসিংগা ১টি ও দশমিনায় ১ অভিযোগ কেন্দ্র রয়েছে। এর মধ্যে বাউফল জোনাল অফিসের অধিনে ১১ জন, কালিশুরী এরিয়া অফিস ও সাব-স্টেশনের  অধিনে ৮ জন, গোসিংগা অভিযোগ কেন্দ্র ও সাব-স্টেশনের অধিনে ৬ জন এবং দশমিনায় ৪ জনসহ মোট ২৯জন লাইনম্যান রয়েছে। এই স্বল্প সংখ্যক লাইনম্যান দিয়ে গ্রাহক সেবা দেয়া সম্ভব হচ্ছেনা।

গ্রাহকদের সেবা পেতে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হয়। এ দিকে এই স্বল্প সংখ্যক লাইনম্যানরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করলেও তাদের কোন ঝুঁকি ভাতা দেয়া হয়না। নাম প্রকাশ না করার শর্তে বাউফল পল্লী বিদ্যুতের এক লাইনম্যান জানান, সারা দিন রাত তারা কাজ করেন। কিন্তু তাদের কোন অতিরিক্ত সুবিধা তাদেরকে দেয়া হয়না। ওই লাইনম্যান আরও জানান, কাজ করতে গিয়ে কোন ধরণের দূর্ঘটনার শিকার হলে পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ এর দায় বহন করেনা। মারা গেলে বিধি অনুযায়ি কিছু টাকা দেয়া হয়। অথচ অফিসের কর্মকর্তাসহ অন্যান স্টাফরা নানা ধরণের সুবিধা ভোগ করেন।

অফিস ডিউটির বাইরে কাজ করলে তাদেকে ওভার টাইম দেয়া হয়। এদিকে নি¤œমানে সামগ্রী দিয়ে লাইন নির্মাণ করায় বিদ্যুৎ বিভ্রাট ভেড়েই চলছে। আকাশে মেঘ-বৃষ্টি দেখলেই বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। সামান্য কারণে ইনসোলেটর ফেটে যায়, তার ছিড়ে  যায়। এ ছাড়াও উপজেলার কোথাও কোন বৈদ্যুতিক সমস্যা দেখা দিলে গোটা উপজেলার বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে কাজ করতে হয়।
সম্পাদনা : আ ই (জি-নিউজবিডি২৪ )

সর্বশেষ আপডেট

আরকাইভ

June 2018
T F S S M T W
« May   Jul »
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930