সংবাদটি প্রকাশ হয়েছেn: Mon, Jul 9th, 2018
bashundhara

আমতলীতে বীজ সংকট, চার কৃষক বান্ধব কর্মকর্তা ও কৃষকের মুখের হাসি

36712069_10217042819330480_4269628114235031552_nআব্দুল্লাহ আল নোমান, আমতলী প্রতিনিধি (বরগুনা) : আমতলী উপজেলার চাওড়া ইউনিয়নের পাতাকাটা গ্রামের কৃষক কাইউম হাওলাদার । প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও ভরা আমন মৌসুমে জমি চাষ শুরু করলেও বীজ সংকটের কারনে বীজতলা তৈরী করতে পারছিলেন না।

এ অবস্থা শুধু কাইউম হাওলাদারের একার নয়, চন্দ্রা গ্রামের আনিচ বিশ্বাস, একুব গাজী, মনু হাওলাদার, পাতাকাটার বনি মাতুব্বর,স্বপন মাতুব্বর, ঘটখালীর বিজন গাইন, রাওগার জয়নাল বাহালী, ঘোপখালীর মজিদ মিয়া এবং বাইন বুনিয়ার বাবুল হাওলাদারসহ কয়েক হাজার কৃষক বীজ সংকটের কারনে দিশেহারা হয়ে পরেছিলেন। হঠাৎ করে এ অঞ্চলে বিআর-২৩ জাতের বীজের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় বাজার থেকে বীজ উধাও হয়ে গেছে ।

বীজ ডিলার এবং খুচরা বিক্রেতারা কৃত্রিম সংকট তৈরী করে অধিক মুনাফা লাভের জন্য সিন্ডিকেট তৈরী করেছেন। ঘটখালীর একজন কৃষক আমতলীতে বীজ না পেয়ে তালতলী থেকে ১০ কেজির এক বস্তা বিআর-২৩ বীজ কিনলেন ৯৫০ টাকায় ।

যদিও বস্তার গায়ে বিএডিসি নির্ধারিত কেজি প্রতি বীজের দাম লেখা ৫৩ টাকা যা কাটা ছেড়া করে ৬৩ টাকা লেখা হয়েছে। কাইউম হাওলাদারও আমতলী শহরের একজন ডিলারের কাছ থেকে ৯৪০ টাকা করে ৪ বস্তা বীজ কিনেছেন, ৯৫০ টাকা ২ বস্তা বীজ কিনেছেন আনেচ বিশ্বাস। সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেল বীজের জন্য দোকানগুলোতে কৃষকদের প্রচন্ড ভীর কিন্তু কোন দোকানে বীজ নেই ।

অথচ ২ জুলাই রাত ৯ টার সময় দেখা গেল দুজন কৃষক ৯৫০ টাকা করে দুবস্তা বীজ কিনে নিয়ে যাচ্ছেন। যোগাযোগ করা হল বিএডিসির উপ পরিচালক মো নান্নু মিয়ার সাথে। তিনি জানালেন আমতলীতে কোন বীজ সংকট নেই এবং বিআর -২৩ কেজি প্রতি বীজের দাম ৬৩ টাকা। বীজের কৃত্রিম সংকট এবং কৃষকের হাহাকার বিভিন্ন। সোশ্যাল মিডিয়া এবং মুলধারার সংবাদপত্রে প্রকাশিত হলে কৃষকের পাশে দাড়ালেন বরগুনার পুলিশ সুপার মি: বিজয় বসাক বিপিএম,পিপিএম,আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো.সরোয়ার হোসেন ,সহকারী কমিশনার (ভূমি) মি; কমলেশ মজুমদার ও আমতলী থানার অফিসার ইন চার্জ আলাউদ্দিন মিলন।

বীজ সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে জোর তৎপরতা শুরু করলেন । দিন রাত দোকানে দোকানে হানা দেয়া ,তদারকি করা, মোবাইল কোর্ট দিয়ে জেল জরিমানা করা এবং গোপন গুদাম থেকে বীজ উদ্ধার করে ন্যায্য দামে বিক্রি করা। উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশে উপজেলা কৃষি অফিসার ডিলার ভিত্তিক উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের তদারকির লিখিত দায়িত্ব দিলেন।

সমন্বিত প্রচেষ্টায় বীজ সংকট নিরসন হয়ে দিশেহারা কৃষকের মুখে কিছুটা হাসি ফুটলেও প্রয়োজন প্রতিটা মৌসুমের আগে কৃষকের বীজ চাহিদা নিরুপণ করে বীজ সরবরাহ করা, বীজ বিক্রি মনিটর করা এবং সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা । কারন যে কৃষক জিডিপিতে সবচেয়ে বেশী অবদান রাখেন ,মাথার ঘাম পায়ে ফেলে বছরে প্রায় ৪ কোটি মেট্রিক টন ফসল উৎপাদন করেন তাদের বীজ ,সারসহ কৃষি উপকরণ নিশ্চিত করতে হবে। এই মহান দায়িত্ব নিয়ে কৃষকদের দু:সময়ে পাশে দাড়িয়ে দিশেহারা কৃষকদের ¤¬ান মুখে হাসি ফুটিয়েছেন চার কৃষক বান্ধব কর্মকর্তা।
সম্পাদনা : আ ই (জি-নিউজবিডি২৪ )

bashundhara
The Most Shocking Kim K's Bikini Body Photos

সর্বশেষ আপডেট

আরকাইভ

July 2018
S M T W T F S
« Jun    
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031