সংবাদটি প্রকাশ হয়েছেn: Fri, Jul 13th, 2018
bashundhara

গাংনী; প্রেম পরকীয়ায় ভাংছে সোনার সংসার

mapমজনুর রহমান আকাশ, মেহেরপুর প্রতিনিধি ঃ সর্বনাশা প্রেম ও পরকীয়ার ঘটনা মাদক আসক্তির চেয়েও ভয়াবহ রূপ নিয়েছে মেহেরপুরের গাংনী উপজেলায়। হিতাহিত জ্ঞানশূন্য হয়ে পড়ছে পরকীয়া প্রেমিক-প্রেমিকা।

ভেঙ্গে যাচ্ছে সোনার সংসার ও রঙিন স্বপ্ন। স্থানীয় জনতা ও পুলিশের হাতে আটক পরকীয়া জুটির জবানবন্দীতে বেরিয়ে এসেছে নানা চাঞ্চল্যকর ও মর্মান্তিক কাহিনী। এসব ঘটনার কোন তদন্তই হয় না। সামাজিক বিচারে কয়েকজন সংসারে ফিরে গেলেও সিংহভাগই হারিয়েছে সোনার সংসার। অনেকেই বেছে নিয়েছে আত্মহত্যার পথ।

বিভিন্ন সময়ে আটক প্রেমিক প্রেমিকা ও সমাজ পতিরা জানান, সংসারে স্বামী বা স্ত্রীর অনুপস্থিতি, অশান্তি, দাম্পত্য কলহ, নিজেকে নিঃসঙ্গ ভেবে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ছেন অনেকেই। সামান্য পরিচয়ের সুত্র ধরে সম্পর্ক তৈরি ও নিজেকে সিঙ্গেল দাবি করে ছেলে মেয়েরা বিয়ের প্রলোভনে অনৈতিক সম্পর্ক তৈরী করছে। বিশেষ করে ফেসবুক ও মোবাইল ফোন পরকীয়া করাকে খুবই সহজ করে দিয়েছে।

আসলে পরকীয়ায় সমর্পণের জন্য জীবনসঙ্গীর চোখের আড়ালে সুযোগ বুঝে নিজেকে সিঙ্গেল পরিচয় দিয়েও পরকীয়া করেন অনেক মানুষ। এতে প্রেম করাটা সহজ হয়। একই সঙ্গে জীবন সঙ্গী ও পরকীয়ার সঙ্গী দু’জনকেই ধোঁকা দেন তারা। নিজের সম্পর্কে মিথ্যা কাহিনী তৈরি করে নিজের অর্থ বিত্ত সম্পর্কে, জীবন সম্পর্কে এমন সব মিথ্যা কাহিনী তৈরি করেন যেন বিপরীত লিঙ্গ খুব আকর্ষণ বোধ করে আর তিনি অন্য কারো জীবন সঙ্গী এটা জানা সত্ত্বেও জৈবিক চাহিদার উন্মাদনার কারণে প্রেমে আগ্রহী হয়ে ওঠে।

প্রাপ্ত তথ্য মতে, ১২ জুলাই বৃহষ্পতিবার রাতে হাড়াভাঙ্গা সেন্টার পাড়ার জলিল ফকিরের ছেলে সেনাবাহিনীতে কর্মরত আব্দুল্লাহ আল মারুফ প্রতিবেশী সৌদি প্রবাসী শরিফুলের স্ত্রীর সাথে পরকীয়ায় লিপ্ত অবস্থায় প্রতিবেশীরা ধরে ফেলে। পর দিন সকালে ওই গৃহবধু বিয়ের দাবীতে সেনা সদস্যের বাড়িতে অনশন করে। এসময় পালিয়ে যান ওই সেনা সদস্য। ৯ জুলাই বাহাগুন্দা গ্রামের রাফিজুল ওরফে লাল মিয়া চুয়াডাঙ্গার এক কলেজ ছাত্রীর সাথে অসামাজিক কাজে লিপ্ত অবস্থায় জনগন দুজনকে তাড়া করে। এসময় রাফিজুল পালিয়ে গেলেও ধারা পড়ে রাফিজুলের বোন ও প্রেমিকা। বিবাহিত হয়েও রাফিজুল নিজেকে অবিবাহিত পরিচয় দিয়ে মোবাইল ফোনে সম্পর্ক গড়ে তোলে।

১০ জুলাই স্ত্রীর পরকীয়া সইতে না পেরে লাল্টু মিয়া(২৫) নামের একজন বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সে নিজ বাড়িতে বসে বিষপান করে। স্ত্রী সুমি অন্য পুরুষের সাথে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়লে ক্ষোভে লাল্টু মিয়া অভিশপ্ত পথ বেছে নেয়। লাল্টু মিয়া গাংনীর হিজলবাড়িয়া গ্রামের দেওয়ানের ছেলে। একই দিনে নিজেকে অবিবাহিত পরিচয় দিয়ে শহড়াবাড়িয়ার ঠান্ডুর ছেলে স্বপন পরোকীয়া সম্পর্ক গড়ে তোলে কড়–ইগাছি গ্রামের আজিজুল হকের মেয়ে সালমার সাথে। গোপন অভিষারে লিপ্ত অবস্থায় তাদেরকে স্থানীয় জনতা আটক করে পুলিশে দেয়। স্বপন একজন চোরাচালানী। তার ঘরে রয়েছে স্ত্রী ও দুই সন্তান।

১১ জুলাই শ্যালকের প্রেমিকার সাথে অনৈতিক কাজে লিপ্ত অবস্থায় আশাদুল নামের একজনকে আটক করেছে পুলিশ। স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় বামন্দি পুলিশ ক্যাম্পের আইসি মকবুল হোসেন আশাদুল ও প্রেমিকা সনিয়ারাকে আটক করে। আশাদুলের সংসারে রয়েছে স্ত্রী কনা ও ছেলে সাব্বির।

২ জুলাই পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় স্বামীর অকথ্য নির্যাতন সইতে না পেরে ফরিদা খাতুন(৪০) নামের এক গৃহবধু বিষ পানে আত্মহত্যা করে। ৪জুলাই গাংনীর চৌগাছা ভিটেপাড়া মাঠে একটি লিচু বাগানে ফুর্তি করতে গিয়ে বেরসিক জনতার হাতে গণধোলাই খেয়েছে প্রাক্তণ প্রেমিক জুটি হিন্দা গ্রামের বাবর আলীর ছেলে সেন্টু ও কুলবাড়িয়া গ্রামের এক সেবিকা। সেন্টু বিবাহিত হলেও নিজেকে অবিবাহিত পরিচয় দিয়ে ওই সেবিকার সাথে সম্পর্ক তৈরী করে।

প্রেমিক-প্রেমিকার বিয়েতে প্রেমিকার পরিবার অমত থাকায় বিষপান করেছে এক প্রেমিক যুগল। তবে সৌভাগ্যক্রমে প্রেমিকা প্রাণে বেঁচে গেলেও মৃত্যু বরণ করেছে হতভাগা প্রেমিক। ঘটনাটি ঘটেছে গাংনী উপজেলার কাজিপুর গ্রামে। হতভাগা প্রেমিকের নাম সাদ্দাম হোসেন (২৩)। সে কাজিপুর গ্রামের মৃত ছাদিমান হোসেনের ছেলে।

৩০ জুন মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার হিজলবাড়িয়া গ্রামে অসামাজিক কাজে লিপ্ত অবস্থায় গ্রাম বাসিরা  করমদি বহলপাড়ার এলাহী বক্সের ছেলে শিপন মিয়ার (২৬) ও কল্যাণপুর গ্রামের মাসুদ রানার মেয়ে সুরভী আক্তার মালাকে আটক করে পুলিশে দেয়। স্বামী বাইরে থাকায় স্ত্রী মালা পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েছে বলে জানায়। স্থানীয় পর্যায়ে সালিশ করে মালা স্বামী সংসারে ফিরে গেলেও শিপন মিয়াকে তার স্ত্রী ছেড়ে চলে যায়।

গাংনী মহিলা ডিগ্রী কলেজের বাংলা বিভাগীয় প্রভাষক রমজান আলী বলেন, মানুষের নীতি-নৈতিকতা এবং মূল্যবোধ নষ্ট হওয়ার কারণে পরকীয়া, খুন হত্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। নষ্ট হচ্ছে আত্মীয়তার সর্ম্পক। অপসংস্কৃতি চর্চায় মানুষের চাহিদা দিনে দিনে বৃদ্দি পাচ্ছে। ফলে স্বামী-স্ত্রীরা বিদ্যমান সর্ম্পকের বাইরে গিয়ে অন্য মানুষের সঙ্গে সর্ম্পকে তৈরি করছে। ফলে সোনালী সংসার ভেঙ্গে যাচ্ছে। এ থেকে রেহাই পেতে ভবিষ্যত প্রজন্মকে নৈতিক শিক্ষা ও সামাজিক মূল্যবোধ শেখাতে হবে। সেই সাথে ইন্টারনেটের অপব্যবহার বন্ধ করতে হবে বলে জানান তিনি।

গাংনী থানার ওসি (তদন্ত) সাজেদুল ইসলাম জানান, এ পর্যন্ত যতগুলো পরকীয়া প্রেমের টানে ঘর ছাড়ার ঘটনা ঘটেছে এবং পুলিশের হাতে যারা আটক হয়েছে তার সব কয়টি স্থানীয় সমাজ পতি এবং প্রেমিক প্রেমিকা জুটির পরিবারের লোকজন নিজ জিম্মায় নিয়েছে। তবে কয়েকটি ধর্ষণের মামলা হয়েছে সেগুলো প্রক্রিয়াধীন। প্রেমিক জুটির পরিবারের লোকজন কেউ মামলা চালাতে চান না আবার অনেকেই নিজ সংসারে ফেরত যাবার জন্য আইনের আশ্রয় নিতে চান না। এক্ষেত্রে পুলিশের কিছুই করার থাকেনা। সবার আগে নৈতিকতা শিক্ষা ও প্রযুক্তির যুগে নেতিবাচক শিক্ষা পরিহার করে ইতিবাচক শিক্ষা গ্রহন আবশ্যক।
সম্পাদনা : আ ই (জি-নিউজবিডি২৪ )

bashundhara
The Most Shocking Kim K's Bikini Body Photos

সর্বশেষ আপডেট

আরকাইভ

July 2018
S M T W T F S
« Jun    
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031