সংবাদটি প্রকাশ হয়েছেn: Tue, Jul 10th, 2018
bashundhara

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের কর্মচারী সিন্ডিকেটের হাতে জিম্মি অ্যাম্বুলেন্স সেবা

Chuadanga Hospetal Pic_10.07.18শামসুজ্জোহা পলাশ, চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি :  চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে সেবার নামে বেড়েই চলেছে বেসরকারি অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবসা। সরকারী অ্যাম্বুলেন্স স্বল্পতার সুযোগে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের কিছু সংখ্যক দালাল ও কর্মচারীসহ চুয়াডাঙ্গার ক্লিনিক মালিকেরা বেআইনি ও অবৈধ এই অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবসা চালাচ্ছে।

এই কুচক্রিমহল লক্কর ঝক্কর মাইক্রো কিনে কোন রকম মেরামত করে চটকদার রং করে উপরে লাল-নীল লাইট আর নিচে সাইরেন লাগিয়ে নাম মাত্র খরচে তৈরী করছে অ্যাম্বুলেন্স। বেসরকারী এসব অ্যাম্বুলেন্স ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট মুমূর্ষ রুগীদের জিম্মি করে নিজেদের ইচ্ছামত ভাড়া আদায় করছে।

এই সিন্ডিকেটের সাথে যোগ দিয়েছে এলাকার কতিপয় চিহৃত বিপথগামী মাদকাশাক্ত যুবক। এসব যুবকরা কোন মতে যদি জানতে পারে হাসপাতালের কোন রুগীকে রেফার করা হয়েছে। তাহলেই কেল্লা ফতে। মুমূর্ষ রুগীকে নিয়ে পরিবারের লোকজন যখন নানান চিন্তা ভাবনা আর টেনশনে সময় পার করছে তখন তাদের লাগেজ ধরে টানাটানি শুরু করে অ্যাম্বুলেন্সের দালাল শ্রেণীর এসব যুবক।

এসব দালাল যুবকরা বিভিন্ন চটকদার কথা বলে নিজের অ্যাম্বুলেন্স খুব ভাল আরাম দায়ক জার্নি হবে। যাত্রাপথে রুগী কিছু টেরই পাবেনা। এমন নানান কথার ফুলঝুরি দিয়ে রুগীর পরিবারকে ম্যানেজ করার চেষ্টা করে মাদকাশাক্ত দালাল যুবকরা। এই অবৈধ ও প্রতারনা মূলক অ্যাম্বুলেন্স ব্যবসার সাথে সদর হাসপাতালের কতিপয় কর্মচারীরা জড়িত থাকলেও তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছেন না হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

পুরো হাসপাতাল চত্বর ঘিরে তাদের অবাধ পার্কিং চোখে পড়ার মতো। এতে রোগীসহ জনসাধারণের চলাচল চরমভাবে বিঘিœত হলেও দেখার কেউ নেই। মুমূর্ষু রোগীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য দ্রুত রাজশাহী অথবা রাজধানী ঢাকায় পাঠাতে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে সরকারি অ্যাম্বুলেন্স প্রদান করা হলেও কয়েক বছর ধরে তিনটি অ্যাম্বুলেন্স বিকল হয়ে মেরামতের জন্য গ্যারেজে পড়ে আছে। তবে বর্তমানে দুইটা সরকারি অ্যাম্বুলেন্স সেবা দিচ্ছে। মেরামতের অভাবে গ্যারেজে পড়ে থাকা সরকারী ৩ টা অ্যাম্বুলেন্স কর্তৃপক্ষ দ্রুত মেরামতের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে সাধারণ জনগণকে এই প্রতারকদের হাত থেকে রক্ষা করবেন বলে মনে করছে সচেতন মহল।

সূত্রে জানা যায়, এছাড়াও ৫-১০টি বেসরকারি অ্যাম্বুলেন্স পুরো হাসপাতাল চত্বর ঘিরে জমজমাট ব্যবসা করছে। বেসরকারি এসব গাড়ি নামে মাত্রই অ্যাম্বুলেন্স। তাতে নেই আধুনিক অ্যাম্বুলেন্সের কোনো যন্ত্রপাতি বা সুযোগ-সুবিধা। দীর্ঘ দিনের পুরাতন মেয়াদ উত্তির্ণ সাধারণ মাইক্রোবাস কেটে তাতে জরুরি লাল নীল আলো, বিপদ জনক সাইরেন, আর একটি সিলিন্ডার বসিয়ে অ্যাম্বুলেন্স নামে চালানো হচ্ছে।

নিয়ম অনুযায়ী: অ্যাম্বুলেন্সে অক্সিজেনের ব্যবস্থা, এসি, প্রাথমিক চিকিৎসা উপকরণ এবং প্রশিক্ষিত ডাক্তার ও ওষুধের ব্যবস্থা থাকতে হয়। কিন্তু সাধারণ মাইক্রবাসকে কোন নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে সিন্ডিকেট হরহামেশা তা অ্যাম্বুলেন্সে রুপান্তর করছে। সেবা নয় রুগীর পরিবারের পকেট কাটাই এদের মূল উদ্দেশ্য। সরকারি অ্যাম্বুলেন্সের অভাব থাকায় এসব গাড়ি রোগী পরিবহনে গলাকাটা ভাড়া আদায় করছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হাসপাতালের এক কর্মচারী জানান, চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে সরকারি অ্যাম্বুলেন্স ঢাকাতে যায় না। তবে হাসপাতালে যে সকল বেসরকারি গাড়ি আছে তারা কিলোপ্রতি ৩৪ টাকা হারে নির্ধারিত ভাড়া নেই। অর্থাৎ চুয়াডাঙ্গা থেকে ঢাকা আসা-যাওয়ায় ১০ হাজার টাকা ও চুয়াডাঙ্গা থেকে রাজশাহী পর্যন্ত ৬০০০ হাজার টাকা নির্ধারিত।

ভুক্তভোগীরা জানান, এ হাসপাতাল থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রতিদিন কিছু মুমূর্ষু রোগীকে যশোর, খুলনা, রাজশাহী ও ঢাকাতে স্থানান্তরের নির্দেশ দেয়া হয়। হাসপাতালের সরকারী দু’টি অ্যাম্বুলেন্স সচল থাকলেও নানা সমস্যায় জর্জরিত বলে রুগীর স্বজনদের জানান সরকারী অ্যাম্বুলেন্সে দুরের জার্নি সম্ভব না। সরকারী ড্রাইভারদের আসল উদ্দেশ্য মূমুর্ষ রুগীর অসহায় পরিবারের কাছে সিন্ডিকেটের বেসরকারী অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া দেওয়া।

বেসরকারী যে কোন অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া রুগীর স্বজনরা ভাড়া নিয়ে সরকারী অ্যাম্বুলেন্সের ড্রাইভাররা পাবেন নির্দিষ্ট হারে কমিশন। এসব চক্রের লোকজন কৌশলে রোগীদের বাধ্য করে ওইসব অ্যাম্বুলেন্স সেবা নিতে। অনেকেরই অভিযোগ সবকিছু জেনেও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এসব ক্ষেত্রে নিরব দর্শকের ভূমিকা পালন করে। প্রশাসনের সামনেই চলছে এসব অনিয়ম।

চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন খাইরুল আলম জানান, সরকারী ৫টি অ্যাম্বুলেন্সের মধ্যে দুইটি সচল আছে। আর বাকী তিনটি বিকল হয়ে মেরামতের জন্য গ্যারেজে পড়ে রয়েছে। তবে এসব অ্যাম্বুলেন্স দূরে পাঠানো সম্ভব হয় না।
সম্পাদনা : আ ই (জি-নিউজবিডি২৪ )

bashundhara
The Most Shocking Kim K's Bikini Body Photos

সর্বশেষ আপডেট

আরকাইভ

July 2018
S M T W T F S
« Jun    
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031