1. gnewsbd24@gmail.com : admi2019 :
রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩:৫৪ অপরাহ্ন

রাজধানীতে ভারতীয় গরুতে সয়লাব

আমিনুল আমিন ঃ
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৫ জুলাই, ২০২০
  • ৩০ বার পঠিত

ঈদুল আজহা উপলক্ষ্যে ইতিমধ্যে রাজধানীর পশুর হাটগুলো জমে উঠতে শুরু করেছে। এবার চাহিদার তুলনায় হাটগুলোতে সরবরাহ একটু বেশি বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। এছাড়া বৃষ্টির কারণেও কোরবানির পশুর দাম কমার আশঙ্কা করছেন তারা।

প্রানি সম্পদ মন্ত্রী জনাব শ ম রেজাউল করিম ভারতীয় গরু দেশে প্রবেশের কোন সুযোগ নেই বললেও বৈধ- অবৈধ ভাবে ভারতীয় গরু দেশে ঢোকার দৃশ্যমান। তবে বরাবরের মতো এবারও হাটগুলোতে দেশি গরুর সরবরাহও বেশি এবং ক্রেতাদের পছন্দের তালিকায়ও রয়েছে শীর্ষে।

এদিকে গরু বেপারীরা বলছে, আমরা হতাশাগ্রস্থ, সরকার ঘোষণা দিয়েছে ভারতীয় কোন গরু দেশে আসবেনা বা আসার কোন সুযোগ নেই কিন্তু সরকারের ঘোষণার সাথে বাস্তব চিত্রের কোন মিল নেই, এভাবে যদি ভারত থেকে গরু আসতে থাকে তা হলে আমরা খামারিরা মহা বিপাকে পড়ে যাবো।

এছাড়া প্রশাসনিক আদেশে খাস আদায়ের মাধ্যমে শুরুতে প্রস্তাবিত ২৯টির পরিবর্তে এবার ১১ টি পশুর হাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, দুই সিটি করপোরেশন।

ঢাকা দক্ষিণে উত্তর শাহজাহানপুর মৈত্রী সংঘ মাঠ, হাজারীবাগ লেদার টেকনোলজি কলেজ মাঠ, পোস্তগোলা শ্মশানঘাট, কমলাপুর লিটল ফ্রেন্ডস ক্লাব মাঠ, আফতাবনগর ব্লক-ই, এফ, জির সেকশন ১ ও ২ নম্বর এলাকা নির্ধারণ করা হয়েছে হাটের জন্য।

উত্তর সিটিতে নির্ধারিত জায়গাগুলো হলো- পূর্বাচল ব্রিজ সংলগ্ন মস্তুল ডুমনি, কাউলা, উত্তরার বৃন্দাবন, বসিলা, উত্তরখান ও ভাটারা।

এবার কোরবানীর পশু সংকট হবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, চাহিদার তুলনায় পর্যাপ্ত পশু প্রস্তুত রয়েছে। হাটগুলোতে যাতে মোটাতাজাকরণে কৃত্রিম হরমোন বা ক্ষতিকারক ওষুধ সেবন করা গরু আসতে না পারে সেজন্য মনিটরিং জোরদার করা হয়েছে।

হাটে ঢোকার পথে ভেটেরিনারি চিকিৎসকরা গরু, ছাগল ও মহিষের শারীরিক পরীক্ষা সহ করোনা মহামারির কারণে হাট ব্যবস্থাপনায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বেশকিছু গাইডলাইন দিয়েছে। হাটের প্রবেশপথে ব্যধতামূলক হাত ধোয়ার ব্যবস্থা রাখতে হবে মাস্ক পরতে হবে ক্রেতা-বিক্রেতাদের।

ইজারাদাররা বলেন, করোনা সংক্রমণ রোধে এসব গাইডলাইন মেনে চলবেন তারা। তবে পশুর হাটে স্বাস্থ্যবিধি রক্ষা সহজ হবে না বলে মনে করেন, স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। তাদের আশঙ্কা এতে রোজার ঈদের মতোই খেসারত দিতে হতে পারে।

কোরবানির পশুর হাট সম্পর্কে আইইডিসিয়ার এর সাবেক প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডা. মুস্তাক হোসেন বলেন, কোরবানির হাট নিজেই হচ্ছে জনস্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ। সংক্রামণ ছড়ানোর সমূহ সম্ভাবনা আছে। এখানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হলে, হাট চলা সম্ভব নয়। সনাতন হাট না বসিয়ে করোনাকালে বিকল্প উপায় খোঁজার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে হাট পরিচালনার কথা বলছে কর্তৃপক্ষ। তবে এমন প্রতিশ্রুতি আদৌ রক্ষা করা সম্ভব কিনা তা নিয়ে শঙ্কায় বিশেষজ্ঞরা।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451