1. gnewsbd24@gmail.com : admi2019 :
শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ০২:২০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

সৈয়দপুরে গড়ে উঠেছে একাধিক অবৈধ ভবন

জহুরুল ইসলাম খোকন, সৈয়দপুর প্রতিনিধি (নীলফামারী) ঃ
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১২ বার পঠিত

নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে নীলফামারীর সৈয়দপুরে প্রায় প্রতিদিনই নির্মিত হচ্ছে বহুতল ভবন। পৌর আইনের ধার ধারছেনা ভবন মালিকরা। সেই সাথে ওয়ার্ড কাউন্সিলররাও অর্থের বিনিময়ে অবৈধ ভবন মালিকদের তা নির্মাণে মদদ দিয়ে চলেছেন। অনেকে আবার পৌরসভা থেকে ৪/৫ তলার অনুমোদন নিয়ে গড়ে তুলছেন বহুতল ভবন।

জমিদারি, খাস বা রেলওয়ের জমিতে নির্মিত হওয়া বহুতল ভবন নিয়ে পৌর কর্তৃপক্ষকে অভিযোগ দিয়েও মিলছেনা কোনো প্রতিকার। বহুতল ভবন নির্মানের পূর্বে সয়েল টেস্ট করে নকশা অনুমোদন দেন পৌর কর্তৃপক্ষ। এমনকি বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণ করতে গেলেও পৌর বিধি মেনে নির্মাণ করার নির্দেশনা রয়েছে। কিন্তু সৈয়দপুর পৌর এলাকায় এর কোনো বাড়াই নেই। পৌর মেয়র এ বিষয়টি নিয়ে অবগত না থাকলেও অর্থের বিনিময়ে বেশ কজন কাউন্সিলররা সেগুলি নির্মানে অনুমোদন দিয়ে চলেছেন। এখনই এই বিষয়গুলো দেখভাল করা না হলে সবারই নেমে আসতে পারে মহাবিপদ। গতকাল শহরের জ্ঞাণীগুণি মানুষ এসব কথা জানান।

জানা যায় বিমানবন্দর থেকে ২৫ নটিক্যাল মাইল পর্যন্ত কোনো ধরনের বহুতল ভবন নির্মান করা চলবে না। যদি কেউ বহুতল ভবন নির্মান করতে চান তাহলে ভবন নির্মানের পূর্বে সিভিল এ্যাভিয়েশন কর্তৃপক্ষের কাছে অনুমতি নেওয়ার পর পৌরসভার নকশা পাশ করতে হবে। বিমান চলাচলে বাধাগ্রস্থ হয় এমন ভবন নির্মানে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে সিভিল এ্যাভিয়েশন কর্তৃপক্ষের। অপরদিকে রেলওয়ের অনুমতি ছাড়া রেলের জমিতে কোনো প্রকার স্থাপনা নির্মানকারিদের আইনের আওতায় নেওয়ারও কঠোর নির্দেশনা রয়েছে। কিন্তু কে শুনে কার কথা।

শহরবাসি বলছেন বিগত ১৫ বছর আগেও এই শহরে ছিল না ৫ তলা বিশিষ্ট দৃষ্টিনন্দিত কোনো ভবন। কিন্তু বর্তমানে বহুতল ভবনে ছড়াছড়ি। এসব ভবনের মালিকরা কেউই সিভিল এ্যাভিয়েশন বা রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের কাছে অনুমোদন নেন নি। অভিযোগ রয়েছে রেলওয়ে বা খাস জমির উপর বহুতল ভবন বা যে কোনো স্থাপনা নির্মান করতে গেলে সংশি¬ষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমোদন ও নকশা নিয়ে বহুতল ভবনের পাশাপাশি যে কোনো স্থাপনা নির্মান করতে পারবেন। কিন্তু ভবন মালিকরা পৌরসভা থেকে অর্থের বিনিময়ে নকশা অনুমোদন নিয়ে অবৈধভাবে রেলওয়ে জমি বা খাস জমিতে তা নির্মান করে চলেছেন।

আবার অনেকেই ৩/৪ তলা ভবনের নকশা অনুমোদন নিয়ে ৫/৬ তলার বহুতল ভবন নির্মান করছেন। কেউ কেউ কোনো প্রকার নকশা বা অনুমোদন না নিয়েই নির্মান করে চলেছেন নানা ধরনের স্থাপনা। এসব বিষয়ে অভিযোগ দিলে পৌর কর্তৃপক্ষ যথাযথ ব্যবস্থা নিতে নোটিশ করলেও এলাকার কাউন্সিলররা মেয়রের নোটিশকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ভবন বা স্থাপনা নির্মানে মদদ দিয়ে চলেছেন।

রেলওয়ের বিভাগিয় ভূমি কর্মকর্তা নুরুজ্জামান জানান সৈয়দপুর শহরে রেলওয়ের জমিতে যতগুলি ভবন বা বহুতল ভবন নির্মান হয়েছে তার বেশিরভাগই অবৈধ। দখলকারীরা রেলের জমি অবৈধভাবে দখল করে এবং কোনো প্রকার অনুমোদন বা নকশা না নিয়ে বহুতল ভবন নির্মাণ করেছেন।

এ বিষয়ে পৌর মেয়র আমজাদ হোসেন সরকার জানান শহরের উন্নয়নের স্বার্থেই গুরুত্বপূর্ণ কিছু জায়গায় বহুতল ভবন নির্মানের অনুমতি ও নকশা দেওয়া হয়েছে বৈধভাবে। এসব ভবন মালিকরা অনুমোদন ও নকশা না নিয়ে স্থাপনা বা বহুতল ভবন নির্মাণ করেছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ারও পরিকল্পনা রয়েছে। তবে শহরে কতগুলি বহুতল ভবন নির্মাণ হয়েছে তার কোনো সঠিক জবাব দেন নি তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451