1. gnewsbd24@gmail.com : admi2019 :
শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:২১ পূর্বাহ্ন

তালতলা কবরস্থানে ২৮ দিনে ১২৬ মৃতদেহ দাফন

মাহমুদুর রহমান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট ঃ
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২২ এপ্রিল, ২০২০
  • ২৬২০ বার পঠিত

রাজধানীর খিলগাঁও তালতলা সিটি কর্পোরেশন কবরস্থানে গত ২৮ দিনে করোনা সন্দেহে ও করোনায় আক্রান্ত সহ মোট ১২৬ জনের দাফন সম্পূর্ণ হয়েছে।এর মধ্যে গতকাল মঙ্গলবার সর্বোচ্চ ২৪ জনকে দাফন করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন কবরস্থানের কর্তব্যরত স্টাফ (ইমাম) হাফেজ নাসির উদ্দিন। তিনি আজ সকালে জিনিউজ কে জানান, গতকাল মঙ্গলবার সর্বোচ্চ ২৪ জনকে দাফন করা হয়।এর আগে এত লাশ একসাথে কখনও আসেনি।

বিষয়টির কারণ কি জানতে চাইলে তিনি আরও বলেন, আপনারা জানেন এখন মৃত্যুর হার কিছুটা বেড়েছে।তাছাড়া অনেক সময় প্রতিদিনের লাশ তো আর প্রতিদিনই আনা হয় না।নমুনা পরীক্ষা বা অন্য যে কোন কাজে একদিন দেরি হতে পারে।তবে একসাথে এতগুলো লাশ এর আগে কখনও আসেনি।

গতকাল সকাল থেকেই আল-মারকাজুল এবং রহমতে আলম এর অ্যাম্বুলেন্স এবং লাশবাহী ফ্রিজিং গাড়ি একের পর এক মরদেহ নিয়ে আসতে থাকে।রাত্র সোয়া একটা পর্যন্ত চলতে থাকে তাদের এই আনা নেওয়া। গতকাল দাফনকৃতদের মধ্যে ২২ জনই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও কুর্মিটোলা হাসপাতালের। বাকি ২ টি মরদেহ মুগদা মেডিকেল হাসপাতাল থেকে আনা হয়। তারা সবাই করোনায় (কভিট-১৯)এ আক্রান্ত হয়ে শারীরিক জটিলতায় মৃত্যুবরণ করেছেন বলে মৃত্যু সনদে উল্লিখিত।

গতকাল দাফনকৃতদের একজনের বয়স ২৭ বছর(মহিলা)তিনি চাঁদপুরের ভয়রা থানার বাসিন্দা।তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুবরন করেন। অপরজন ৪০ বছর বয়সী (মহিলা)তিনি ঢাকার মিরপুর ১১ নাম্বার এর বাসিন্দা।তিনিও ঢাকা মেডিকেলে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান।আরেকজন ৫৫ বছর বয়সী (মহিলা)তিনি ফরিদাবাদ,ঢাকার বসিন্দা।তিনিও ঢাকা মেডিকেলে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান।

আরেকজনের বয়স ৪৯,তিনি উত্তরা ১৩ নং সেক্টরের বাসিন্দা।তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়ে কুর্মিটোলা হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।

অপরজন ৭৫ বছর বয়সী(মহিলা)তিনি ঢাকার লালবাগের বসিন্দা।তিনি ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে করোনায় আক্রান্ত হয়ে শারীরিক জটিলতায় মৃত্যুবরন করেন বলে তার মৃত্যু সনদে বলা আছে।

এছাড়া ৬৯ বছর বয়সী,শ্রীনগর-মুন্সীগঞ্চ এর একজন এবং ৬৮ বছর বয়সী ওয়ারী,ঢাকার একজন মুগদা মেডিকেল হাসপাতালে মারা যান।তারাও করোনায় আক্রান্ত ছিলেন বলে জানা যায়।

এছাড়াও বংশালের ১ জন,নারায়ণগঞ্জের ৩ জন,কুমিল্লার ২ জন,মেরাদিয়া ঢাকার ১ জন এবং মোহাম্মদ পুরের ১ জনকে গতকালকে দাফন করা হয়েছে।তারা প্রত্যেকেই করোনায় আক্রান্ত ছিলেন বলে মৃত্যু সনদ থেকে জানা যায়।বাকি ২ জনের ঠিকানা জানা যায়নি বা তাদের কোন স্বজনের মুঠো ফোন নাম্বারও পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য গত ১৪ এপ্রিল প্রকাশিত প্রতিবেদনে মোট মৃতের সংখ্যা ৪৩ জন উল্লেখ করা হয়।গত আট দিনে ৭৩ জন বেড়ে তা দাঁড়িয়েছে ১২৬ এ।
এই প্রতিবেদন লেখার আগ পর্যন্ত আজ বুধবার আরও ৪ টি মরদেহ আনা হয়েছে।

গোরখোদকদের অভিযোগ
করোনায় মৃতদের দাফন কাজ আল-মারকাজুল বা রহমতে আলম এর কর্মী এবং তালতলা কবরস্থানে কর্মরত গোরখোদকরা করে থাকে।

আজ জিনিউজ কে এক গোরখোদক বলেন; কাইল রাইত ১০ টা পর্যন্ত কাম করছি,এর মধ্যে ছারেরা কইল আরও ২ টা লাশ আইব একটু পরেই। বইয়া রইছি,বইয়া রইছি; হেই লাশ আইছে রাইত একটায়! হেরপর কাম কইরা বাসায় গিয়া গোসল কইরা,ভাত খাইয়া ঘুমাইতে ঘুমাইতে রাইত সাড়ে তিনটা!! আবার সকালে ডিউটি! তয় আমরাও তো মানুষ নাকি? এমুন হইলে করোনায় না, আমরা মরমু না খাইয়্যা আর না ঘুমাইয়্যা। আমরা চাই একটা সময় নির্ধারণ কইরা দিক আমগো। রাইতের এতটার পর আর কোন লাশ আইব না।তাইলে আমরা বাঁচতে পারমু!

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451