শনিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২১, ০৪:২৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বাগেরহাটে শরণখোলায় ১৯ হরিণের চামড়াসহ দুই পাচারকারী আটক গাংনীর নিরাপদ বাঁধাকপি যাচ্ছে তাইওয়ানে বিচারহীনতা, জবাবদিহিতা ও সুশাসনের অভাবে দিহানদের সৃষ্টি হচ্ছে জলঢাকায় মুজিববর্ষ উপলক্ষে ১৯১টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে গৃহ প্রদান মাগুরায় ১১৫ ভুমিহীন পরিবার পেল ঘরের চাবি ও দলিল সৈয়দপুরে স্বপ্নের ঘর পেলেন ৩৬ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার SATV অষ্টম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উৎযাপিত জয়পুরহাট ১৬০টি পরিবারের মাঝে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন বাগেরহাটে দুই শিশু হত্যাঃ হয়রানিমূলক মামলা থেকে রক্ষা পেতে মানববন্ধন মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান

ধর্ষণ আজ মহামারি আকার ধারন করেছে – অধ্যাপক ড. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী

জি-নিউজবিডি২৪ ডেস্ক :
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২২ নভেম্বর, ২০২০
  • ৩৮ বার পঠিত

শুধু আইনের শাসন দিয়েই ধর্ষণ প্রতিরোধ সম্ভব না। মৃত্যুদন্ডের ভয়েও যে ধর্ষক সংযত হবে সেটাও ঠিক নয়। এর জন্য প্রয়োজন সমাজ পরিবর্তনের আন্দোলন। এ বিষয়ে সন্দেহ নাই, ধর্ষণ আজ মহামারি আকার ধারন করেছে। শিশু ধর্ষণ চলছে, ধর্ষণের পর হত্যা করা হচ্ছে। আজ মানুষ হতাশ হচ্ছে, মানুষ আতœহত্যা করছে।

আতœহত্যার সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে। এর প্রতিরোধ দরকার। এই প্রতিরোধের মূল দায়িত্ব রাষ্ট্রের। আজ ২২ নভেম্বর ২০২০ রবিবার তেঁজগাওস্থ জাতীয় চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনে (এফডিসি) “ধর্ষণ প্রতিরোধে রাজনৈতিক সদিচ্ছা নিয়ে” ইউসিবি পাবলিক পার্লামেন্ট ছায়া সংসদ বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি’র চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ।

অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী আরো বলেন, আইনের শাসনের চাইতে আমি জবাবদিহিতাকে বড় মনে করি। কারন জবাবদিহিতা থাকলে আইনও বদল হবে। আসল কথাটি হচ্ছে জনমত। ভরসা কিন্তু এই সংসদে নয়, ভরসা সরকারও নয়, ভরসা হচ্ছে সেই জনমত, যে জনমত সংসদ ও সরকারের উপর চাপ সৃষ্টি করতে পারবে। যেখানে থাকতে হবে জবাবদিহিতা।

গণতন্ত্রের মূল কথাটিই হলো জবাবদিহিতা। গণতন্ত্র কেবল ভোটের দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হয়না। জনমত তৈরি হবে আন্দোলনের মধ্যেদিয়ে এবং সেক্ষেত্রে মিডিয়া অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। আজ মিডিয়া যতো শক্তিশালী, অতীতে কখনো মিডিয়া এতো শক্তিশালী ছিলোনা। মিডিয়া যদি এই খবরগুলি তুলে ধরে, জনমত গঠনে সহায়তা করে, তাহলে মানুষের মধ্যে আশার সঞ্চার হবে। তিনি আরো বলেন, এটা অত্যন্ত দুঃখজনক, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে এখন কোন ছাত্র সংসদ নেই। সাংস্কৃতিক চর্চা নেই, কোন বিতর্ক নেই, খেলাধূলা নেই।

সভাপতির বক্তব্যে ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি’র চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ বলেন- রাজনৈতিক প্রভাব প্রতিপত্তি, বিচারের দীর্ঘসুত্রিতা সহ মূল্যবোধের অবক্ষয়ের কারনে আমাদের ধর্ষণ নামক মহামারি প্রতিরোধ করতে বেগ পেতে হচ্ছে। সর্বস্তরে ক্ষমতার অপব্যবহার, অর্থনৈতিক বৈষম্য, তথ্যপ্রযুক্তির অপব্যবহার, যৌতুক, নারীর ক্ষমতার অপর্যাপ্ততা, মূল্যবোধের অভাব, ধর্মের ভুল ব্যাখা, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কিছু সদস্যের দায়িত্ববোধের অভাব- সর্বোপরি সমাজের সর্বস্তুরে সুশাসন প্রতিষ্ঠিত না হওয়া ধর্ষণ বৃদ্ধির জন্য দায়ী।

সাম্প্রতিক সময়ে ধর্ষণের চিত্র মোবাইলে ধারণ করে মানসিক চাপ তৈরির মাধ্যমে নারীকে বারবার ধর্ষণ করা হচ্ছে। এমনকি ধর্ষনের চিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেবার ভয় দেখিয়ে অর্থ আদায়ও করছে ধর্ষকরা। ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদন্ড করা হলেও নানা কারনে ধর্ষকের শাস্তি নিশ্চিত করতে বেগ পেতে হবে।

সাক্ষ্য আইনের ত্রুটি বিচ্যুতি, ফরেনসিক রিপোর্টের দূর্বলতা, বাদীর আর্থিক সীমাবদ্ধতা, বিচারের দীর্ঘসুত্রিতা ধর্ষণের শাস্তি প্রমাণে বড় বাধা হয়ে দাড়ায়। ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদন্ড হলে আসামী ধরা পড়ার ভয়ে ধর্ষণের শিকার ব্যাক্তিকে হত্যা করার প্রবণতা বাড়তে পারে। আজকে যে শুধু নারীরাই ধর্ষিত হচ্ছে তা নয়, আমরা অনেক ছেলে শিশুকেও বলৎকারের শিকার হতে দেখতে পাচ্ছি। বিকৃত মানসিকতার এক কিশোরকে দেখা গেছে ময়না তদন্তের জন্য আসা মৃত নারীদের ধর্ষণ করতে। তাই নারীর প্রতি নিপীড়ন বন্ধে শুধু আইন প্রয়োগ করে সম্ভব হবে না। তা প্রতিরোধে আইনের বাস্তবায়নের পাশাপাশি গণজাগরণ তৈরি করতে হবে।

তিনি আরে বলেন, আমরা দেখেছি প্রচলিত আইনে নিপীড়িতরা মামলা করতে গেলে মামলা নেওয়া হয়না। মামলা নেওয়া হলেও বিবাদী পক্ষের হুমকিতে বাদী’কে পালিয়ে বেড়াতে হয়। তাছাড়া মেডিক্যাল টেস্টের নামে হতে হয় মারাতœক হয়রানি। যে নারী নিপীড়নের শিকার হচ্ছে তিনি আইনের আশ্রয় পাচ্ছেনা, অথচ নিপীড়নকারী আইনের প্রশ্রয় পাচ্ছে। অন্যায়করে পার হওয়ার মানসিকতা দূর করে অন্যায় কারীর দৃশ্যমান শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।

প্রতিযোগিতায় তেজগাঁও কলেজ কে পরাজিত করে ইউনিভার্সিটি অব সাউথ এশিয়া বিজয়ী হয়। প্রতিযোগিতায় বিচারক ছিলেন অধ্যাপক আবু মোহাম্মদ রইস, সাংবাদিক আরিফুর রহমান, সাংবাদিক নাদিয়া শারমিন, সাংবাদিক আঙ্গুর নাহার মন্টি, এবং সাংবাদিক সাজেদা পারভিন। প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের মধ্যে ক্রেস্ট ও সনদপত্র প্রদান করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

cover3.jpg”><img src=”https://www.bssnews.net/wp-content/uploads/2020/01/Mujib-100-1.jpg”>

via Imgflip

 

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451