সোমবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২১, ১০:৫৪ অপরাহ্ন

করোনা মোকাবিলায় বৈশ্বিক সংহতির আহ্বান জাতিসংঘ মহাসচিবের

জি-নিউজবিডি২৪ ডেস্ক :
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৩০ বার পঠিত

জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস বলেছেন, ‘কোভিড-১৯ মহামারি বৈশ্বিক সংহতি ও বৃহত্তর আন্তর্জাতিক সহযোগিতার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেছে এবং এটিকে মৌলিক পরিবর্তনের সুযোগে পরিণত করতে হবে।’ নোবেল শান্তি পুরস্কার ফোরামে গতকাল শুক্রবার এ কথা বলেন জাতিসংঘের মহাসচিব। বার্তা সংস্থা ইউএনবি এ খবর জানিয়েছে।

ভার্চুয়ালি আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে দেওয়া ভিডিওবার্তায় জাতিসংঘের মহাসচিব বলেন, ‘কোভিড-১৯ সংকট মানব সংহতির প্রয়োজনীয়তা আমাদের সামনে তুলে ধরেছে এবং যে হুমকি সবার জন্য, তা আমরা সবাই মিলেই সমাধান করতে পারি।

নোবেল আলোচনায় মহামারির পরে বহুপক্ষীয়তা ও বিশ্ব পরিচালনার ওপর আলোকপাত করা হয়, যা পৃথিবীর প্রায় সব দেশকেই প্রভাবিত করেছে।

ক্রমবর্ধমান অর্থনৈতিক ও সামাজিক এ পরিণতির কারণে বিশ্ব বিগত ৮০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বড় বৈশ্বিক মন্দার মুখোমুখি এবং দারিদ্র্যের মাত্রা চরমে পৌঁছেছে। চলমান এমন পরিস্থিতিতে ‘রিসেট’ করার আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের মহাসচিব। তিনি বলেন, ‘আমরা চাইলেই আগের জায়গায় ফিরে গিয়ে এই সংকট মোকাবিলা করতে পারব না। আমাদের আরো আন্তর্জাতিক সহযোগিতা ও শক্তিশালী আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান দরকার।’

চীনে প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হওয়ার প্রায় এক বছর পার হয়েছে। গুতেরেস বলেন, ‘দেশগুলো একটি সাধারণ শত্রুর মুখোমুখি হলেও, এটি মোকাবিলার ক্ষেত্রে তারা কোনো যৌথ উদ্যোগ গ্রহণ করেনি। তিনি আরো বলেন, ‘করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন পাওয়ার ক্ষেত্রেও আমরা একই ঘটনা ঘটতে দিতে পারি না, এটিকে অবশ্যই জনসাধারণের পণ্য হিসেবে গণ্য করতে হবে।

গুতেরেস এ সংকটকালীন সময়ে যে নীতিগুলো বাস্তবায়নে জোর দিয়েছিলেন তা পুনর্ব্যক্ত করেছেন। করোনাভাইরাসকে মহামারি ঘোষণার পরপরই বিশ্বব্যাপী যুদ্ধরত পক্ষগুলোকে যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানিয়েছিলেন জাতিসংঘ মহাসচিব। যুদ্ধ নয়, ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে মনোনিবেশ করার আহ্বান জানান তিনি।

মহামারি ছাড়াও বৈশ্বিক উদ্বেগের নানা ক্ষেত্র চিহ্নিত করেছেন গুতেরেস, যেগুলো সমাধানের জন্য বৃহত্তর বৈশ্বিক সহযোগিতা এবং সংহতি প্রয়োজন।

জলবায়ু সংক্রান্ত জরুরি অবস্থার কথা তুলে ধরে জাতিসংঘ মহাসচিব ‘প্রকৃতির বিরুদ্ধে মানবতার আত্মঘাতী যুদ্ধ’ সম্পর্কে কথা বলেন। তবে এর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে মানুষের ক্রমবর্ধমান জোট আশার আলো হয়ে দেখা দিচ্ছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে, ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) ২৭ সদস্য রাষ্ট্র শুক্রবার ঘোষণা করেছে যে, তারা কার্বন নিঃসরণ কমানোর লক্ষ্যমাত্রা ২০৩০ সালের মধ্যে ৫৫ শতাংশে উন্নীত করার বিষয়ে চুক্তিতে পৌঁছেছে।

গুতেরেস বলেন, ‘প্রতিটি দেশ, শহর, আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও সংস্থাকে ২০৫০ সালের মধ্যে কার্বন নিঃসরণের হার শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনার পরিকল্পনা গ্রহণ করা উচিত।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

cover3.jpg”><img src=”https://www.bssnews.net/wp-content/uploads/2020/01/Mujib-100-1.jpg”>

via Imgflip

 

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451