সোমবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২১, ০৪:০৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ডুমুরিয়া উপজেলার সাহস ইউনিয়নের সর্বত্রই বইছে নিবাচনী হাওয়া শিক্ষার পাশাপাশি নিরপেক্ষ গাইডলাইন প্রশিক্ষণের প্রয়োজন অনস্বীকার্য জয়পুরহাটে জনসচেতনতা মূলক সমাবেশ কলাপাড়ায় প্রতিপক্ষের অত্যাচার-নির্যাতন থেকে রক্ষার জন্য সংবাদ সম্মেলন কুড়িগ্রামে প্রবাসী দম্পতির দেয়া শীতবস্ত্র পেলেন প্রতিবন্ধীরা ঝিনাইদহের বিজিবি দপ্তরে প্রায় দুই কোটি টাকা মূল্যের মাদকদ্রব্য ধ্বংস সিদ্ধিরগঞ্জে সমিতির অফিস ভাঙচুরসহ হামলার ঘটনাস্থল ক-সার্কেলের পরিদর্শন খুলনায় ট্রাক-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে জখম ১ মার্সেল দ্বিতীয় বিভাগ দাবা লিগ-২০২১: পঞ্চম রাউন্ডে ফারাজ আয়াজের জয় গাবতলীতে রাতের আধাঁরে সরকারী জায়গা থেকে মাটি কাটার অভিযোগ

ছাঁটাই আতঙ্কে পোশাক শ্রমিকদের বিক্ষোভ, অবরোধ

গাজীপুর প্রতিনিধি :
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২ মে, ২০২০
  • ৭১ বার পঠিত

গাজীপুরে ছাঁটাই আতঙ্কে দুটি তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিক আজ শনিবার বিক্ষোভ করেছে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় নিশ্চিত করতে কাজে যোগ দিতে না পেরে এসব শ্রমিক ঢাকা-টাঙ্গাইল ও ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক দুটি অবরোধ করে। দীর্ঘ সময় অবরোধের কারণে ওই মহাসড়কে যানবাহন আটকা পড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে শিল্প পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।গাজীপুর শিল্প পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুশান্ত সরকার বলেন, ‘করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর দুই হাজার ৭২টি কারখানার মধ্যে শনিবার পর্যন্ত ৮৭৩টি কারখানা চালু হয়েছে।

গাজীপুর মহানগরের তারগাছ এলাকায় অনন্ত ক্যাজুয়াল ওয়্যার লিমিটেড নামের কারখানাটি একই কারণে বন্ধ থাকার পর গত ২৬ এপ্রিল থেকে চালু হয়। এ কারখানায় প্রায় তিন হাজার শ্রমিক কাজ করে। কিন্তু করোনা সংক্রমণ রোধে সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে কারখানার দুই হাজার শ্রমিক নিয়ে সাময়িকভাবে কাজ শুরু হয়। এতে কাজে যোগ দিতে না পারায় অবশিষ্ট শ্রমিকদের মধ্যে ছাঁটাই আতঙ্ক দেখা দেয়।

কাজে যোগ দিতে না পারা শ্রমিকরা আজ সকালে কারখানার গেইটে এসে জড়ো হয়। এ সময় তারা কাজে যোগ দেওয়ার জন্য কারখানায় প্রবেশের চেষ্টা করলে নিরাপত্তাকর্মীরা তাদের বাঁধা দেয়। এর প্রতিবাদে শ্রমিকরা গেইটের সামনে বিক্ষোভ শুরু করে। বিক্ষোভকারীরা তাদের কাজে যোগ দেওয়ার অনুমতির দাবি জানায়।

এ সময় কর্তৃপক্ষ জানায়, স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য সরকারের নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে স্বল্প সংখ্যক শ্রমিক নিয়ে সাময়িকভাবে উৎপাদন কাজ শুরু করা হয়েছে। পরবর্তী সময়ে কারখানার সব শ্রমিককে পর্যায়ক্রমে কাজে নেওয়ার আশ্বাস দেন। এ ছাড়া যেসব শ্রমিক কাজে যোগ দিতে পারছে না, তাদের কাজে যোগ দেওয়া পর্যন্ত সরকারঘোষিত বেতনের শতকরা ৬০ ভাগ হারে বেতন দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়। তবে কারখানার কোনো শ্রমিককে ছাঁটাই করা হচ্ছে না।

শ্রমিকরা কারখানা কর্তৃপক্ষের ওই বক্তব্য প্রত্যাখ্যান করে। এ সময় সবাইকে একসঙ্গে কাজে যোগ দেওয়ার অনুমতির দাবি জানিয়ে তারা বিক্ষোভ করতে থাকে।

শিল্প পুলিশের পরিদর্শক ইস্কান্দর হাবিবুর রহমান বলেন, ‘দাবি মেনে না নেওয়ায় শ্রমিকরা কারখানার পার্শ্ববর্তী ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের উপর অবস্থান নিয়ে অবরোধ করে। এতে মহাসড়কের উভয়দিকে যানবাহন বন্ধ হয়ে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। একপর্যায়ে শ্রমিক আন্দোলনের মুখে কারখানা কর্তৃপক্ষ আগামীকাল রোববার থেকে সবাইকে কাজে যোগদানের আশ্বাস দেয়। এতে বিক্ষোভকারীরা তাদের আন্দোলন প্রত্যাহার করে প্রায় দুঘণ্টা পর সকাল ১০টার দিকে মহাসড়কের অবরোধ তুলে নিলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কারখানার কয়েকজন শ্রমিক জানান, শ্রম মন্ত্রণালয় থেকে শ্রমিক ছাঁটাই বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হলেও কারখানা মালিকরা সেই নির্দেশনা মানছেন না। কারখানা কর্তৃপক্ষ শ্রমিক ছাঁটাইয়ের নানা ষড়যন্ত্র করছে। আংশিক শ্রমিকদের কাজে যোগদানের সুযোগ দিয়ে অবশিষ্ট শ্রমিকদের পরবর্তীতে কাজে নেওয়ার মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে বিভিন্ন কারখানায় ছাঁটাই করা হচ্ছে। এ কারণেই শ্রমিকরা সবাইকে এক সঙ্গে কাজ করার সুযোগ দেওয়ার দাবিতে আন্দোলন করছে।

অপরদিকে গাজীপুর মহানগরীর কাশিমপুরের জিরানী এলাকায় অকো টেক্স লিমিটেড নামের কারখানার শ্রমিকরা একইদিন সকালে বিক্ষোভ ও ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক অবরোধ করেছে।

গাজীপুর শিল্প পুলিশের পরিদর্শক আব্দুল জলিল বলেন, ‘অকো টেক্স লিমিটেড কারখানার শ্রমিকরা কাজে যোগ দিতে আজ সকাল থেকে গেটে এসে জড়ো হয়। এ কারখানায় প্রায় চার হাজার শ্রমিক কাজ করেন। করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী সামাজিক দূরত্ব বজায় নিশ্চিত করতে কর্তৃপক্ষ প্রায় দুই হাজার শ্রমিককে কাজে যোগ দেওয়ার অনুমতি দেয়।

অবশিষ্ট শ্রমিককে কাজে যোগ দিতে না দেওয়ায় তাদের মাঝে ছাঁটাই আতংক দেখা দেয়। এ সময় তারা কারখানার সব শ্রমিককে একসঙ্গে কাজে যোগদানের সুযোগ ও ছাঁটাই বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করে। একপর্যায়ে তাঁরা কারখানার পার্শ্ববর্তী ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের উপর অবস্থান নিয়ে অবরোধ করে।

এতে মহাসড়কের উভয়দিকে যানবাহন বন্ধ হয়ে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। এ সময় পুলিশের মধ্যস্থতায় আলোচনা শেষে কারখানা কর্তৃপক্ষ আগামী ৭ মের মধ্যে কারখানার সব শ্রমিককে পর্যায়ক্রমে কাজে যোগদানের সুযোগ দেওয়ার আশ্বাস দেয়। এতে বিক্ষোভকারীরা তাদের আন্দোলন প্রত্যাহার করে প্রায় তিন ঘণ্টা পর সকাল ১০টার দিকে মহাসড়কের অবরোধ তুলে নিয়ে এলাকা ত্যাগ করলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

cover3.jpg”><img src=”https://www.bssnews.net/wp-content/uploads/2020/01/Mujib-100-1.jpg”>

via Imgflip

 

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451