বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২১, ০২:৪৮ অপরাহ্ন

আরটিভিতে ডায়মন্ড নেকলেস

বিনোদন ডেস্ক :
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৭ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৩৪ বার পঠিত

আশরাফুল চন্চল্ এর চিত্রনাট্য ও পরিচালনায় ডামন্ড নেকলেস। ৯ জানুয়ারী থেকে আরটিভিতে। সংক্ষেপে কাহিনী : ডাঃ আবু বকর সিদ্দিক। এম বি বি এস, এফ সি পি এস, এম ডি (সাইকিয়াট্রি)। একজন ভাল সাইকিয়াটিস্ট হিসেবে ইতিমধ্যেই বেশ সুনাম কুড়িয়েছেন তিনি। কűপণ, আত্মভোলা, পাগলাটে টাইপের এই লোকটির স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস । দামী প্রসাধনী, জুয়েলারী, শাড়ী, গয়না, কেনাকাটার খুব শখ। এই ক’দিন আগে জুয়েলারীর দোকানে একটা ডায়মন্ড নেকলেস দেখে এসে স্বামীর কাছে সেটির বায়না ধরেন তিনি। স্বামী ডাঃ আবু বকর সিদ্দিক তা দিতে অস্বীকার করায় জান্নাতুল ফেরদৌস স্বামীর সাথে গরম দেখিয়ে গাট্টি-বোচকা বেঁধে বাপের বাড়ী চলে যান তিনি। যাওয়ার আগে প্রতিজ্ঞা করে যান, যে- কűপণ স্বামীকে উপযুক্ত শিক্ষা না দিয়ে এবং ঐ ডায়মন্ড নেকলেস না নিয়ে তিনি এ বাসায় আর ফিরবেন না।

ডাঃ আবু বকর সিদ্দিক প্রথমে ভেবেছিলেন- বউ রাগ করে বাপের বাড়ী গেছে, ভালই হয়েছে, বাসাটা এখন সত্যিকারের জান্নাতুল ফেরদৌস হয়ে উঠবে। এটা দাও. ওটা দাও, এই নেই, সেই নেই থেকে মুক্তি পাওয়া গেছে। কিন্তু ১ সপ্তাহ হয়ে গেল তাঁর কোন খবর নেই। বউ ছাড়া একা একা ভালোলাগেনা তাঁর। এখন যদি ডাঃ আবু বকর সিদ্দিক আগ বাড়িয়ে তাঁকে আনতে যায় তাহলে দেড় লাখ টাকার হীরার হার কিনতে হবে। কী করা যায় ভাবতে ভাবতে বাসায় এসে উপস্থিত হয় তাঁর একমাত্র শ্যালক পিন্টু। পিন্টু জানায়- আপাকে বাসায় ফিরিয়ে আনার একটা উপায় আছে। আবু বকর সিদ্দিক জানতে চায়- কী উপায়? পিন্টু বলে, উপায়ের নাম- চুমকী। ব্যাপারটা কী?!

জানা যায়- চুমকী আবু বকর সিদ্দিকীর স্ত্রীর মামাতো বোনের সেজ খালার ছোট মেয়ে। বয়স ২৫ বছর। হোম ইকোনোমিক্স থেকে অনার্স শেষ করে বসুন্ধরা শপিং কমপ্লেক্সে একটা জুয়েলারীর দোকানে পার্ট টাইম সেল্স গার্লের চাকরী নেয় চুমকী। জুয়েলারীর নাম- আফ্রোদিতি। একদিন আফ্রোদিতি জুয়েলার্স থেকে হঠাৎ একটা দেড় লাখ টাকার হীরার হার মিসিং হয়। অনেক খোঁজাখুজির পর হারটা পাওয়া না গেলে সবাই চুমকীকেই সন্দেহ করে। দোকানের মালিক পুলিশকে ফোন করলে পুলিশ এসে চুমকীকে তুলে নিয়ে যায়। ইন্টারোগেশন করে। অবশেষে দুই দিন পরে লকারের এক কোণে সেই হারটা খুঁজে পাওয়া। পুলিশ চুমকীকে ছেড়ে দেয়। আফ্রোদিতি জুয়েলার্সের মালিক ব্যক্তিগত ভাবে চুমকীর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করে। তাঁকে ডাবল স্যালারি অফার করে আবার কাজে যোগ দিতে বলে। কিন্তু চুমকী রাজী হয়না, চাকরীটা ছেড়ে দেয় সে। চুমকীর জীবনে হঠাৎ আসা এই বিপদ কেটে গেলেও ট্রমা কাটেনা। ধীরে ধীরে অস্বুস্থ্য হয়ে পড়ে সে। এখন সে পুরোপুরি অস্বুস্থ্য। সারাদিন সেল্স গার্লের পোশাক পড়ে থাকে। যার সাথে দেখা হয় তাঁকেই হীরার নেকলেসের কথা বলে। দেড় লাখ টাকা চায়। পার্ট্স থেকে বের করে নেকলেসের রিসিট বের করে দেখায়। নিজেকে এখনো আফ্রোদিতি জুয়েলার্সের সেল্স গার্ল ভাবে সে।

পিন্টু জানায়- চুমকীকে যদি আপনি সারিয়ে তুলতে পারেন দুলাভাই, আমার শতভাগ বিশ^াস যে আপা খুশি হয়ে বাসায় ফিরে আসবে। কথা শুনে ডাঃ আবু বকর সিদ্দিক খুশী হয়ে যান। সারাদিনতো কত রোগীই দেখেন তিনি। চুমকীকে দেখে দিলে যদি দেড় লাখ টাকা বেঁচে যায় তাঁর, তবে তো সোনায় সোহাগা। গদগদ হয়ে চুমকীকে আনতে বলেন আবু বকর সিদ্দিক। পিন্টু বলে- আমি তাকে নিয়েই এসেছি। বাইরে দাঁড়িয়ে আছে। আবু বকর সিদ্দিক কিছু বলার আগেই পিন্টু চুমকীকে ভেতরে নিয়ে আসে এবং নিজে উধাও হয়ে যায়। চুমকী সালাম দেয়- স্লামুআলাইকুম স্যার। আমি আফ্রোদিতি জুয়েলার্স থেকে আসছি। ডাঃ আবু বকর সিদ্দিক চুমকীকে থামিয়ে দিয়ে মধুর স্বরে বলে- নিশ্চয়ই.. নিশ্চয়ই.. এসো এসো ভেতরে এসো, সিট ডাউন।

মেয়েটি থ্যাংকস বলে ভেতরে এসে বসে। আবু বকর সিদ্দিক তৎক্ষনাৎ তাঁর চিকিৎসা শুরু করে দেয়। মেয়েটি হীরার হারের রিসিট বের করে দেখায়। টাকা চায়। পরিবর্তে আবু বকর সিদ্দিক তাকে চায়ের অফার করে, পরিবারের গল্প শুনতে চায়। নিজের চেম্বারে গিয়ে নানান বইপত্র ঘাঁটে। ফিরে এসে আবার চুমকীর সাথে কথা বলে। এভাবে নাটকের ৪০ মিনিট পেরিয়ে গেলে চুমকীর ধৈর্য্যরে বাঁধ ভেঙ্গে যায়। সে ক্ষেপে যায়। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছায় যে ডাঃ আবু বকর সিদ্দিক তাকে কৌশলে বেঁধে ফেলতে বাধ্য হয়। ঘুমের ইনজেকশন প্রস্তুত করে চুমকীকে পুশ করতে আসে। ঠিক এই সময় আবু বকর সিদ্দিকীর ফোন আসে। ফোনে তাঁর স্ত্রী বলে- আরে মুখপুড়ো.. ঐ মেয়েটি জুয়েলারীর দোকান থেকেই এসেছে, ওকে হারের টাকাটা দিয়ে বিদায় কর।

আবু বকর সিদ্দিক বুঝতে পারে, তাঁর শ্যালক এবং তাঁর স্ত্রী দু’জন মিলে তাঁর সাথে চালাকী করেছে। চুমকীকে মুক্ত করে দিয়ে তাকে সরি বলেন তিনি। দেড় লাখ টাকা বুঝিয়ে দিয়ে চুমকীকে তাঁর সহকারী হিসেবে কাজ করার জন্য অফার করেন। স্ত্রীর বুদ্ধি ও ভালোবাসার কাছে হার মানেন ডাঃ আবু বকর সিদ্দিক। এম বি বি এস, এফ সি পি এস, এম ডি (সাইকিয়াট্রি)।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

cover3.jpg”><img src=”https://www.bssnews.net/wp-content/uploads/2020/01/Mujib-100-1.jpg”>

via Imgflip

 

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451