শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ১২:২৩ অপরাহ্ন

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে নাগরিক সমাজ ও সাংস্কৃতিক কর্মীদের সমর্থন

গাজী যুবায়ের আলম, ব্যুরো প্রধান, খুলনা ঃ
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৬২ বার পঠিত

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পাঁচদফা দাবি এবং এ আন্দোলনে অংশ নেয়ায় দুই শিক্ষার্থীর বহিস্কার প্রত্যাহারের দাবিতে আমরণ কর্মসূচির প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করেছেন খুলনার নাগরিক সমাজ ও সাংস্কৃতিক কর্মীরা।

আজ মঙ্গলবার ই-মেইল বার্তায় শিক্ষার্থীদের ন্যায্য দাবি মেনে নিতে বিশ্ববিদ্যাল প্রশাসনের প্রতি আহবান জানিয়েছেন তারা। বিবৃতিতে তারা বলেছেন, পাঁচদফা দাবিতে শিক্ষার্থীদের নৈতিক আন্দোলনের বিপক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কঠোরভাবে দাড়িয়েছে। যার পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষার্থী মোহাম্মদ নোমান ও ইমামুল ইসলাম সোহানকে যথাক্রমে এক ও দুই বছরের মেয়াদে বহিস্কার করা হয়।

এ বহিস্করাদেশের বিপক্ষে এবং পাঁচ দফা দাবির বাস্তবায়ন ও আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পক্ষে অবস্থান জানিয়ে অবিলম্বে বহিস্কৃত শিক্ষার্থীদের বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার করে শিক্ষার্থীদের স্বাভাবিক শিক্ষা জীবন ফিরিয়ে দেয়ার পক্ষে বিবৃতি দিয়ে স্বাক্ষর করেছেন তারা। বিবৃতিদাতারা হলেন নাগরিক ঐক্য খুলনা মহানগর শাখার আহবায়ক এ্যডভোকেট ড. জাকির হোসেন, শ্রমিক-কৃষক-ছাত্র-জনতা ঐক্যপরিষদ সমন্বয়ক রুহুল আমিন, কবিতালাপ’র মোজাম্মেল হক, রতনসেন লাইব্রেরি’র অশোক বিশ্বাস, কাকতাড়ুয়ার সম্পাদক সালেহ মহাম্মদ শহিদুল¬াহ, উদিচি দৌলতপুর শাখার সভাপতি মাহাবুবুর রহমান মোহন, সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ হোসেন মিটন, খুলনা রাইটার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শেখ হীরা, বাংলাদেশ প্রগতি লেখক সঙ্ঘ খুলনার সদস্য সচিব রোমেল রহমান, আবৃতিকার ও বেতার শিল্পী পল¬ব রায়, নারী নেত্রী রসু আক্তার, খুলনা ফ্লিম সোসাইটির সদস্য সচিব সাহেদ রহমান শুভ, চলচিত্র নির্মাতা মাহমুদ হাসান, চলচিত্র কর্মী রিয়াজুল হক ইমরান, সাদমান সাকিব ও ইকবাল হোসেন তাইম, মাতঙ্গীর সমন্বয়ক অপু বালা, নাট্যকর্মী সুজয় সাম্য, নুসরাত জাহান সুমনা, নুসরাত জাহান রুকাইয়া, হাবিবুর রহমান অন্তু, সৈয়দ তানভির, তানিম আমিন, জয়ন্ত কুমার গায়েন, রাকিবুল ইসলাম, লেখক আনিন্দ্য আরিফ ও সহুল আহমেদ মুন্না, কবি আঁখি সিদ্দিকা, মুক্তি কাউন্সিল খুলনা জেলার আহ্বায়ক হুমায়ন কবির, বাংলাদেশ লেখক শিবির খুলনা জেলার সাধারণ সম্পাদক বরকত আলী, শ্রমিক-কৃষক-ছাত্র-জনতা ঐক্যের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আলমগীর হোসেন, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট খুলনা জেলার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম, চারন সাংস্কৃতিক কেন্দ্র খুলনা জেলা সংগঠক সুপ্রভাত কবিরাজ, সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম খুলনা জেলার আহ্ববায়ক কোহিনুর আক্তার কনা, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট, খুলনা জেলার সভাপতি সনজিত মন্ডল, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন খুলনার আহ্ববায়ক আল-আমিন, গনতান্ত্রিক ছাত্র কাউন্সিলের সদস্য নিয়াজ মুর্শিদ দোলন। বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পাঁচ দফা নায্য দাবি সমুহ হল- আবাসন সংকটের সমাধান, বেতন ফিস কমানো, প্রাথমিক চিকিৎসা ও সাস্থ্য ব্যবস্থার উৎকর্ষ সাধন, অগ্রাধিকার ভিত্তিতে অবকাঠামো নির্মান করা, ছাত্র বিষয়ক যে কোন সিদ্ধান্ত গ্রহনে শিক্ষার্থীদের অন্তর্ভুক্তকরন এবং অবহিত করা। উক্ত দাবিসমূহ বাস্তবায়নে গতবছরের ১ ও ২ জানুয়ারি খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শত শত শিক্ষার্থী আন্দোলনে অংশগ্রহণ করে। কিন্তু আন্দোলনের দেড়মাস পরে ১৬ ফেব্র“য়ারি দু’জন অধ্যাপকের পথ আটকানোর এবং গুরুতর অসদাচারন করার অভিযোগে প্রশাসন মোহাম্মদ নোমান (বাংলা ডিসিপি¬ন) ও ইমামুল ইসলাম সোহানকে (ইতিহাস ও সভ্যতা ডিসিপি¬ন) পত্র প্রেরণ করে। ১৮ ফেব্র“য়ারি ছাত্রবিষয়ক পরিচালকের দপ্তরে উক্ত পত্রের জবাব দেয়ার জন্য উপস্থিত হয়ে শিক্ষার্থীদ্বয় তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের পূর্নাঙ্গ অনুলিপি চায়।

এরপর দীর্ঘদীন চলে গেলেও তাদের কোন অনুলিপি দেয়া হয়নি। কিন্তু গত ১৪ জানুয়ারি হটাৎ জানা যায় তাদের বিভিন্ন মেয়াদে (১ ও ২ বছর) বহিস্কার করেছে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কঠিন নিয়ন্ত্রণবাদী আচরনের মাধ্যমে ছাত্র এবং প্রতিবাদী শিক্ষকদের মতামত ও আন্দোলনে বল প্রয়োগ করে থাকে, যা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তবুদ্ধি চর্চার ক্ষেত্রে প্রধান অন্তরায়।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

cover3.jpg”><img src=”https://www.bssnews.net/wp-content/uploads/2020/01/Mujib-100-1.jpg”>

via Imgflip

 

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451