মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১, ১২:১৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
দেশের ইতিহাসে করোনায় সর্বোচ্চ মৃত্যু ১১২ জন বাগেরহাটের মোল্লাহাটে হেফাজত কর্মীদের হামলায় ওসিসহ ৭ পুলিশ সদস্য আহত দৈনিক জনতার সম্পাদকের স্ত্রী’র মৃত্যুতে ফুলবাড়ী থানা প্রেসক্লাবের শোক মুকসুদপুরে মঞ্জুরুল হক লাভলুর মাস্ক বিতরণ ডোমারে কৃষকলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত সর্বাত্মক লকডাউন বাস্তবায়নে কঠোর অবস্থানে আত্রাই থানা পুলিশ প্রতিদিন ৫০ পরিবার পাচ্ছে “পাশে আছি,পাশে থাকবো”সংগঠনের ইফতার কালিয়াকৈরে হেফাজত-পুলিশ সংঘর্ষ ককটেল বিস্ফোরণ-গুলি, আমীরসহ তিনজন গ্রেপ্তার লকডাউনে: হিলি স্থলবন্দরে অস্থির চালের বাজার, কেজিতে বেড়েছে ৩-৪ টাকা আত্রাইয়ে বোরো ধানে ব্লাস্ট রোগের আক্রমণ কৃষক দিশেহারা

আরটিভির নতুন ধারাবাহিক অফ দ্য রেকর্ড

বিনোদন ডেস্ক :
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২ মার্চ, ২০২১
  • ৫৪ বার পঠিত

রচনা ঃ শফিকুর রহমান শান্তনু, পরিচালনা ঃ সৈয়দ শাকিল, বেঙ্গল মিডিয়া কর্পোরেশন লিমিটেড আরটিভির নতুন ধারাবাহিক অফ দ্য রেকর্ড। আরটিভির নতুন ধারাবাহিক “অফ দ্য রেকর্ড”। আগামী শুক্রবার ৫মার্চ থেকে শুরু হচ্ছে এর প্রচার। প্রতি শুক্রবার থেকে সোমবার রাত ১০টায় দেখা যাবে ধারাবাহিকটি।

নাটকের শুরুতে দেখা যায়- তিনটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা দিয়ে নাটকের শুরু। কিন্তু ধীরে ধীরে দেখা যাবে, তিনটি ঘটনা কিছু পৃথক মানুষকে একই সূত্রে গেঁথে রেখেছে।

ঘটনা ১ : দেশের এক স্বনামধন্য মাইক্রোবায়োলজিস্ট খুন হন। পেপারে এই নিউজ দেখে তারই এক প্রিয় ছাত্রী নীপা। সাথে সাথে সে উদ্বিগ্ন হয়ে ওঠে। সে তার মাকে বলে, তার ইমেডিয়েট একটা অফিস ট্যুর পড়েছে থাইল্যান্ডে। কিন্তু সে তার এক বান্ধবী টিপকে নিয়ে রওনা হয়ে যায় নেপাল। টিপ বারবার জানতে চায়, এই লুকোচুরির কি কারন? নীপা এড়িয়ে যায়।

ঘটনা ২ : জেমস ইনভেষ্টিগেশন নামের একটি প্রতিষ্ঠান খুলেছে জেমস। এখানে সকল ধরনের সামাজিক, মানসিক, অর্থনৈতিক এমন কি রাজনৈতিক সমস্যার সমাধান করা হয়। তার কাছে আসে এক ধনীর ছেলে জিম।

(তার আসল নাম জিকরুল মহিউদ্দিন। সে সবাইকে শর্ট নেম বলে জিম) তার সমস্যা হচ্ছে, তার গার্লফ্রেন্ড তাকে ডাম্প করেছে। এই নিয়ে তার বন্ধুরা তাকে নিয়ে হাসাহাসি করে। দেবদাস বলে ক্ষেপায়। সে চায়, ঐ মেয়েটিকে যেকোন মূল্যে কষ্ট দিয়ে সবার সামনে হাসির পাত্র বানিয়ে প্রতিশোধ নিতে।

জেমস তাকে ভরসা দেয়, সমস্যার সমাধান করে দেবে। এজন্য তাকে ঐ মেয়ের মুখোমুখি হতে হবে। জিম জানায়, ঐ মেয়ে এখন আছে থাইল্যান্ডে। তারই এক বান্ধবীকে নিয়ে বেড়াতে গেছে। কিন্তু জেমস খবর নিয়ে জানতে পারে, সে আছে নেপাল। এই লুকোচুরি কেন তা তাদের মনে একটা প্রশ্নবোধক চিহ্ন হয়ে থাকে। তবে সেটা নিয়ে না ভেবে জেমস জিমকে নিয়ে রওনা হয় নেপাল।

ঘটনা ৩ : হাসান ও লীনার সংসার দেড় বছর। হাসান একটি প্রাইভেট ফার্মে জব করে। লীনা হাউজ ওয়াইফ। তাদের বনিবনার ভীষন অভাব। নাটকের শুরুতে দেখতে পাই লীনাকে স্ট্রেচারে করে অপারেশন থিয়েটারে নেয়া হচ্ছে। হাসান ও লীনার বাবা উদ্বিগ্ন। ডাক্তার রোগীকে বাঁচানোর জন্যে প্রানান্ত চেষ্টা করছে। হাসানের সাথে ঝগড়া করে লীনা সুইসাইডের চেষ্টা করেছিল।

সময়মত হাসান তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসে। ডাক্তার হাসানকে জানায়, আজকাল এ জাতীয় কেস প্রচুর আসে। মানুষের ধৈর্যক্ষমতা অস্বাভাবিক হারে কমে গেছে। আর সুইসাইডের রোগীদের একটা স্বাভাবিক প্রবনতা তারা একবার ব্যর্থ হলে বারবার চেষ্টা করে। এজন্য তাদের দরকার বাড়তি কেয়ার।

লীনা একটু সুস্থ হলে হাসান তাকে বাসায় নিয়ে আসে। সে লীনাকে একটা চমকপ্রদ প্রস্তাব দেয়। তারা একসাথে কোথাও গিয়ে ক’দিন থাকবে। এই ক’দিনে যদি তাদের কাছে মনে হয় সম্পর্কটা টিকতে পারে, তাহলে ভালো। আর যদি মনে না হয় তাহলে সেপারেট হওয়ার সুযোগ তো আছেই। লীনা হাসানের প্রস্তাবে রাজি হয়ে যায়। সে সূত্রে তারা ঢাকা থেকে চলে আসে নেপাল।

প্রথম দেখায় প্রেম বলে একটা কথা আছে। জিমের বান্ধবীকে প্রথম দেখে জেমসের তাই মনে হয়। মেয়েটি আর কেউ নয়। নীপা। পেশা মাইক্রোবায়োলজিস্ট। জেমস ঠিক করে, নীপার সাথে প্রেম করবে। একথা শুনে জিমের মাথায় হাত। জেমস তাকে বুঝিয়ে বলে, নীপাকে প্রেমে ফেলে যখন সে ছেড়ে দেবে তখন নীপা কষ্ট পাবে।

সবাই নীপাকে নিয়ে হাসবে। তার উদ্দেশ্য সফল হবে। এদিকে নীপার বান্ধবী টিপ জিমকে পছন্দ করে ফেলে। জিমের সাথে তার সম্পর্ক ঘনিষ্ঠ হতে থাকে। এই ঘনিষ্ঠতার সুযোগ নিয়ে একদিন জিম টিপকে নিয়ে এক ছেলেমানুষী খেলায় মেতে ওঠে। কিন্তু নিয়তির পরিহাসে সেই খেলা রূপ নেয় এক ভয়ংকর বাস্তবতায়। এখান থেকে শুরু হয় নাটকের আরেক টুইস্ট। টিপ এবার সত্যি সত্যি কিডন্যাপ হয়ে যায়। সবার সন্দেহের তীর গিয়ে পড়ে জিমের দিকে। কিন্তু জিম তখন দিশেহারা প্রেমিক। এদিকে নেপাল এসেছে দুই বন্ধু খায়ের ও চিতা, যারা জীবনের সব কাজে ব্যর্থ।

তারা ঠিক করেছে এখানে আত্মহত্যা করবে। কিন্তু আত্মহত্যা করার পূর্ব মুহূর্ত্তে টিপকে দেখে ফেলে তাদের মাথায় আসে নতুন প্ল্যান। তারা ঐ টিপকে কিডন্যাপ করে বড় অংকের টাকা দাবি করে বসে। একই রিসোর্টে উঠেছে হাসান ও লীনা জুটি। দুজনেই ডিভোর্স নেয়ার মানসিক প্রস্তুতি নিয়ে এসেছে। দেড় বছরের সংসার তাদের। কিন্তু কিছুতেই তারা মেলাতে পারছে না নিজেদের সাথে। কিন্তু এখানে এসে তারা নিতান্ত অনিচ্ছায় দুজনই দুজনের সাথে ভালো ব্যবহার করতে থাকে। এক সন্ধ্যায় তারা বসে হোটেলের বারান্দায় গল্প করছে, হঠাৎ কোথা থেকে যেন ভেসে আসে বেহালার মনোমুগ্ধকর সুর। দুজনই মুগ্ধ হয়।

বিশেষ করে লীনা পাগলের মতো ছটফট করতে থাকে এই সুর শুনে। লীনার অনুরোধে হাসান খুঁজতে বের হয় বেহালাবাদককে। কিন্তু কোথাও তাকে খুঁজে পাওয়া যায় না। দ্বিতীয় দিন সন্ধ্যায় একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি। হাসান বেহালাবাদককে হোটেলের এক পরিত্যক্ত জায়গা থেকে আবিস্কার করে বেহালাবাদক এক রহস্যমানবী। তার নাম সোফি। লীনা এই সোফিকে জীবনেও দেখে নাই।

কিন্তু তার বেহালার ধুন এত পরিচিত কেন লাগল লীনার? আর সেইবা কোথা পেল এই ইউনিক ধুন? লীনার জানামতে, কেবল একজনই জানত এই ধুন! এই রহস্যমানবী হাসানকে ভবিষ্যৎদ্বানী করে বলে, আর মাত্র ৭ দিন পরে হাসান মারা যাবে। চমকে ওঠে হাসান ও লীনা। তাহলে কি এই রহস্যমানবীকে হাসান চেনে? না! সে জীবনেও দেখে নি তাকে। কিভাবে করা হল এই ভবিষ্যদ্বানী? মজার ব্যাপার, হাসান দিনে দিনে কেমন অসুস্থ হয়ে পড়তে থাকে।

লীনাও তার স্বামীকে বাঁচাবার জন্য বদ্ধপরিকর। সোফি তাকে বাঁচানোর এক অদ্ভুত উপায় বলে। লীনা কি পারবে তার স্বামীকে বাঁচাতে নাকি উন্মোচিত হতে থাকবে এক পবিত্র প্রেমের অভিশপ্ত অধ্যায় যা লীনা, হাসান কেউই কখনো কল্পনাও করে নি।

এরা ছাড়াও ঐ রিসোর্টে ওঠে দুই যুবতী। গল্পের শুরু থেকেই এদেরকে রহস্যময় মনে হবে। ওয়েস্টার্ন ড্রেসে ঘুরে বেড়াচ্ছে। গোপনে নীপার রুমে ঢুকে সব তছনছ করে ফেলছে। কি যেন খোজে তারা! না পেয়ে নীপাকে পাকড়াও করতে চায়। কিন্তু জেমসের কারণে সুযোগ করতে পারে না। জেমস যেন ছায়ার মতো মিশে আছে নীপার সাথে।

ওরা একবার নীপাকে গুলি করতে চায়। একটুর জন্য বেঁচে যায় নীপা। এখানেও জেমসের কৃতিত্ব। ঐ মেয়ে দুজনকে ধরার জন্য ছোটে জেমস। কিন্তু তার আগেই তারা পালিয়ে যায়। এভাবে প্রতিবার নীপাকে জেমস বাঁচায় দেখে নীপাই অবাক হয়ে যায়। জেমস বলে, তাকে সব রকম বিপদ থেকে বাঁচানোটাই তার দায়িত্ব।

একাজ নিয়েই সে এখানে এসেছে। কে দিয়েছে তাকে এই কাজ? তাহলে কি জিমের সাথে আসা ছিল তার আই ওয়াশ? কোন গোপন মিশন নিয়ে এসেছে সে? নীপাকেই বা কেন মারতে চায় ঐ মেয়েরা? ঘটনাচক্রে মেয়ে দুটির সাথে পরিচয় হয় কিডন্যাপার খায়ের ও চিতা’র।

এবার তাদেরকে প্রেমের জালে ফাসিয়ে তারা নীপাকে ধরার নীল নকশা করে । কেচো খুড়তে বেরিয়ে আসে সাপ। এক ভয়ংকর ভাইরাস নাকি চুরি করে ঢাকা থেকে পালিয়েছে নীপা।

ঐ ভাইরাস টিউব চায় এই দুই যুবতী। কিন্তু নীপা তা এমন কারো হাতে তুলে দিতে চায় না যে পৃথিবীর জন্য হুমকি হয়ে দাড়াতে পারে! ঘটনাক্রমে হাসান গুম হয়ে যায়। সে মারা গেছে না কি হয়েছে, কেউ বলতে পারে না। সেই সন্দেহের তীর গিয়ে বিঁধে সোফির ওপরে। সোফি পালিয়ে বেড়ায়। কেস তদন্তে আসে গোয়েন্দা অফিসার রাজু। রাজুকে লীনা বলে, সোফিকে ফাসানো হয়েছে। সে ভয়ে পলাতক।

রাজু লীনাকে আশ্বস্ত করে, সোফি যদি নিরপরাধ হয় তাহলে তার কিছু হবে না। কিন্তু সোফির সাথে তার কথা বলা জরুরি। যে রিসোর্ট ঘিরে সমস্তÍ ঘটনা ঘটছে উত্তরাধিকারসূত্রে তার মালিক আরেক তরুন ব্যবসায়ী। নাম, নিঝুম। এই নিঝুমের সাথে গোয়েন্দা অফিসার রাজুর স্ত্রী পলির পরকীয়া সম্পর্ক চলছে। ব্যাপারটা রাজু জানলেও তার কিছু সীমাবদ্ধতার কারণে কিছু করতে পারছে না। রাজু চায়, এই গুমের কেসকে খুনের কেস সাজিয়ে নিঝুমকে ফাসিয়ে দিতে। তাতে তার স্ত্রীকেও শাস্তি দেয়া হবে।

আবার সোফিও অভিযোগ থেকে মুক্ত হবে। রাজু সোফির সাথে যোগাযোগ করে বলে, সে সাক্ষ্য দেবে, নিঝুমকে সে খুন করতে দেখেছে। কিন্তু নিঝুমের ভয়ে এতদিন পলাতক ছিল। সোফি আরেকজনকে ফাসিয়ে নিজে বাঁচবে কিনা এ নিয়ে বিবেকের দংশনে পড়ে যায়।

এদিকে কিডন্যাপার খায়ের ও চিতা নীপার ভাইরাস চুরি করার কন্ট্রাক্টের অগ্রিম টাকা পেয়ে দিশেহারা হয়ে যায়।

সদ্য ধনী চিতা খায়ের, নিঝুমের সাথে যৌথ উদ্যেগে একটা রিসোর্ট তৈরির পরিকল্পনা করে। রাজু যেভাবে নিঝুমকে ফাঁসিয়ে দেয়ার প্ল্যান করছে সেটা আঁচ করতে পেরে চিতা খায়ের নিঝুমকে সাহায্যের হাত বাড়ায়।

ঘটনার সাথে জড়িয়ে যায় নিঝুমের সদ্য জয়েন করা সুন্দরী পিএ একা। এভাবে এক রিসোর্টে বিচ্ছিন্ন কিছু চরিত্রের অবিচ্ছিন্ন সংযোগে একের পর এক ঘটনায় যেমন দ্বিধা দ্বন্দ্ব উত্তজনা বাড়তে থাকে তেমনি প্রতিটি চরিত্রের সম্পর্কের টানাপোড়েনে রহস্য, রোমাঞ্চ, উত্তেজনা, বিড়ম্বনা, পরিমিত হাস্যরস ও অপ্রত্যাশিত সত্যের চমক রোমান্টিক ও সাসপেন্স থ্রিলারের আবহে প্রকাশিত হতে থাকে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

cover3.jpg”><img src=”https://www.bssnews.net/wp-content/uploads/2020/01/Mujib-100-1.jpg”>

via Imgflip

 

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451