1. gnewsbd24@gmail.com : admi2019 :
বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:৫৯ অপরাহ্ন

পালিয়েও রক্ষা পায়নি, হাসপাতালে উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু!

আব্দুল্লাহ আল নোমান, আমতলী প্রতিনিধি ( বরগুনা) :
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৩ মে, ২০২০
  • ৩০ বার পঠিত

পালিয়েও রক্ষা পায়নি প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের ছোবল থেকে। বরিশাল শেবাচিম হাসপাতাল থেকে পালানোর দশ দিন পরে বরগুনার আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা ভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে আবদুল লতিফ খন্দকার (৭০) নামের এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে।

ঘটনা ঘটেছে শনিবার সকালে। করোনা ভাইরাসের মৃত্যুর খবরে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। ইউএনও মনিরা পারভীন মৃত্যু আবদুল লতিফ খন্দকারের এলাকার দশ বাড়ী লকডাউন করে দিয়েছেন। ওইদিন দুপুরে ইউএনও মনিরা পারভীনের নেতৃত্বে করোনা প্রটোকল মেনে তার লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

জানাগেছে, উপজেলার আমতলী সদর ইউনিয়নের চলাভাঙ্গা গ্রামের বৃদ্ধ আবদুল লতিফ খন্দকার বাড়ীতে জ্বর, শ্বাস কষ্টে ভুগছিলেন। গত ১৩ মে তিনি আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রাঙ্গণে সময় মেডিকেয়ার হসপিস ও ডায়াগনিষ্টিক সেন্টারে এবিএম তানজিরুল ইসলামের প্রাইভেট চেম্বারে দেখান। ওই চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরন করেন। ওইদিনই তিনি বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে যান।

ওই হাসপাতালের চিকিৎসকদের কাছে তার করোনা ভাইরাসের উপসর্গ ধরা পরে এবং চিকিৎসকরা তাকে করোনা ভাইরাস নমুনা পরিক্ষা করানো পরামর্শ দেন। করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষার কথা শুনেই তিনি ওই হাসপাতাল থেকে পালিয়ে আসেন। পরে গত মঙ্গলবার তার অবস্থা বেগতিক দেখে পরিবারের লোকজন তাকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন।

হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে করোনা ইউনিটের আইসোলেশন ভর্তি করেন। গত বৃহস্পতিবার ওই হাসপাতালের চিকিৎসকরা তার নমুনা সংগ্রহ করে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে পাঠায়। গত চারদিন তিনি আমতলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। নমুনা প্রতিবেদন আসার পূর্বেই শনিবার সকালে তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরন করেন। করোনা ভাইরাস উপসর্গ নিয়ে তার মৃত্যুর খবরে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পরেছে।

খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরা পারভীন তার এলাকার দশ বাড়ী লকডাউন করে দিয়েছেন এবং করোনা প্রটোকল মেনে জানাযা শেষে তার লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করেছেন।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা শংকর প্রসাদ অধিকারী বলেন, তার নমুনা সংগ্রহ করে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন আসলে বুঝা যাবে তিনি করোনা ভাইরাস পজেটিভ না নেগেটিভ ছিলেন।

আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরা পারভীন বলেন, মৃত্যু লতিফ খন্দকারের এলাকার দশ বাড়ী লকডাউন করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন করোনা প্রটোকল মেনে জানাযা শেষে তার লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451