বুধবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২১, ১০:৩৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

উলিপুরে পর্যাপ্ত অর্থ বরাদ্দ না থাকায় ঈদ বোনাস থেকে বঞ্চিত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১১৭ শিক্ষক

মোঃ সহিদুল আলম বাবুল, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি :
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২৪ মে, ২০২০
  • ৭৮ বার পঠিত

কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলায় প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ না থাকায় ঈদ বোনাস থেকে বঞ্চিত হলেন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১১৭ জন শিক্ষক। দেশে করোনা কালীন সময়ে ঈদের বোনাস থেকে বঞ্চিত শিক্ষকদের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

জানা গেছে, উলিপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস যথারীতি উপজেলার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত ১ হাজার ৫ শত ১০ জন শিক্ষকের জন্য মাসিক বেতন ও ঈদ বোনাস এর বিল প্রস্তুত করে যথারীতি উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার কার্যালয়ে দাখিল করেন। এরপর সোনালী ব্যাংক লিমিটেড উলিপুর শাখার অনুকুলে বেতন-ভাতা গ্রহনকারী শিক্ষকরা যথারীতি বেতন ও ঈদ বোনাস উত্তোলন করেন। কিন্তু জনতা ব্যাংক লিমিটেড দূর্গাপুর শাখার মাধ্যমে বেতন-ভাতা উত্তোলনকারী উপজেলার ১১৭ জন শিক্ষক নিজেদের বেতন উত্তোলন করতে পারলেও ঈদ বোনাস উত্তোলন করতে পারেননি। অত্র উপজেলায় নতুন করে ৬০ জন শিক্ষক যোগদান করায় বাজেট ঘাটতির ফলে এ জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে।

ভুক্তভোগী শিক্ষকদের অভিযোগ, উপজেলা শিক্ষা অফিসের উচ্চমান অফিস সহায়ক রুহুল আমিন, যোগদানকরা নতুন ৬০ জন শিক্ষকের ঈদ বোনাস খাতে বাজেট বরাদ্দ না থাকার পরও তাদের নামে বোনাস বিল দাখিল করায় ১১৭ জন শিক্ষক এ ঈদ বোনাস বঞ্চিত হয়েছেন। উৎসব ভাতা বাবদ সরকারিভাবে ৪ কোটি ৪১ লাখ ৯ হাজার ৪ শত টাকা বরাদ্দ থাকলেও উপজেলা হিসাব রক্ষণ অফিস থেকে এ খাতে ৪ কোটি ৫৩ লাখ ৭ হাজার ৪ শত ৮০ টাকার বিল প্রদান করেন।

এতে প্রায় ১১ লাখ ৮ হাজার ৮০ টাকা অতিরিক্ত বিল প্রদান করা হয়েছে। উপজেলা হিসাব রক্ষণ অফিস সূত্রে জানা গেছে, সার্ভারে এ খাতে অতিরিক্ত কোন অর্থ বরাদ্দ না থাকায় ১১৭ জন শিক্ষক ঈদ বোনাস থেকে বঞ্চিত হয়েছেন।ঈদ বোনাস থেকে বঞ্চিত উপজেলার বকশিগঞ্জ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আমিনুল ইসলাম বলেন, দীর্ঘদিন ধরে চাকুরী করছি, কোন দিন এমন ঘটনা ঘটেনি।

উপজেলা শিক্ষা অফিসের উচ্চমান অফিস সহায়ক রুহুল আমিন জানান, উপজেলার কর্মরত সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতন ও ঈদ বোনাস বিল প্রস্তুত করে যথারীতি হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তার কার্যালয়ে প্রেরণ করা হয়েছে। নতুন ৬০ জন শিক্ষকের বোনাস বরাদ্দ কম আসায় এমন জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে। উপজেলা হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান এ প্রসঙ্গে বলেন, এ খাতে বরাদ্দ না থাকায় বাকি শিক্ষকদের ঈদ বোনাসের বিল ছাড় করা সম্ভব হয়নি।উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোজাম্মেল হক শাহ্ বলেন, ইতোমধ্যে চাহিদাপত্র পাঠানো হয়েছে ! শীঘ্রই বাজেট আসলে শিক্ষকরা ঈদ বোনাস পাবেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

cover3.jpg”><img src=”https://www.bssnews.net/wp-content/uploads/2020/01/Mujib-100-1.jpg”>

via Imgflip

 

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451