1. gnewsbd24@gmail.com : admi2019 :
শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:০৫ অপরাহ্ন

আত্রাইয়ে দুই বছরেও মেলেনি বিদুৎ : হতাশায় ২৬ পরিবার

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই প্রতিনিধি (নওগাঁ) :
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৮ জুন, ২০২০
  • ৩৭ বার পঠিত

নওগাঁর আত্রাইয়ে ২৬ টি পরিবার দীর্ঘ দুই বছর ধরে বিদ্যুৎ সংযোগ থেকে বঞ্চিত রয়েছে। দুই বছর আগে বিদ্যুৎ সংযোগের নামে এসব পরিবারের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা গ্রহন করা হলেও অদ্যাবধি তারা অন্ধকারেই রয়েছে, তাদের ঘরে জ¦লেনি বিদ্যুতের আলো। খুঁটি গেরে তার টানানো, ট্রান্সফরমা স্থাপন ও ড্রপতার টাঙানো হলেও তারা শুধু প্রহর গুনছে মিটার প্রাপ্তির।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, আত্রাই উপজেলার জামগ্রামের নতুন করে গড়ে উঠা দু’টি পাড়া রয়েছে। একটিতে ১৫ ঘর অপরটিতে ১১ ঘর লোকের বাস। সমগ্র গ্রাম বিদ্যুতায়িত হলেও এ দু’টি পাড়ায় ওই সময় বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হয়নি। পরবর্তীতে স্থানীয় ইউপি সদস্য হানিফ পালোয়ান তাদেরকে জানান বিদ্যুৎ সংযোগ নিতে গেলে আপনাদের মিটার প্রতি ৪ হাজার টাকা দিতে হবে। সে অনুযায়ী তারা ৪ হাজার টাকা করে প্রায় লক্ষাধিক টাকা ইউপি সদস্যকে দেন। টাকা দেবার পর খুঁটি গেরে তার টানানো, ট্রান্সফরমা স্থাপন ও ড্রপতার টাঙানো হলেও এক বছরের বেশি সময় ধরে মিটার দিয়ে সংযোগ প্রদান করা হচ্ছে না। ফলে তারা হতাশায় পড়ে রয়েছেন। এদিকে টাকা নিয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ না দেয়ায় একই গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম গত বছরের ২৭ জুন উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিটক একটি লিখিত অভিযোগ করেন।

ওই গ্রামের বেদারুল ইসলাম, লেবু শেখ, শহিদুল ইসলাম ও গোলাম মোস্তফা বলেন, আমরা দু’টি পাড়ার ২৬ টি পরিবার বিদ্যুতের আশায় ইউপি সদস্য হানিফ পালোয়ানকে ৪ হাজার টাকা করে প্রদান করেছি। টাকা দেয়ার পর বিদুতের আনুসাঙ্গিক কাজ করা হলেও এক বছরের বেশি সময় ধরে আমাদেরকে মিটার দেয়া হচ্ছে না। ফলে আমরা চরম দুর্ভোগের মধ্যে রয়েছি।

এ বিষয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমি এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বরাবর লিখিত অভিযোগ দাখিল করেও কোন প্রতিকার পাইনি।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য হানিফ পালোয়ান বলেন, তাদের টাকা দিয়ে নওগাঁ থেকে বিদ্যুতের পোল ও অন্যান্য মালামাল পরিবহন করা হয়েছে। এখন মিটারের জন্য আরও ৬০০ টাকা করে লাগবে। এটা না দেয়ার কারনে এবং করোনা পরিস্থিতির কারনে সংযোগ বিলম্বিত হচ্ছে।

এ বিষয়ে নওগাঁ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি আত্রাই জোনাল অফিসের এজিএম ফিরোজ জামান বলেন, পোল ও অন্যান্য মালামাল পরিবহনের সমুদয় ব্যয়ভার বহন করবেন ঠিকাদার। গ্রাহকের টাকা দিয়ে মালামাল বহন করতে হয় না। নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ নেবার জন্য মিটার বাবদ ৪৫০ টাকা অফিসকে দিতে হয়। এ ছাড়া আবেদন ফি ও ঘর ওয়েলিংসহ সর্বোচ্চ ২ হাজার ৭০০ টাকার উপর খরচ হয় না। জামগ্রামে এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে এটা আমাকে কেউ জানায়নি। বিষয়টি আমি জানতে পারলাম তারা যোগাযোগ করলে আমি অবশ্যই ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451