ঢাকা ০৬:১৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ০২ এপ্রিল ২০২৩, ১৯ চৈত্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ফটোসাংবাদিক কাজলের জামিন হয়নি

শেরে বাংলানগর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় যশোর সীমান্ত থেকে গ্রেপ্তার ফটোসাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজলের জামিন আবেদন নাকচ করেছেন আদালত।

আজ বুধবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ধীমান চন্দ্র মণ্ডল এই আদেশ দেন। সাংবাদিক কাজলের আইনজীবী রিপন কুমার বড়ুয়া গণমাধ্যমকে এই তথ্য জানিয়েছেন।

নথি থেকে জানা যায়, গত ৯ মার্চ রাজধানী শেরে বাংলানগর থানায় কাজলসহ ৩২ জনের বিরুদ্ধে মাগুরা-১ আসনের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান শেখর ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে এই মামলা করেন। এরপর ১০ ও ১১ মার্চ রাজধানী হাজারীবাগ ও কামরাঙ্গীরচর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আরো দুটি মামলা হয়। তবে এই দুটি মামলায় এখনো কাজলকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়নি।

গত ১৩ মার্চ জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে শফিকুল ইসলাম কাজলকে সুস্থ অবস্থায় ফেরত দেওয়ার দাবি জানায় তাঁর পরিবার। পরে ১৮ মার্চ রাতে কাজলকে অপহরণ করা হয়েছে অভিযোগ এনে চকবাজার থানায় মামলা করেন তাঁর ছেলে মনোরম পলক।

ঢাকা থেকে নিখোঁজের ৫৩ দিন পর গত ২ মে রাতে যশোরের বেনাপোলের ভারতীয় সীমান্ত সাদিপুর থেকে অনুপ্রবেশের দায়ে ফটোসাংবাদিক ও দৈনিক পক্ষকালের সম্পাদক শফিকুল ইসলাম কাজলকে আটক করে বিজিবি।

পররে দিন ৩ মে অনুপ্রবেশের দায়ে বিজিবির দায়ের করা মামলায় আদালতে সাংবাদিক কাজলের জামিন মঞ্জুর হলেও পরবর্তী সময়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় ফৌজদারি কার্যবিধির ৫৪ ধারায় অপর একটি মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

ট্যাগস :

আপনার মন্তব্য

আপলোডকারীর তথ্য

ফটোসাংবাদিক কাজলের জামিন হয়নি

আপডেট সময় : ০৯:০৬:৪১ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুন ২০২০

শেরে বাংলানগর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় যশোর সীমান্ত থেকে গ্রেপ্তার ফটোসাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজলের জামিন আবেদন নাকচ করেছেন আদালত।

আজ বুধবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ধীমান চন্দ্র মণ্ডল এই আদেশ দেন। সাংবাদিক কাজলের আইনজীবী রিপন কুমার বড়ুয়া গণমাধ্যমকে এই তথ্য জানিয়েছেন।

নথি থেকে জানা যায়, গত ৯ মার্চ রাজধানী শেরে বাংলানগর থানায় কাজলসহ ৩২ জনের বিরুদ্ধে মাগুরা-১ আসনের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান শেখর ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে এই মামলা করেন। এরপর ১০ ও ১১ মার্চ রাজধানী হাজারীবাগ ও কামরাঙ্গীরচর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আরো দুটি মামলা হয়। তবে এই দুটি মামলায় এখনো কাজলকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়নি।

গত ১৩ মার্চ জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে শফিকুল ইসলাম কাজলকে সুস্থ অবস্থায় ফেরত দেওয়ার দাবি জানায় তাঁর পরিবার। পরে ১৮ মার্চ রাতে কাজলকে অপহরণ করা হয়েছে অভিযোগ এনে চকবাজার থানায় মামলা করেন তাঁর ছেলে মনোরম পলক।

ঢাকা থেকে নিখোঁজের ৫৩ দিন পর গত ২ মে রাতে যশোরের বেনাপোলের ভারতীয় সীমান্ত সাদিপুর থেকে অনুপ্রবেশের দায়ে ফটোসাংবাদিক ও দৈনিক পক্ষকালের সম্পাদক শফিকুল ইসলাম কাজলকে আটক করে বিজিবি।

পররে দিন ৩ মে অনুপ্রবেশের দায়ে বিজিবির দায়ের করা মামলায় আদালতে সাংবাদিক কাজলের জামিন মঞ্জুর হলেও পরবর্তী সময়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় ফৌজদারি কার্যবিধির ৫৪ ধারায় অপর একটি মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।