বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ০৪:৫৭ পূর্বাহ্ন

Surfe.be - Banner advertising service

কোলস্টোনের মূর্তি ভেঙ্গে পানিতে কেন ?

জি-নিউজবিডি২৪ ডেস্ক :
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৯ জুন, ২০২০

যুক্তরাষ্ট্রে কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েড হত্যার বিক্ষোভের ঢেউ লেগেছে ব্রিটেনেও। গতকাল রবিবার বিক্ষোভের সময়ে দেশটির ব্রিস্টলে দাস ব্যবসায়ী অ্যাডওয়ার্ড কোলস্টনের মূর্তি ভেঙে পানিতে ফেলে দিয়েছে বিক্ষোভকারীরা।

আফ্রিকার বিভিন্ন দেশ থেকে নারী ও শিশুসহ ৮০ হাজার মানুষকে ব্রিটেনে এনে কৃতদাস হিসেবে বিক্রি করতো কোলস্টোন। এই ক্ষোভে কোলস্টোনের মূর্তি ভেঙ্গে পানিতে ভাসিয়ে দেওয়া হয়।

১৮৯৫ সাল থেকে অ্যাডওয়ার্ড কোলস্টোনের মূর্তিটি ব্রিস্টল শহরে দাঁড়িয়েছিল। মূর্তি ভাঙার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এ মূর্তিটি ভাঙার জন্য একটি পিটিশনে ১১ হাজার মানুষ স্বাক্ষর করেছে বলে সংবাদ প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কোলস্টন এভিনিউতে থাকা দাস ব্যবসায়ী এডওয়ার্ড কোলস্টনের মূর্তিটি দড়ি দিয়ে পেঁচিয়ে ভেঙে ফেলেছে বিক্ষোভকারীরা। মূর্তিটিকে পা দিয়ে ঠেলে পানিতে ফেলে দেওয়া হয়েছে। এ সময় শত শত বিক্ষোভকারী আনন্দ উল্লাস করেছে।

কোলস্টনের মূর্তি ভাঙায় অনেকে সন্তুষ্ট প্রকাশ করেছেন। তবে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনসহ দেশটির শীর্ষস্থানীয় কিছু ব্যক্তি এ ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন।

যুক্তরাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব প্রীতি প্যাটেল বলেন, ‘যেভাবে এই মূর্তিটি নামানো হয়েছে তা অপমানজনক’। সমরসেট ও অ্যাভনের পুলিশ প্রধান অ্যান্ডি বেনেত্তি জানিয়েছেন, কোলস্টনের মূর্তি ভাঙার বিষয়ে তদন্ত করার জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

গত ২৫ মে যুক্তরাষ্ট্রের মিনিয়াপলিসে ৪৬ বছর বয়সী জর্জ ফ্লয়েডের ঘাড়ে হাঁটু দিয়ে চেপে ধরে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন শ্বেতাঙ্গ পুলিশ কর্মকর্তা ডেরেক চাওভিন। এক প্রত্যক্ষদর্শীর তোলা ১০ মিনিটের ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, জর্জ ফ্লয়েড নিশ্বাস না নিতে পেরে কাতরাচ্ছেন এবং বার বার শ্বেতাঙ্গ পুলিশ কর্মকর্তাকে বলছেন, ‘আমি নিশ্বাস নিতে পারছি না।

এরপরই বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে যুক্তরাষ্ট্র। সেই বিক্ষোভের আগুন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ে। তারই ধারাবাহিকতায় যুক্তরাজ্যের লন্ডন, ব্রিস্টল, নটিংহ্যাম ও ম্যানচেস্টারসহ বড় বড় শহরগুলোতে বিক্ষোভ হয়েছে।

উল্লেখ্য, ওই ঘটনায় চার পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। বিক্ষোভ দমনে প্রায় ২২টি অঙ্গরাজ্যের ৪০ শহরে কারফিউ জারি করা হয়েছে। এ ঘটনায় হোয়াইট হাউসের সামনেও বিক্ষোভ হয়েছে।

Surfe.be - Banner advertising service

https://www.facebook.com/gnewsbd24

Leave a Reply

More News Of This Category
© All rights reserved © 2011 Live Media
কারিগরি সহযোগিতায়: মোঃ শাহরিয়ার হোসাইন
freelancerzone