মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ০২:৩৩ অপরাহ্ন

Surfe.be - Banner advertising service

পায়রাবন্দরে ভূমিঅধিগ্রহনে ১২৫ ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে বঞ্চিত করার নীল-নকশা হচ্ছে

রাসেল কবির মুরাদ, কলাপাড়া প্রতিনিধি (পটুয়াখালী) ঃ
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৯ জুন, ২০২০

কলাপাড়ায় তৃতীয় গভীর সমুদ্র বন্দরের কোল টার্মিনাল নির্মাণের জন্য নির্ধারিত ভুমি অধিগ্রহণে ১২৫ ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে নামের তালিকা থেকে বাদ দেয়ার ষড়যন্ত্র চলছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত রবিবার ক্ষতিগ্রস্থ ভূক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষের কাছে বেনামী আবেদনের কার্যক্রম বন্ধ সাপেক্ষে ভূমিঅধিগ্রহণে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের নামের তালিকায় তাদের ১২৫ পরিবারের নাম বহাল রেখে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার হিসাবে সরকারি সকল ধরনের সুযোগ-সুবিধা পাওয়ার জন্য লিখিত আবেদন করেন। বেনামী একটি আবেদনের কারন দেখিয়ে ক্ষতিগ্রস্থ তালিকা থেকে তাদের নাম বাতিল করার চেষ্টা চলছে বলে তারা যায়।

অভিযোগকারীদের সূত্র থেকে জানা যায়, পায়রা সমুন্দ্রবন্দর কর্তৃপক্ষ তাদের বন্দরের কোল টারর্মিনাল নির্মানের জন্য নিশানবাড়িয়া মৌজায় ভূমি অধিগ্রহন করেন। পায়রাবন্দর কর্তৃপক্ষ ও জেলা প্রশাসকের যৌথটিম এলাকায় তদন্ত করে ১২৫ পরিবারের বাড়িঘর, গাছ, পুকুর ও ঘেড় ক্ষতিপূরণের আওতাভূক্ত করেন। কমিটিতে সকল ধরনের তদন্ত সাপেক্ষে অভিযোগকারীরা ৪ ও ৭ ধারায় ভূমি অধিগ্রহনে ক্ষতিগ্রস্থরা ড্রাইভিং ও অন্যান্য ট্রেনিং সহ সরকারের সকল ধরনের সুযোগ-সুবিধাও ভোগ করেছেন।

কলাপাড়া ফরেষ্ট অফিস ১২৫ পরিবারের গাছের তদন্ত শেষ করে পটুয়াখালী এল,এ শাখায় প্রতিবেদন প্রেরন করেছেন। এমনকি গনপূর্ত অফিস, পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) এর প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে যৌথ তদন্তের ফিডবহি হাতে পেয়ে তারা ৮ ধারা নোটিশের অপেক্ষায় ছিল। এ অবস্থায় হঠাৎ কিছুদিন আগে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ও পায়রা কর্তৃপক্ষের অফিসের এল.এ শাখার কানুনগোসহ যৌথ একটি টিম আবারো নিশানবাড়ীয়া মৌজার ঘরবাড়ী তদন্তের জন্য হাজির হয়। এলাকাবাসী পুর:তদন্তের কারন জানতে চাইলে তদন্তকারী কর্মকর্তারা জানায়, স্থানীয় মো. কুদ্দুস তালুকদারের পুত্র মো. রাসেল তালুকদার নামের একজন ব্যক্তি পটুয়াখালী এল,এ অফিসে পুন:তদন্তের আবেদন করেছেন।

ভুক্তভোগীরা জানায়, উক্ত ব্যক্তি নিজে কোন অভিযোগ দাখিল করেননি ও আবেদনের বিষয়ে কিছুই জানেনা বলে জানান এবং রাসেল তালুকদার তার নাম ব্যবহার করে বেনামী আবেদনের কার্যক্রম বন্ধের জন্য পটুয়াখালী এল.এ অফিসসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে আবেদন করেন। উল্øেখ্য, উক্ত বেনামী আবেদনের সাথে রাসেল তালুকদারের ছবি ও আইডি কার্ডের কোনো কপিও সংযুক্ত ছিলনা। কোন একটি কুচক্রি মহল অবৈধ ফয়দা নেয়ার জন্য হীন কাজ করতে পারে বলে অভিযোগকারীরা জানান।

কুচক্রিমহলের এই অবৈধ উদ্দেশ্য ও অসহায় অভিযোগকারী ১২৫ ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার যাতে সুষ্ঠ সমাধান এবং তাদের নাম ভূমি অধিগ্রহণে ক্ষতিগ্রস্থদের তালিকায় অন্তভূক্ত থাকতে পারে এজন্য বেনামী আবেদনের কার্যক্রম বন্ধ করে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ার জন্য কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেন। এবিষয়ে পায়রা সমুদ্র বন্দরের চেয়ারম্যান কমডোর হুমায়ুন কবির কল্লোল’র মোবাইলে একাধিকবার ফোন করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

Surfe.be - Banner advertising service

https://www.facebook.com/gnewsbd24

Leave a Reply

More News Of This Category
© All rights reserved © 2011 Live Media
কারিগরি সহযোগিতায়: মোঃ শাহরিয়ার হোসাইন
freelancerzone