শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:০১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
প্রতিবন্ধি আজিজুল ইসলাম মুন্সি হুইল চেয়ারে বসে নামাজ আদায় করতে চায় দৌলতপুর ট্রাক উল্টিয়ে জামান মেডিক্যাল বিদ্ধস্ত ২০ লক্ষ্যধিক টাকার ক্ষতি কলাপাড়ায় বাংলাদেশ স্কাউটস শাপলা কাব এওয়ার্ড-২০২০ চূড়ান্ত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত বাগেরহাটে নির্বাচন পরবর্তী সংঘর্ষে আহত ২০ পত্নীতলায় ইমারত নির্মাণ শ্রমিক ইউনিয়ন আমবাটী শাখার উদ্বোধন দৌলতখানে ওসির সহযোগিতায় জাহাজ থেকে কালোবাজারী চলছেই তানোরে ভেজাল কীটনাশকে পুড়েছে আট বিঘা জমির ধান বাগেরহাটে ইউপি চেয়ারম্যানকে হত্যা মামলায় ফাসানোর চেষ্টার অভিযোগ বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতা দেশকে এগিয়ে নিতে সাহায্য করে – খাদ্যমন্ত্রী কলাপাড়ায় বাউবি’র বিএ, বিএসএস ১ম দিনের পরীক্ষায় ৯৬জন পরিক্ষার্থী অংশগ্রহন করলো

কুড়িগ্রামে বান ভাসী মানুষের দুর্ভোগ চরমে

মোঃ সহিদুল আলম বাবুল, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি :
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২৮ জুন, ২০২০
  • ১৩৮ বার পঠিত

কুড়িগ্রামে নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির চরম অবনতি হয়েছে। ব্রহ্মপুত্রের পানি চিলমারী পয়েন্টে বিপদসীমার ৭২ সেন্টিমিটার, নুনখাওয়া পয়েন্টে ৬০ সেন্টিমিটার ও ধরলার পানি সেতু পয়েন্টে বিপদসীমার ৭১ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তিস্তার পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ১৫ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বেড়েছে ছোট-বড় শাখা নদী গুলোর পানিও। ফলে চিলমারী, উলিপুর, কুড়িগ্রাম সদর, রৌমারী, রাজিবপুর ও নাগেশ্বরীসহ জেলার ৮টি উপজেলায় নদ-নদী তীরবর্তী নিম্নাঞ্চলসহ নদীবেষ্টিত অসংখ্য চর ও দ্বীপ চর জলমগ্ন হয়ে পড়েছে । এসব চর ও নিম্নাঞ্চলের প্রায় লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

এসব এলাকার রাস্তা-ঘাট তলিয়ে থাকায় ভেঙ্গে পড়েছে যোগাযোগ ব্যবস্থা। তলিয়ে গেছে বন্যা কবলিত এলাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও। এ অবস্থায় নিচু এলাকার মানুষজন ঘর-বাড়ি ছেড়ে উঁচু জায়গায় আশ্রয় নিতে শুরু করেছে। ইতোমধ্যে পানিবন্দি মানুষের মাঝে শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ পানির তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। পয়োনিষ্কাশন ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে !

সদর উপজেলার যাত্রাপুর ইউনিয়নের ভগবতীপুর চরের বাসিন্দা জামান জানান, চরের সবগুলো বাড়িতে পানি ঢুকে পড়েছে। আমি আমার পরিবারের লোকজন নিয়ে পানিবন্দি অবস্থায় খুব কষ্টে আছি । রাস্তা-ঘাট সব তলিয়ে গেছে। কোথাও যাওয়ার উপায় নাই।

বানের পানিতে ডুবে গেছে ৩ হাজার ৬ শ ২২ হেক্টর জমির আমন বীজতলা, আউশ, শাক সবজি, পাটসহ অন্যান্য ফসল।

সদরের পাঁচগাছী ইউনিয়নের কৃষক মজিদ মিয়া জানান, দুই বিঘা জমিতে পটল, বেগুন ও ঝিংগা লাগিয়েছিলাম তা গত ৩ দিনে সম্পুর্ণরুপে বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে। বন্যার পরে আমি কি করে বাঁচবো সে চিন্তায় এখন ঘুম আসেনা।

কুড়িগ্রাম কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ড. মো: মোস্তাফিজুর রহমান প্রধান জানান, নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় জেলার বিভিন্ন উপজেলায় নতুন নতুন এলাকার বীজতলাসহ ফসল পানিতে নিমজ্জিত হচ্ছে। এতে করে ক্ষয়ক্ষতির পরিমান আরো বৃদ্ধি পাবে।

কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো: আরিফুল ইসলাম জানান, আগামী দুই থেকে তিন দিনের মধ্যে ধরলা ও তিস্তার পানি কমে গেলেও ব্রহ্মপুত্রের পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকবে।

কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক মো: রেজাউল করিম জানান, বন্যা কবলিতদের জন্য জেলার সবকটি উপজেলায় ৩০২ মেট্রিক টন চাল এবং শুকনো খাবার বিতরনের জন্য ৩৬ লাখ ৬৮ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

Surfe.be - Banner advertising service




নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

<a href=”https://surfe.be/ext/446180″ target=”_blank”><img src=”https://static.surfe.be/images/banners/en/240x400_1.gif” alt=”Surfe.be – Banner advertising service”></a>

via Imgflip

Surfe.be - Banner advertising service

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451