বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২, ১০:১৬ অপরাহ্ন

Surfe.be - Banner advertising service

খুলনার ১৪০ নির্ধারিত স্থানে পশু জবাইয়ের প্রস্তুতি

গাজী যুবায়ের আলম, ব্যুরো প্রধান, খুলনা ঃ
  • Update Time : রবিবার, ১৯ জুলাই, ২০২০

করোনা ভাইরাস সংক্রমণকে মাথায় রেখে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের (কেসিসি) উদ্যোগে এবার নগরীর ৩১টি ওয়ার্ডে ১৪০টি নির্ধারিত স্থানে কোরবানীর পশু জবাই করার জন্য প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। এসব স্থানে ৩০ হাজার পশু জবাই করা সক্ষমতার টার্গেট নিয়ে কাজ শুরু করা হয়েছে।
পবিত্র ইদুল আযহা উপলক্ষে ধর্মপ্রাণ মুসলিমরা পশু কোরবানী করে থাকেন।

এবার নির্ধারিত স্থানগুলোতে পশু জবাইকারী কোরবাণীদাতাকে কেসিসি’র পক্ষ থেকে ৩টি সুবিধা দেয়া হবে। পুরো বিষয়টি কেসিসির ভেটেরিনারি দপ্তর সমন্বয় করবে। কেসিসির সিনিয়র ভেটেরিনারি সার্জন ডাঃ রেজাউল করিম জানান, সচেতনতার অভাবে কোরবানীর সময় যেখানে সেখানে পশু জবাই করে নগরীর পরিবেশ দুষণ করে।

যা ঈদের নির্মল আনন্দ বাধাগ্রস্ত হয়। এ বিষয়টি রোধ করতে সরকার দেশব্যাপী নির্ধারিত স্থানে কোরবানীর পশু জবাই করার জন্য উদ্যোগ নেয় গত ২০১৫ সালে। কিন্তু জনসচেতনতার অভাবে গত কয়েক বছর এ উদ্যোগ সফলতার মুখ দেখেনি। তবে সফলতার ধারাবাহিকতার বাড়ছে। তিনি জানান, এবার ঈদের দিন নগরীতে ১৫ হাজার পশু জবাইয়ের সম্ভাব্না রয়েছে।

তিনি বলেন, গত বছর ৪৫ ভাগ পশু নির্ধারিত স্থানে জবাই হয়েছে। ৩০ ভাগ হয়েছে কোরবানী দাতাদের নিজ বাড়িতে আর ২৫ ভাগ হয়েছে যত্রতত্র।

তিনি বলেন, ঈদের আগে এ ব্যাপারে ব্যাপক প্রচারণা হওয়ায় যারা বাড়িতে বা যত্রতত্র পশু জবাই দিয়েছে তারা বর্জ্য তাৎক্ষণিক নিজ উদ্যোগে অপসারণের ব্যবস্থা নিয়েছে। গত বছর নগরীতে জবাই হয়েছে মাত্র ১০ হাজার পশু। করোনা ভাইরাসের কারণে এবার কত পশু জবাই হবে তা এখনও বলা যাচ্ছে না। তিনি আরও জানান, এবার কেসিসি থেকে তেমন কোন সুবিধা দেয়া হবে না।

শুধু তিনটি সুবিধা দেয়া হবে। তা হলো স্থান নির্ধারণ, পানির ব্যবস্থা ও ময়লা অপসারণ। বিগত দিনে কোরবাণীদাতাদের নির্ধারিত স্থানে পশু জবাই করার জন্য অনেক সুবিধা দেয়া হতো। এবার তা হচ্ছে না। নগরীতে ২৪০টি নির্ধারিত স্থান হচ্ছে, ১নং ওয়ার্ডে জাতীয় তরুন সংঘ মাঠ, দীঘির পশ্চিম পাড়, মহেশ্বরপাশা, কালিবাড়ী দিঘির পাড়, মহেশ্বরপাশা মতির বাগানবাড়ী, পশ্চিম পাড়া, মহেশ্বরপাশা সরকারী প্রাথমিক বালিকা বিদ্যালয় , পুলিশফাড়ি রোড, মহেশ্বরপাশা শহীদ জিয়া মহাবিদ্যালয় মাঠ ও মহেশ্বরপাশা উত্তর বনিকপাড়া, খানা বাড়ী।

২নং ওয়ার্ডে কেডিএ আবাসিক জামে মসজিদের সামনে, এ্যাযাক্স জুট মিলস ফুটবল খেলার মাঠ, মীরের ডাঙ্গা তেতুল তলা মাঠ, সেনপাড়া জহির উদ্দিন গন বিদ্যাপিঠ স্কুল মাঠ ও মহেশ্বরপাশা রেলীগেট কৃষ্ণমোহন স্কুল মাঠ। ৩নং ওয়ার্ডে মহেশ্বরপাশা কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দান (সাড়াডাঙ্গা মাঠ), কার্ত্তিককুল ঈদগাহ ময়দান, মধ্যডাঙ্গা স্কুল মাঠ ও মহেশ্বরপাশা আদর্শ সরকারী প্রাথঃ বিদ্যালয় মাঠ (মাঠের বাড়ী স্কুল)। ৪নং ওয়ার্ডে দেয়ানা দক্ষিণ পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গন, দৌলতপুর কলেজিয়েট স্কুল মাঠ প্রাঙ্গন, দেয়ানা উত্তরপাড়া স্কুল মাঠ প্রাঙ্গন ও দেয়ানা মোল্যা পাড়া স্কুল মাঠ প্রাঙ্গন।

৫নং ওয়ার্ডে আঞ্জুমান ঈদগাহ ময়দান, কেডিএ কল্পতরু চত্বও, দত্তবাড়ী ইসহাকিয়া মাদ্রাসা ময়দান, তিন দোকানের মোড় খানজাহান আলী মাদ্রাসা ময়দান ও বীনাপানি সরকারী প্রাঃ বিদ্যালয় সংলগ্ন মাঠ। ৬নং ওয়ার্ডে পাবলা সবুজ সংঘ মাঠ প্রাঙ্গন, শেরেবাংলা স্কুল মাঠ প্রাঙ্গন, কারিকর পাড়া স্কুল মাঠ প্রাঙ্গন ও মধ্যপাড়া দাসের ভিটা। ৭নং ওয়ার্ডে কাশিপুর ফুটবল মাঠের উত্তর পার্শ্বে, মোল্লা বাড়ীর সামনে, শহীদ কমিশনারের বাড়ীর সামনে ও হাজী বাড়ীর মোড়। ৮নং ওয়ার্ডে খানজাহার আলী মাদ্রাসা ক্রিসেন্ট গেট, ক্রিসেন্ট জামে মসজিদ মাঠ, ক্রিসেন্ট আলিম মাদ্রাসার মাঠ ও গোয়ালপাড়া কমিউনিটি সেন্টার।

৯নং ওয়ার্ডে গোয়ালখালী ক্যাডেট স্কীম মাদ্রাসার সম্মুখে, মুজগুন্নী নেছারিয়া মাদ্রাসার সম্মুখে, মুজগুন্নী উত্তরপাড়া ঈদগাহ মাঠ ও বাস্তুহারা কলোনী ঈদগাহ মঠি। ১০নং ওয়ার্ডে দারুল মোকাররম মাদ্রাসা মাঠ, চিত্রালী সুপার মার্কেট সংলগ্ন, খাদেমুল ইসলাম মাদ্রাসা, স্কাউট মাঠ, বঙ্গবাসী স্কুল রোড, স্কুলগেট সংলগ্ন ও ওয়ার্ড অফিস সংলগ্ন, নয়াবাটি। ১১নং ওয়ার্ডে খালিশপুর নিউ মার্কেট সংলগ্ন কসাইখানা, প্লাটিনাম শ্রমিক ক্লাব প্রাঙ্গন, তৈয়্যেবা কলোনী মাদ্রাসা সংলগ্ন ও পিপলস পাঁচতলা বয়স্ক মাদ্রাসা প্রাঙ্গন। ১২নং ওয়ার্ডে আরাবিয়া মসজিদ চত্ত্বর, স্যাটেলাইট স্কুল চত্বর, হাউজিং তিন তলা, শ্রমিক ভবন চত্বর, ও বায়তুল কেরাম মসজিদ চত্ত্বর।

১৩নং ওয়ার্ডে চরের হাট ঈদগাহের পার্শ্বে, কাজী ইমতিয়াজ উদ্দিন সাহেবের বাড়ীর সামনে, দত্তপাড়া, ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর অফিসের সামনে, আলমনগর নূরানীয়া জামে মসজিদের পার্শ্বে ও ২ নং নেভী গেট। ১৪নং ওয়ার্ডে মুজগুন্নি মহাসড়ক, রোড নং-৮ এর মাথায়, বয়রা মধ্যপাড়া জামে মসজিদের সামনে, কাজী আঃ বারী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠ ও রায়ের মহল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন মাঠ। ১৫নং ওয়ার্ডে হালদার পাড়া (কাউন্সিলর সাহেবের বাড়ীর সামনে), পালপাড়া রোলিং মিল মসজিদ মাদ্রাসার মাঠ, ১নং- নেভী গেট, ভ্যাল্যের বিল রোড ও পলিটেকনিক কলেজের ভিতরের মাঠ।

১৬নং ওয়ার্ডে জোড়াগেট সি.এন্ড.বি কলোনী মসজিদ চত্ত্বর, বয়রা ফারুকিয়া মাদ্রাসা চত্ত্বর, বয়রা হাজী মুনসুর স্কুল চত্ত্বর, নূর নগর ইসলাম মিশন মাদ্রাসা চত্বর ও বয়রা মেইন রোড টেক্সটাইল মিল জামে মসজিদ চত্বর। ১৭নং ওয়ার্ডে ছোট বয়রা সবুজ সংঘের মাঠ, সোনাডাঙ্গা আ/এ ১ম ফেজ বায়তুল মোকারম মসজিদের সামনের মাঠ, সোনাডাঙ্গা আ/এ ২য় ফেজ মসজিদের মাঠ, সোনাডাঙ্গা আ/এ ৩য় ফেজ মসজিদের সামনে মাঠ ও সোনাডাঙ্গা আমানত জামে মসজিদের মাঠ।

১৮নং ওয়ার্ডে তালিমুল মিল্লাত খালাসী মাদ্রাসা প্রাঙ্গন, সবুজবাগ জামে মসজিদ প্রাঙ্গন,মসজিদে ওমর (রাঃ) ঈদগা মাঠ ও গল্লামারী কসাইখানা। ১৯নং ওয়ার্ডে নজরুল নগর স্কুল মাঠ প্রাঙ্গন, কেডিএ ফুজি কালার মোড়, ইসলামাবাদ সরকারী প্রাঃ বিদ্যালয় সংলগ্ন মাঠ, ডালমিল মোড় সংলগ্ন ন্যাশনাল স্কুল মাঠ, গোবরচাকা শিশু একাডেমীর মাঠ, কেডিএ এভিনিউ তেতুলতলা মোড় চত্বর ও পল্লীমঙ্গল স্কুল মাঠ। ২০নং ওয়ার্ডে বাগানবাড়ী জামে মসজিদ চত্বর, শেখপাড়া মেইন রোড চত্বর তেতুল তলার মোড়, ফারাজিপাড়া মেইন রোড, দ্বীনওয়ালি জামে মসজিদ চত্বর, শেরে বাংলা রোড পাওয়ার হাউজ জামে মসজিদ এর সামনে ও ২০ নং ওয়ার্ড অফিস চত্বর।

২১নং ওয়ার্ডে হেলাতলা রোড স্বর্ণপট্্ির চত্ত্বর, রেলওয়ে স্টেশন, বিশ্ব ইসলাম মিশন দাখিল মাদ্রাসা প্রাঙ্গন, ৪ নং ফুড ঘাট চত্ত্বর, রেলওয়ে হাসপাতাল রোড, বায়তুন নাজাত মাদ্রাসা চত্ত্বর ও স্যার ইকবাল রোড, এ. হোসেন প্লাজার সামনে। ২২নং ওয়ার্ডে “করোনেশন বিদ্যা নিকেতন” গগন বাবু রোড, ১ নং কাষ্টম ঘাট, খুলনা জিলা স্কুল, হাজী আবু হানিফ মাদ্রাসা ওয়াপদা রোড, নতুন বাজার ও খান এ সবুর রোড মহিলা মাদ্রাসা। ২৩নং ওয়ার্ডে গ্লোক মনি শিশু পার্ক, “ল” কলেজ মসজিদ প্রাঙ্গন ও পুরাতন জোহরা খাতুন শিশু বিদ্যালয়, শামসুর রহমান রোড, খুলনা।

২৪নং ওয়ার্ডে দারুল উলুম মাদ্রাসা প্রাঙ্গন, মুসলমান পাড়া, ২৪নং ওয়ার্ড অফিস প্রাঙ্গন ও অগ্রনী ব্যাংক টাউন মসজিদ প্রাঙ্গন, গল্লামারী। ২৫নং ওয়ার্ডে বসুপাড়া কবরস্থান সংলগ্ন মসজিদ প্রাঙ্গন, ২৫নং ওয়ার্ড সংলগ্ন খোলা জায়গা, সিদ্দিকীয়া মাদ্রসা মাঠ, হক সাহেবের রাইচ মিল চাতাল, ইসলাম কমিশনার মোড়ের পাশের মাঠ ও খোরশেদ নগর প্রবেশ মুখ চত্ত্বর।

২৬নং ওয়ার্ডে পশ্চিমবানিয়াখামার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন খোলা চত্ত্বর, কাশেমাবাদ জামে মসজিদ খোলা চত্ত্বর, বসুপাড়া বাঁশতলা বরকতিয়া মাদ্রাসা সংলগ্ন খোলা চত্ত্বর ও ২৬নং ওয়ার্ড অফিস চত্বর। ২৭নং ওয়ার্ডে মারকাজুল উলুম মাদ্রাসা সংলগ্ন মাঠ, বাইতুন নজাত মাদ্রাসা, বি.কে মেইন রোড ও মিস্ত্রীপাড়া পৌর-বাজার। ২৮নং ওয়ার্ডে পশ্চিম টুটুপাড়া প্রাইমারী স্কুল রোড, এ.এন দাশ লেন (বিনোদনী হাসপাতাল রোড), মসজিদ ভিশন কমপ্লেক্স ঈদগাহ মাঠ, দক্ষিন টুটুপাড়া বালুর মাঠ ও দক্ষিন টুটুপাড়া ঈদগাহ মাঠ (শরিফাবাদ মসজিদের সামনে)।

২৯নং ওয়ার্ডে খুলনা আলিয়া মাদ্রাসা প্রাঙ্গন, কয়লাঘাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গন ও সবুরননেছা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় প্রাঙ্গন। ৩০নং ওয়ার্ডে চানমারী আহম্মাদীয়া এতিমখানা মাদ্রাসা চত্বর, দক্ষিন টুটপাড়া বায়তুল আমান জামে মসজিদ চত্বর, শেখ মকবুল আহম্মেদ জামে মসজিদ এর পাশে ও টুটপাড়া আমতলা হাসপাতাল চত্বর।

৩১নং ওয়ার্ডে লবনচরা ইসলামপাড়া ছোট বান্দা, দুই কালভার্টের পার্শ্ব ফাকা জায়গায়, লবনচরা মোক্তার হোসেন সড়কের মধ্যখানে স্কুল ও মাদ্রাসার চত্বরে, মোজাহিদপাড়া আলআমিন জামে মসজিদের সম্মুখে জানাযা চত্বরে, লবনচরা বান্দা বাজার সংলগ্ন ৩১নং ওয়ার্ড অফিস সংলগ্ন খোলা চত্বর ও জিন্নাহপাড়া শিশুমেলা স্কুল মাঠে।

Surfe.be - Banner advertising service

https://www.facebook.com/gnewsbd24

Leave a Reply

More News Of This Category
© All rights reserved © 2011 Live Media
কারিগরি সহযোগিতায়: মোঃ শাহরিয়ার হোসাইন
freelancerzone