সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ০৩:০৩ অপরাহ্ন

Surfe.be - Banner advertising service

মান্দায় তক্ষক কেনাবেচা চক্রের ৬ সদস্য আটক

এম এম হারুন আল রশীদ হীরা, মান্দা প্রতিনিধি (নওগাঁ) :
  • Update Time : রবিবার, ২৬ জুলাই, ২০২০

নওগাঁর মান্দায় তক্ষক বেচাকেনা চক্রের ৬ সদস্যকে আটক করেছে থানা পুলিশ। শনিবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার মৈনম ইউনিয়নের মোংলাপাড়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। এ সময় নাটোর জেলার সিংড়া উপজেলা থেকে আগত চার ব্যক্তিকেও হেফাজতে নেয় পুলিশ।

আটককৃতরা হলেন, মান্দার মৈনম ইউনিয়নের মোংলাপাড়া গ্রামের আবদুর রশিদের ছেলে আবদুস সালাম সরদার (৫৫), কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার কুচুটি গ্রামের ইয়াছিন মিয়ার ছেলে এরশাদুল্লাহ (৪৮), নাটোর জেলার সিংড়া উপজেলার শেরকৈ গ্রামের আবুল কালামের ছেলে ছানোয়ার হোসেন (৩৫),গোড়াতনপাড়া গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে হাসান ইমাম (৩২), রানীনগর গ্রামের ইব্রাহীম আলীর ছেলে সবুজ (৩০) এবং ইটানী গ্রামের সুজন কুমার (৩০)।

পুলিশের দাবি, নাটোরের সিংড়া উপজেলার চার ব্যক্তি কোরবানির গরু কিনতে এসে প্রতারনার শিকার হয়েছেন। তাদের অভিযোগের ভিত্তিতে প্রতারক চক্রের দুই সদস্যকে আটক করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, মান্দা উপজেলার মোংলাপাড়া গ্রামের প্রতারক চক্রের গডফাদার এনামুল হক, আটককৃত আবদুস সালাম ও কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলা এরশাদুল্লাহ একটি তক্ষক বিক্রির কথা বলে সিংড়ার হাসান ইমাম, ছানোয়ার, সুজন ও সবুজকে ডেকে আনেন। তাদের নিকট থেকে ৫০ হাজার টাকাও নেয়া হয়। কিন্তু তক্ষক না দিয়ে টালবাহানা শুরু করলে আগতরা পুলিশের স্মরণাপন্ন হন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে আবদুস সালাম ও এরশাদুল্লাহকে আটকসহ আগত সিংড়া উপজেলার চার ব্যক্তিকে হেফাজতে নেয় পুলিশ।

আটককৃত আবদুস সালাম বলেন, ঘটনার দিন আমার বাসায় মোংলাপাড়া গ্রামের এনামুল হক, কুমিল্লার এরশাদুল্লাহসহ নওগাঁর আত্রাই উপজেলার বাবলু, রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার আবদুর রশিদ ও রাঙ্গামাটি জেলার সোহেল রানা উপস্থিত ছিলেন। তারা কি কারণে সিংড়া উপজেলার চার ব্যক্তিকে ডেকে নিয়েছেন এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। রাত ৮টার দিকে পুলিশ আমার বাড়িতে হানা দেয়। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে এনামুল, বাবলু ও রশিদ পালিয়ে যায়।’

পুলিশি হেফাজতে থাকা সিংড়ার হাসান ইমাম জানান, ‘সহযোগী সবুজ রাজশাহীর সিটি হাটে গরু কিনতে এসে আবদুস সালামের সাথে পরিচয় হয়। উন্নত ও ভাল জাতের গরুর প্রলোভন দেখিয়ে আবদুস সালাম তার বাসায় সবুজকে নিয়ে যান। বায়না হিসেবে সবুজের নিকট থেকে ৫০ হাজার টাকাও অগ্রিম নেয়া হয়। কিন্তু গরু না দিয়ে টালবাহানা করতে থাকলে আমাকে সংবাদ দেন সবুজ। পরে আমি ছানোয়ারকে সাথে নিয়ে একটি মাইক্রোবাসে আবদুস সালামের বাড়িতে আসি। পরে পুলিশ আমাদের সেখান থেকে উদ্ধার করেন।

মান্দা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তারেকুর রহমান সরকার জানান, ‘সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে অভিযান চালিয়ে প্রতারক চক্রের দুই সদস্য আবদুস সালাম ও এরশাদুল্লাহকে আটকসহ আগতদের হেফাজতে নেয়া হয়। ঘটনায় সিংড়ার সবুজ বাদি হয়ে থানায় প্রতারনার একটি মামলা দায়ের করেছেন। তবে তারা তক্ষক (গেকোনিডি গোত্রের গিরগিটি প্রজাতি) বেচাকেনা চক্রের সদস্য কি-না তদন্ত সাপেক্ষে জানা যাবে।

Surfe.be - Banner advertising service

https://www.facebook.com/gnewsbd24

Leave a Reply

More News Of This Category
© All rights reserved © 2011 Live Media
কারিগরি সহযোগিতায়: মোঃ শাহরিয়ার হোসাইন
freelancerzone