সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ০১:২২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :

যুবলীগ কর্মী হত্যার প্রতিবাদে বান্দরবানে আ’লীগ ও সহযোগি সংগঠনের বিক্ষোভ

বান্দরবান প্রতিনিধি :
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১৭৭ বার পঠিত

বান্দরবানে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের গুলি করে যুবলীগ কর্মীকে হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছে জেলা আওয়ামীলীগসহ সহযোগি সংগঠনগুলো।

আজ বুধবার ০২ সেপ্টেম্বর দুপুর ১২টার সময় এই বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

পরে বঙ্গবন্ধু মুক্তমঞ্চে জেলা যুবলীগের আহবায়ক কেলুমং মারমার সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।এতে জেলা আওয়ামীলীগ সহসভাপতি আব্দুর রহিম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মো: ইসলাম বেবি, যুগ্ন সম্পাদক লক্ষীপদ দাস, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সাদেক হোসেন চৌধুরীসহ আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগসহ সহযোগি সংগঠনের নেতারা প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন।

সভায় নেতারা হত্যাকান্ডে সাথে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস)কে দায় করেন। নেতারা আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে হত্যাকান্ডে সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে অনুরোধ জানান।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৮টার দিকে বান্দরবান সদর উপজেলার রাজবিলা ইউনিয়নের বাঘমারা চিংক্যউ কার্বারী পাড়ায় সন্ত্রাসীরা বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে যুবলীগ কর্মী মংচিংউ মারমাকে গুলি করে এতে তিনি ঘটনাস্থলে মারা যায়।

পরে পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থল গিয়ে প্রাথমিক তদন্ত শেষে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাতেই সদর হাসপাতালে মর্গে প্রেরণ করেছে। এঘটনা পর উক্ত এলাকায় সেনাবাহিনী ও পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। পাড়ার লোকজন আতংকে ঘরে আবদ্ধ হয়ে রয়েছে এবং অনেকে ভয়ে নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নিয়েছে।

আজ বুধবার সকালে পুলিশ জানিয়েছে ময়নাতদন্ত শেষ হলে বিকালে নিহতের লাশ পরিবারের সদস্যদের হাতে হস্তান্তর করা হবে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, নিহত মংচিংউ মারমা মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাঘমারা বাজার থেকে কাজ শেষ করে বাসায় ফিরে অবস্থান করছিল। হঠাৎ একদল সশস্ত্র য্বুক তার বাসা ঘেরাও করে এবং দুইজন অস্ত্রধারী বাড়ির ভেতর প্রবেশ করে য্বুলীগ কর্মী মংচিংউ মারমাকে ডেকে কিছু দূর নিয়ে গিয়ে পাড়ার মাঝখানে উচমং মাস্টারের ফটকে পৌছালে তাকে গুলি করে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। এতে সে ঘটনাস্থলে মারা যায়।

নিহত মংচিংউ মার্মা দীর্ঘ দিন ধরে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) এর রাজনীতির সাথে জড়িত ছিল। সাম্প্রতিক সময়ে সে জেএসএস ছেড়ে যুবলীগে যোগদান করেন। যুবলীগে যোগ দেয়ায় জেএসএস সন্ত্রাসীরা এই হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে বলে স্থানীয়দের ধারণা।

ঘটনার পর পর ঘটনাস্থল ছুটে যান বান্দরবান জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মোঃ ইসলাম বেবী। এসময় তিনি নিহতের পরিবারবর্গদের শান্ত দেন এবং শোক প্রকাশ করেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ শহিদুল ইসলাম জানান, পাহাড়ী দুই সন্ত্রাসী তাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গুলি করে হত্যা করেন। পুলিশ তদন্ত করছে পাহাড়ী ঐদুই সন্ত্রাসীরা কারা এবং কোন দলের। তদন্ত শেষে উক্ত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উল্লোখ্য, গত ৭জুলাই একই এলাকায় সন্ত্রাসীরা ব্রাস ফায়ার করে জেএসএস সংস্কারপন্থী গ্রুপের বান্দরবান জেলা সভাপতিসহ ৬জনকে হত্যা করে।

Surfe.be - Banner advertising service




নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

<a href=”https://surfe.be/ext/446180″ target=”_blank”><img src=”https://static.surfe.be/images/banners/en/240x400_1.gif” alt=”Surfe.be – Banner advertising service”></a>

via Imgflip

Surfe.be - Banner advertising service

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451