বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৯:১২ অপরাহ্ন

১৪টি ‘গ্রামীনফোন সেন্টার’ বন্ধ ঘোষনা, কর্মী ছাঁটাই এর আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত

জি-নিউজবিডি২৪ ডেস্ক :
  • Update Time : শনিবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

১৪টি ‘গ্রামীনফোন সেন্টার’ বন্ধ ঘোষনা করে দক্ষ কর্মী ছাঁটাই এর আত্মঘাতী সিদ্ধান্তের কারনে হুমকির মুখে পড়তে যাচ্ছে নেটওয়ার্ক ও ৭৬ মিলিয়ন কাস্টমারের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ভান্ডার।

গ্রামীণফোনের নাম্বার ওয়ান নেটওয়ার্ক ও গ্রাহক সেবা এখন তৃতীয় পক্ষ ভেন্ডরদের মাধ্যমে কম টাকায় অল্প শিক্ষিত, অদক্ষ,অনভিজ্ঞ ও অনির্ভরশীল জনবল দ্বারা পরিচালনা, ব্যাবস্থাপনা ও রক্ষনাবেক্ষন করা হচ্ছে। এমনকি সুইস বা গুরুত্বপূর্ণ নেটওয়ার্ক স্থাপনা এবং নিজস্ব তত্তাবধানে পরিচালিত গ্রাহক সেবাও তৃতীয় পক্ষ ভেন্ডরদের মাধ্যমে পরিচালনা করায় দেশের টেলিকম নেটওয়ার্কের নিরাপত্তা ও কাস্টমারের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ভান্ডারকে হুমকির মধ্যে ফেলে দেওয়া হচ্ছে। যা জাতীয় জননিরাপত্তার জন্যও মারাত্মক হুমকি স্বরূপ।

সরকার তথা বিটিআরসির অডিট আপত্তির পাওনা দাবি পরিশোধ ও গ্রামীণফোনকে এসএমপি ঘোষণার ফলে টেলিনর তথা মালিকপক্ষের আর্থিক ও অধিক থেকে অধিকতর মুনাফা লাভের যে, ক্ষতি সাধিত হয়েছে তা পূরনের উদ্দেশ্যে গ্রামীণফোন কর্তৃপক্ষ এমন আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে বলে শোনা যাচ্ছে।

বিশ্বজুড়ে চলমান করোনা মহামারির সুযোগকে পৌষ মাস হিসেবে কাজে লাগিয়ে গ্রামীণফোন কর্তৃপক্ষের এসব কর্মকা- কর্মসংস্থান ও অর্থনীতির উপর এর বিরূপ প্রভাব এবং দেশের জননিরাপত্তা, সুশাসন ও জাতীয় নিরাপত্তার উপর নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে বলে গ্রামীণফোনে শ্রমিকদের রেজিষ্টার্ড ট্রেড ইউনিয়ন “গ্রামীণফোন এমপ্লয়ীজ ইউনিয়ন” তা মনে করে।

শুধু তাই নয়, এই মহামারি পরিস্হিতিতে গ্রাহকেসেবা যখন সবচেয়ে বেশী জরুরী তখনই গ্রামীনফোন দেশজুড়ে তার নিজস্ব তত্তাবধানে পরিচালিত ১৪টি ‘গ্রামীনফোন সেন্টার’ বন্ধ ঘোষণা করে । যার ফলে গ্রাহকদের ব্যাপক ভোগান্তিতে পড়তে হয়। উল্লেখ্য, ইতিপূর্বেও গ্রামীনফোন আরও অধিক মুনাফার লোভে কল সেন্টারকে (১২১) কে তৃতীয় পক্ষ ভেন্ডরের মাধ্যমে পরিচালনা করায় বর্তমানে হটলাইনে গ্রাহকেরা মান সম্মত সেবা আর পাচ্ছেন না।
সাম্প্রতিক সময়ে গ্রামীনফোনের নেটওয়ার্কের মান আর আগের মতো নেই বলে অনেক পত্র পত্রিকায় খবর এসেছে। যার প্রমান নেটওয়ার্কের মান জরিপকারি প্রতিষ্ঠান “ওকলা”র সাম্প্রতিক জরিপে গ্রামীনফোন শক্তিশালী নেটওয়ার্ক হিসেবে তার পূর্বের অবস্থান হারিয়েছে।

এতোদসংক্রান্ত বিষয়ে ইতিমধ্যে গ্রামীণফোন এমপ্লয়ীজ ইউনিয়ন (জিপিইইউ) সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিটিআরসি’র বরাবর আবেদন করেছে, গ্রামীণফোন কর্তৃপক্ষ কে সঠিক ও আইনসম্মত নির্দেশনা দেওয়ার জন্য। একইসাথে তারা টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়, শ্রম প্রতিমন্ত্রিসহ অন্যান্য সংশ্লিষ্ট নিয়ন্ত্রক ও কর্তৃপক্ষ এমনকি প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন যাতে কর্মসংস্থান, গ্রাহক ও নেটওয়ার্ক পরিসেবা এবং সম্ভাব্য জনসাধারণ ও জাতীয় স্বার্থ সুরক্ষিত ও সমুন্নত থাকে।

গ্রামীনফোন এম্প্লয়ীজ ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক মিয়া মাসুদ এই প্রসঙ্গে বলেন, “গ্রামীনফোনকে বাংলাদেশের এক ন¤॥^র মোবাইল অপারেটর হিসেবে গড়ে তোলার ক্ষেত্রে যেই অভিজ্ঞ কর্মীরা সবচেয়ে বড় ভূমিকা রেখেছে, গ্রামীণফোন কর্তৃপক্ষ তাদেরকে কর্মহীন করে চাকরি থেকে ছাঁটাই করার হঠকারি ও আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে বলে শোনা যাচ্ছে। আমরা এই সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই এবং অনতিবিল¤ে॥^ কর্মহীন সকল কর্মীদের স্বপদে পুনর্বহালের আবেদন জানাচ্ছি। গ্রামীণফোন এমপ্লয়ীজ ইউনিয়ন শ্রম আইন লংঘন করে বেআইনি ও অবৈধভাবে কাউকে চাকরিচ্যুত করা কোনভাবেই মেনে নিবে না।

মিয়া মাসুদ আরও বলেন,গ্রামীণফোন এমপ্লয়ীজ ইউনিয়ন একটি রেজিষ্টার্ড ট্রেড ইউনিয়ন হিসেবে তার সকল শ্রমিকদের আইনসংগত অধিকার ও গ্রাহকদের সর্বোত্তম সেবা চালু রাখার লক্ষ্যে কোম্পানির যেকোনো অবৈধ, অনৈতিক ও অযৌক্তিক সিদ্ধান্ত কখনোই মেনে নিবেনা।

 

Surfe.be - Banner advertising service

https://www.facebook.com/gnewsbd24

Leave a Reply

More News Of This Category
<script async src="https://pagead2.googlesyndication.com/pagead/js/adsbygoogle.js?client=ca-pub-3423136311593782"
     crossorigin="anonymous"></script>
© All rights reserved © 2011 Live Media
কারিগরি সহযোগিতায়: মোঃ শাহরিয়ার হোসাইন
freelancerzone