শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:২৬ পূর্বাহ্ন

‘মহলা মগন’ উৎসবে: ‘হান্ড্রেড বাই হান্ডেড

বিনোদন ডেস্ক :
  • Update Time : বুধবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রাচ্যনাট আয়োজন করচ্ছে ‘মহলা মগন’ উঠান নাটকের মেলা ২০২০। ‘অবসাদ বিরুদ্ধ স্রোত’ স্লোগান নিয়ে মাসব্যাপী এই আয়োজন অনুষ্ঠিত হচ্ছে কাঁটাবনের প্রাচ্যনাটের নিজস্ব মহড়া কক্ষে। আগামী শুক্রবার সন্ধ্যায় মঞ্চায়িত হবে ‘হান্ড্রেড বাই হান্ডেড’। নাটকটি রচনা এবং নির্দেশনা দিয়েছেন সাইফুল জার্নাল।

কাহিনী সংক্ষেপ- ঃ সাজু একটি পোষাক তৈরীর কারখানায় কাজ করে।একটি অচেনা ভাইরাসের ভয়ে সারা দেশ যখন বন্ধ হয়ে যায়, থমকে যায় ,শহর হয়ে যায় গ্রাম মুখী বেকার সাজুও সেই সুতার টানে ফিরে যায় নিজগ্রামে।একটু স্বস্তির নিঃশ্বাস নেয় ঘরে ফিরে,সময় কাটায় নতুন বৌয়ের সাথে।

কিন্তু আতংক কাটেনা।এক অচেনা শত্রুর ভয়ে সবাই থেমে যায়, বাতাসে ভেসে বেড়ানো শত্রুর সাথে যুদ্ধ কারার তরিকা কারো জানা নাই। সব কিছু বন্ধ হয়ে যায়- বারবনিতার ঘর থেকে ধর্মশালা পর্যন্ত। ঘর থেকে বের হয়না কেউ,হয়তো জমদুত দাড়িয়ে আছে দরজার বাইরে।

এর মধ্যে সাজুর সুতায় টান পড়ে,শহরে কারখানায় হঠাৎই সাইরেন বেজে উঠে। রাস্ট্রযন্ত্রের সাথেদর কষাকষির পাল্লার বাটখারা হয়ে যায় সাজুরা। ওজন বাড়াতে সাজুদের মিছিল ছুটে আসে সাইরেন দিতে থাকা সুতার কারখানার দিকে। মাইলের পর মাইল পাড়ি দেয় নিজের পায়ের সামর্থের উপর ভরসা করে। তাদের আসতেই হয় তাদের পালন কর্তাদের আদেশে, কারণ তারাই যে “সাজুদের পালেন”।

সাজুদের মিছিল চলতে থাকে ততক্ষন- যতক্ষন তাদের দম থাকে। এরমধ্যে কোন এক সাজুর দম ফুরিয়ে যায়,তাতে পালন কর্তাদের পাল্লার বাটখারার ওজনে টান পড়েনা বরং তাদের চুড়ান্ত হিসাবের খাতায় লাভের পরিমানটাই বাড়ে, মানুষ তখন লাভের একক, সুতাকাটা সাজুরা লাভের একক।

নির্দেশকের কথা ঃ আমি একটা লাল রক্তজবা দেখেছি ভাগাড়ে ফুটে থাকতে। একটি পাখিকে দেখেছি লোহার জঞ্জালে তার ঘর বানাতে,বুড়ি গঙ্গার কালো জলে খেলতে দেখেছি মা ডলফিনকে।আমি শুনেছি রাস্ট্রের সর্বোচ্চ সম্মাননা পাচ্ছে এক শ্রমিক আর কৃষক গ্রহণ করছেন নোবেল প্রাইজ সবার পেট শান্ত রাখার জন্য।এগুলো স্বপ্ন, স্বপ্ন দেখতেতো আর বাধা নাই তার সীমানও নাই। তাই স্বপ্নটাই দেখে যাই।

আমরা একটা সহজ গল্প বলতে চাইছি। আমরা দেখাতে চাইছি অনেক ক্ষমতাধর মানুষের কাছে সাধারন মানুষেরা কি ভাবে অসহায় হয়ে পড়ে, আমরা বুঝতে চাইছি সংকটে মানবতা কর্পূরের মতো কেন উড়ে যায় ? আসলেই কি আমরা নিজেরা নিজেদের চালাই নাকি চালিত হই। বা চলতে বাধ্য হই!
সাম্প্রতিক সারা পৃর্থিবীর অচলাবস্থায় যখন নিজের ভবিষ্যত নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিলাম তখন হাজারো চিন্তার ভীড়ে মগজে নাটকের ভুত ঠিকই প্রতি রাতে কিলিয়ে যেত। প্রতি রাতেই এককেটা প্লট সহ তার মঞ্চায়ন হয়ে যেত রাত জাগা স্বপ্নের ভেতর। তবে এখন যাচ্ছি বাস্তব বাস্তবায়নের দিকে।

আমি আমার কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি প্রাচ্যনাটকে ও সকল বন্ধুদেরকে ,আর ভালবাসার কোন ঘাটতি নেই এই নাটকের তরুন অভিনেতা ও নকশাকরাদের প্রতি,তারা দায়িত্ব নিয়েই তাদের কাজ করেছে। তার শিল্পের সাথে থাকবে সকল সংকীর্নতাকে দুরে ঠেলে। আর দর্শকরাতো সদাই থাকেন আমাদের শিরে।

নাটকে অভিনয় করেছেন তানজিকুন, ফয়সল কবির সাদি, আরিফুল ইসলাম রুবেল, ফয়সল ইবনে মজিান, সৌর্ন্দয প্রিয়দর্শিনী, অদ্রী জা আমিন।অঙ্গ সঞ্চালনার নকশা ও সহকারী নির্দেশক: পারভিন সুলতানা কলি। মঞ্চ ও দ্রব্যসামগ্রী পরিকল্পনা: তানজিকুন, আলোক পরিকল্পনা: ফয়েজ কবির, শব্দ

প্রক্ষেপণ ঃ বিন ই আমিন টুটুল, পোষাক সহযোগী: সৌর্ন্দয প্রিয়দর্শিনী, মঞ্চ তত্বাবধায়ক:অদ্রী জা আমিন, ডকুমেন্টশন: ফয়সল ইবনে মজিানও সায়েম, নির্দেশকের সহকারি ও প্রযোজনা অধিকর্তা: ফায়সাল সাদি।

নাটক শেষে ২য় পর্বে থাকবে মানসিক স্বাস্থ্যবিষয়ক আলোচনা-“মনো সামাজিক বিশ্লেষণ ও বর্তমান” কথা বলবেন অধ্যাপক ডা. সালাহউদ্দিন কাউসার বিপ্লব এবং ডাঃ নাসির উদ্দিন আহমেদ।

শুক্র ও শনিবার পর পর দু’দিন সন্ধ্যায় সোয়া সাতটায় নাটকটির দুটি প্রদর্শনী হবে। প্রতি প্রদর্শনীতে ২০জন দর্শক নাটক দেখার সুযোগ পাবে। টিকিট মূল্য: ২০০/- (দুইশত টাকা) এবং ১০০/- (একশত টাকা) (শুধুমাত্র থিয়েটারকর্মীদের জন্য)। টিকিটের জন্য যোগাযোগঃ ০১৭৯০১০৫০৪০ এই নম্বরে।

Surfe.be - Banner advertising service

https://www.facebook.com/gnewsbd24

Leave a Reply

More News Of This Category
<script async src="https://pagead2.googlesyndication.com/pagead/js/adsbygoogle.js?client=ca-pub-3423136311593782"
     crossorigin="anonymous"></script>
© All rights reserved © 2011 Live Media
কারিগরি সহযোগিতায়: মোঃ শাহরিয়ার হোসাইন
freelancerzone