বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:৫১ অপরাহ্ন

কাজে আসছে না ড্রেনেজ ব্যবস্থা

জহুরুল ইসলাম খোকন, সৈয়দপুর প্রতিনিধি (নীলফামারী) ঃ
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১ অক্টোবর, ২০২০

নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরে প্রধান সড়কের পাশ দিয়ে অপরিকল্পিতভাবে নির্মিত ড্রেনে কোনো সুবিধাই পাচ্ছে না পৌরবাসী। সামান্য বৃষ্টি হলেই ঐ সব ড্রেন দিনে পানি নিষ্কাশন বাধাগ্রস্থ হয়ে সড়কের উপরেই হাটু পানি। ফলে পৌরবাসির পথ চলাচলে কাটা হয়ে দাড়িয়েছে।

মাত্র দুই বছর আগে শহরের শহীদ ডাঃ জিকরুল হক সড়ক, শহীদ ডাঃ জহুরুল হক সড়ক সহ বেশ কটি সড়ক নির্মিত হয় বিশ্ব ব্যাংক এর দেওয়া অর্থায়নে। একই সাথে সড়কের পাশ ঘেষে নির্মিত হয় ড্রেন। এছাড়া শহরের পাচঁ মাথা মোড় থেকে বিমান বন্দর হয়ে ক্যান্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজ সংলগ্ন দৃষ্টি নন্দিত সড়ক ও মাষ্টার ড্রেন নির্মান করা হয়। প্রায় অর্ধশত কোটি টাকা ব্যায়ে এসব সড়ক ও ড্রেন নির্মান কাজ দেখাশুনা করেন পৌর কর্তৃপক্ষ। কিন্তু নিম্ন মানের কাজ ও পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার অভাবে পানি নিষ্কাশনে বাধাগ্রস্থ হচ্ছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, সঠিক সুস্থ্য পরিকল্পনামাফিক ড্রেন ও সড়ক নির্মাণ করা হয়নি। হেন তেন ভাবে নির্মাণ করা হয়েছে সড়ক ও ড্রেন। অপরিকল্পিতভাবে নির্মিত হওয়ায় বছর না ঘুরতেই সড়কের কারপিটিং উঠে যায় আর ড্রেনগুলো পরিষ্কার না করার ফলে পানি নিষ্কাশনে বাধাগ্রস্ত হয়ে সামান্য বৃষ্টিতেই হাটু পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে রাস্তাঘাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। বিশ্ব ব্যাংক এর দেওয়া অর্থে পরিকল্পিতভাবে কাজ করলে জনসাধারণকে দুর্ভোগ পোহাতে হত না।

আওয়ামী নেতা অধ্যক্ষ সাখাওয়াত হোসেন খোকন জানান, মেয়র আমজাদ হোসেন সরকার একাধারে উপজেলা চেয়ারম্যান সংসদ সদস্য ও চার বার পৌর মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তার ক্ষমতা থাকাকালীন সময়ে সৈয়দপুর বাসির ভাগ্যের চাকা ঘোরে নি। বিশ্ব ব্যাংক ও বিভিন্ন এনজিও’র মাধ্যমে সরকার কোটি কোটি টাকা সৈয়দপুরের উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ দিলেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি। সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে বিএনপি সমর্থিত এই মেয়র বহাল তবিয়তে রয়েছেন।

শহরের ব্যবসায়ীরা বলছেন অপরিকল্পিতভাবে সড়কের পাশে ড্রেন গুলি নির্মিত হওয়ায় পানি নিষ্কাশনে কোনো কাজেই আসছে না। আসন্ন ডিসেম্বরে পৌর পরিষদ নির্বাচন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে জেনেই বর্তমানে সড়কের মাঝখানে উন্নয়নের নামে খোড়াখুড়ি করায় মরার উপর খাড়ার ঘা হয়ে দাড়িয়েছে শহরবাসির।

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলো জানান, পৌর কর্তৃপক্ষের পরামর্শ অনুযায়ী যথা নিয়মেই ড্রেন ও সড়কের কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। এবং পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থার জন্যই বর্তমানে খুড়াখুড়ির কাজ অব্যহত রয়েছে। কোনো অনিয়ম করা হয়নি বলে জানান তারা।

সৈয়দপুর পৌরসভার প্রকৌশলী আইয়ুব আলী জানান সংশি¬ষ্ট ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের লোকজন সড়ক ও ড্রেনের নির্মান কাজ করেছেন। আমরা শুধু সহযোগিতা করেছি মাত্র।

 

Surfe.be - Banner advertising service

https://www.facebook.com/gnewsbd24

Leave a Reply

More News Of This Category
<script async src="https://pagead2.googlesyndication.com/pagead/js/adsbygoogle.js?client=ca-pub-3423136311593782"
     crossorigin="anonymous"></script>
© All rights reserved © 2011 Live Media
কারিগরি সহযোগিতায়: মোঃ শাহরিয়ার হোসাইন
freelancerzone