শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১১:৩৯ অপরাহ্ন

গ্যাস সিলেন্ডার ও দাহ্য পদার্থের রমরমা বাণিজ্য

জহুরুল ইসলাম খোকন, সৈয়দপুর প্রতিনিধি (নীলফামারী) ঃ
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২৮ অক্টোবর, ২০২০
  • ১০৫ বার পঠিত

নীলফামারীর সৈয়দপুরে লাইসেন্স ও অগ্নি নির্বাপক ব্যবস্থা ছাড়াই শহরসহ পাড়া মহল¬ার ব্যবাসায়ীরা ঝুকিপূর্ণভাবে চালাচ্ছেন গ্যাস সিলেন্ডার (এলপিজি) সহ দাহ্য পদার্থের ব্যবসা। পৌর এলাকা ছাড়াও উপজেলার হাটবাজারেও প্রশাসনের চোখের সামনে বিক্রি হচ্ছে এসব জ্বালাণি। সরকারের কোনো প্রকার নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করেই ব্যবসায়ীরা শুধুমাত্র ট্রেড লাইসেন্স নিয়েই অবৈধভাবে গ্যাস ও দাহ্য পদার্থের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন। এর ফলে সরকার হারাচ্ছেন রাজস্ব। অপরদিকে বিস্ফোরন ঘটে প্রাণ হানির মতো ঘটনাও ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা অনেকের।

সংশি¬ষ্ট সূত্র জানায় গ্যাস সিলেন্ডার ব্যবসা করতে গেলে প্রথমত পাতা মেঝে নির্মিত আধা-পাকা ঘর, অগ্নি নির্বাপক সক্ষমতা ফায়ার সার্ভিসের অনুমতিপত্র, অগ্নি নির্বাপক সিলেন্ডার রাখতে হবে। এসবের কোনো একটির অনুমতিপত্র না থাকলে দাহ্য পদার্থের ব্যবসা করতে পারবেন না। তাছাড়া খোলামেলাভাবে দাহ্য পদার্থের বিক্রিতে কোনো অনুমতি দেন না সংশি¬ষ্টরা।

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, এসব ব্যবাসায়ীরা সরকারের নিয়মনীতিকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে পৌর এলাকাসহ ইউনিয়নগুলোতে অবৈধবাবে চালানো হচ্ছে গ্যাস সিলেন্ডার প্যাট্রোল ও অক্টেনসহ দাহ্য পদার্থের ব্যবসায়। পৌর এলাকার মুদি দোকান, চায়ের দোকান, কসমেটিক্স দোকান ইলেকট্রিক দোকানসহ রাস্তার পাশে পানের দোকানেও সারিবদ্ধভাবে গ্যাস সিলেন্ডার দাড় করিয়ে ব্যবসা করছেন ব্যবসায়ীরা।

ইউনিয়ন পর্যায়ে গ্যাস সিলেন্ডার ছাড়াও সড়কের পাশে টেবিলের উপর বোতল ও কন্টেইনারে ভরে বিক্রি করা হচ্ছে পেট্রোল ও অক্টেন। ফলে যে কোনো সময় প্যাট্রোল অক্টেন ও গ্যাস সিলেন্ডার বিস্ফোরনের মাধ্যমে ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। বছরের বছর অবৈধভাবে ব্যবসা চলে আসলেও নির্বিকার রয়েছেন ফায়ার ব্রিগেড কর্তৃপক্ষসহ স্থানীয় প্রশাসন।

উপজেলার সর্বত্র অবৈধভাবে গ্যাস, প্যাট্রোল ও অক্টেন ছড়িয়ে পড়ায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন সচেতনমহল। তাছাড়া খোলামেলাভাবে দাহ্য পদার্থ বিক্রির ফলে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে পথচারি, শিক্ষার্থীসহ উপজেলা শহরের বাসিন্দারা। নিয়ম বহির্ভূত গ্যাস ব্যবসার ফলে সন্ত্রাসী ও দুবৃত্তরা হাতের নাড়ালে এসব পাওয়ায় নাসকতার কাজে ব্যবহার করতে পারে বলে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন এই অঞ্চলের জনপদ।

স্থানীয় প্রশাসন ও বিস্ফোরক অধিদপ্তরের লোকজন মাঠ পর্যায়ে কোনো প্রকার অভিযানে না নামার ফলে অসাধু ব্যবসায়ীরা রমরমা ভাবেই তাদের এসব ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। শুধুমাত্র প্রশাসনের হস্তক্ষেপ না থেকে উদাসীনতার ফলে দিন দিন বেড়েই চলেছে দাহ্য পদার্থের ব্যবসা।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা নাসিম আহম্মেদ জানান, মূলত এসব বিষয়ে দেখাশোনা করার কথা ফায়ার ব্রিগেড কর্তৃপক্ষের। তাছাড়া এসব বিষয়ে গতদিনে কেউই অবগত করেন নি। ফলে ক্ষতিয়েও দেখা হয় নি। অল্প দিনের মধ্যেই বিষয়টি আমলে নিয়ে অভিযান চালানো হবে বলে তিনি সাংবাদিকদের জানান।

Surfe.be - Banner advertising service




নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

<a href=”https://surfe.be/ext/446180″ target=”_blank”><img src=”https://static.surfe.be/images/banners/en/240x400_1.gif” alt=”Surfe.be – Banner advertising service”></a>

via Imgflip

Surfe.be - Banner advertising service

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451