সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ১০:৫৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
৮ ডিসেম্বর গাইবান্ধার পলাশবাড়ী হানাদার মুক্ত দিবস দিনাজপুরে ট্রাকচাপায় ওষুধ কো¤পানির বিক্রয় কর্মকর্তা নিহত তানোরে ফ্রী মোবাইল থেরাপি ক্যাম্পেইন জয়পুরহাটে শিল্প উদ্যোক্তা উন্নয়ন প্রশিক্ষন কর্মশালা শুরু হয়েছে প্রস্তাবকারীর স্বাক্ষর জাল করে মনোনয়ন দাখিল করায় চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল সৈয়দপুরে ফিল্মি স্টাইলে ডিম ব্যবসারীর ২ লাখ ৮৫ হাজার টাকা ছিনতাই যশোরে হাত-পা বেঁধে স্ত্রীর মুখে বিষ ঢেলে হত্যার অভিযোগ সুনামগঞ্জে ৫ চেয়ারম্যান প্রার্থীকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিস্কার দিনাজপুরে মঞ্চস্থ নবরূপীর নাটক ‘সম্ভমহারা স্বাধীনতা’ তানোরে হিমাগারে রাখা কৃষকের আলু ইঁদুরের পেটে

হরিপুর উপজেলার ডোবাগুলোতে স্বর্গীয় ফুল

জে. ইতি, হরিপুর প্রতিনিধি (ঠাকুরগাঁও)ঃ
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১২ নভেম্বর, ২০২০
  • ১২৮ বার পঠিত

গ্রামবাংলার অতি পরিচিত সাধারণ একাটি জলজ উদ্ভিদ কচুরিপানা। বাংলাদেশের প্রায় প্রত্যেক এলাকায় নদ-নদী, পুকুর, জলাশয়, হাওর নিম্মাঞ্চলে সচরাচর কচুরি দেখতে পাওয়া যায়।

এটি একটি বহু-বর্ষাজীবী ভাসমান জলজ উদ্ভিদ। বর্ষাকালে এই জলজ উদ্ভিদটি বেশি পরিমাণে দেখা যায়।

আমরা প্রায় সবাই কচুরিপানার গাছ আর ফুল চিনি। খাল-বিলের মতো বদ্ধ জলাশয় অবাধ ভাসমান একটি গুল্ম, যার নিচে থাকে এক থোকা লম্বা গুচ্ছমূল, আর উপরের কান্ডে এক থোকা স্পঞ্জি পাতার দেখা মেলে এরই নাম হলো কচুরিপানা। এর বৈজ্ঞানিক নাম- Eichhornia crassipes। বেগুনি ফুলের নির্মল শোভা যেন নোংরা ডোবাকেও স্বর্গীয় করে ফেলে।

গতকাল কাঁঠালডাঙ্গী থেকে হরিপুর উপজেলায় যাওয়ার পথে রাস্তার দু’ ধারে উকি মেরে হাতছানি দেয় ফুলগুলো। কাছে গিয়ে নয়নাভিরাম, মনোমুগ্ধ পরিবেশের অবহ। এই আগাছাটি ভাল-মন্দ নানা দিক মিলিয়ে এক রকমারি বৈশিষ্ট্যের উদ্ভিদ প্রজাতি। মজার বিষয় এই চিরপরিচিত গাছাটি আমাদের দেশীয় প্রজাতি নয়। আসলে এর আদি নিবাস দক্ষিণ আমেরিকায়। দেখার দৃষ্টিবঙ্গি থাকলে কচুরি ফুলের মতো এত চমৎকার ফুল খুব কম আছে। পরিমাণগত দিক দিয়েও এর মতো এত ব্যাপক বিস্তৃত ফুল খুব কমই চোখে পড়ে।

কবিগুরুর ভাষায়- ‘দেখা হয় নাই চক্ষু মেলিয়া/ঘর হতে শুধু দু’পা ফেলিয়া। সত্যিকার অর্থেই যেখানে সেখানে ছড়িয়ে থাকা এক আগাছা উদ্ভিদ যার কিনা উপকারের চেয়েও অপকারী দিক কোনো অংশেই কম না, এমন এক অবহেলিত উদ্ভিদে এত নয়নাভিরাম, মনোমুগ্ধকর, চিত্তাকর্ষক ফুল যা প্রকৃতিপ্রেমীদের বিমুগ্ধ না করে পারে না।

কচুরিপানা দেখতে গাঢ় সবুজ হলেও এর ফুরগুলো সাদা পাপড়ির মধ্যে বেগুনি ছোপযুক্ত এবং মাজখানে হলুদ ফোঁটা থাকে। সাদা এবং বেগুনি রঙের মিশেলে এক অন্যরকম আবহ তৈরি করে। সাদা পাপড়ির স্থলে কোথাও হালকা আকাশি পাপড়িও দেখতে পাওয়া যায়। পুরোপুরি ফুল ফোঁটার আগে একে দেখতে অনেকটা নলাকার দেখায়। পাপড়িগুলোর মাঝখানে পুংকেশর দেখতে পাওয়া যায়। প্রতিটি ফুলে ছয়টি করে পাপড়ি দেখা যায়।

এলাকাভিত্তিক অনেকে একে একেক নামে চিনে থাকে। বাংলাদেশে প্রায় সাত প্রজাতির কচুরি দেখতে পাওয়া যায়। প্রায় সারা বছরই কচুরি ফুল ফুটতে দেখা যায়। কচুরি ফুলের মুগ্ধতায় আমাদের মধ্যে প্রকৃতি প্রেম জাগৃত হোক।

Surfe.be - Banner advertising service




নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

<a href=”https://surfe.be/ext/446180″ target=”_blank”><img src=”https://static.surfe.be/images/banners/en/240x400_1.gif” alt=”Surfe.be – Banner advertising service”></a>

via Imgflip

Surfe.be - Banner advertising service

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451