বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১০:৪৫ অপরাহ্ন

তানোরে আলুর বীজ সারের চরম হাহাকার

আব্দুস সবুর, তানোর প্রতিনিধি(রাজশাহী) ঃ
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৫ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৩০ বার পঠিত

রাজশাহীর তানোরে আলুর বীজ ও সারের জন্য হাহাকার করছেন চাষিরা। বাড়তি দাম দিয়েও মিলছেনা বীজ ও সার। এতে করে চরম বেকাতদায় পড়েছেন চাষিরা। দোকানে দোকানে লম্বা লাইন দিয়েও মিলছেনা বীজ ও সার। বিশেষ করে ব্র্যাকের বীজ এবং আলু রোপণের সময় টিএসপি সারের ব্যাপক সঙ্কট দেখা দিয়েছে। এমনকি নির্ধারিত মুল্যের চেয়েও বাড়তি দাম দিয়েও পাচ্ছেনা বীজ ও সার। এতে করে চরম হাতাশায় পড়েছেন কৃষি প্রধান এলাকা নামে পরিচিত উপজেলার কৃষকরা।

অথচ শাসক দলের মন্ত্রীরা বড় গলায় জানিয়ে দিয়েছিল সার খুজা লাগবেনা কৃষকদের, সার খুজবে কৃষকদের দ্বারে দ্বারে। এমন পরিস্থিতির জন্য কৃষি দপ্তর ও বিসিআইসির ডিলারদের চরম ভাবে দায় করছেন কৃষকরা। বাধ্য হয়ে বিভিন্ন এলাকা থেকে বাড়তি দাম দিয়ে কিনতে হচ্ছে এসব পণ্য। একের পর এক পণ্য লঙ্কাকাণ্ডের জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগকেই দায়ি করছেন।

অবস্থাটা এমন কোন কিছুতেই যেন নজর নেই কর্তৃপক্ষের। যেই কৃষকরা মাথার ঘাম পায়ে ফেলে দেশের খাদ্যের চাহিদা পুরুন করছেন তাদের ব্যাপারে উদাসীন থাকার কারনে চরম ক্ষুব্ধ উয়ে উঠেছেন কৃষকরা। আর ডিলারেরা দাবি করছেন চাহিদার তুলনায় বরাদ্দ কম থাকার কারনে এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। কিন্তু তাদের এমন কথা মানতে নারাজ কৃষকরা।

জানা গেছে, বিগত যে কোন বছরের তুলনায় বা যারা আলু চাষ করে থাকেন তাঁরা গত মৌসুমে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে আলুর দাম পেয়েছেন প্রচুর তাকে। যার কারনে চলতি মৌসুমে আলু চাষে মৌসুমি চাষি ছাড়াও ক্ষুদ্র চাষিরা আলু চাষে ব্যাপক হারে ঝুকে পড়েছেন।এই সুযোগে বিসিআইসি, বিএডিসি ও বালাইনাশকের ব্যবসায়ীরা কৃত্রিম সঙ্কট দেখিয়ে সরকারের বেধে দেওয়া দামের চেয়ে বেশি দামে সার বিক্রি করলেও রহস্যজনক কারনে নিরব অবস্থায় কৃষি দপ্তর থেকে শুরু করে সংশ্লিষ্ট কর্তা বাবুরা। আবার চাহিদার তুলনায় কত বরাদ্দ লাগবে সে বিষয়েও মুখ খুলতে নারাজ কৃষি ও বিএডিসি।

একাধিক ডিলারের সাথে কথা বলা হলে তাঁরা জানান করোনার জন্য সরকার টিএসপি আমদানি না করার জন্য সঙ্কট দেখা দিয়েছে। আমরা যে সব এলাকায় আলু চাষ হয়না ওই সব এলাকা থেকে বাড়তি দামে সংগ্রহ করার জন্য কৃষকদের কাছ থেকেও বেশি দাম নিতে হচ্ছে। কেউ তো লোকসান দিয়ে বিক্রি করবেনা এটাই স্বাভাবিক।

আলু রোপণের সময় টিএসপি সার প্রয়োগ করতে হয় নইলে গাছ ফলন কোনটাই ভালো হয়না। এক কথায় টিএসপি সার দিতেই হবে আলু রোপণের আগে। সরকারের বেধে দেওয়া টিএসপি সারের ১১০০ টাকা নির্ধারিত মুল্য হলেও বিক্রি হচ্ছে ১৩০০ থেকে সাড়ে ১৩০০ এমনকি ১৪০০ টাকায় মিলছেনা টিএসপি সার।

এদিকে সার আলু বীজ নিয়ে তেলেসমাতি কারবারের জন্য সামাজিক যোগাযোগ ফেসবুকে বদের আলী নামের একজন লিখেন আলু রোপণ শুরু করলেও সার নিয়ে চরম বেকায়দায় পড়েছি। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আসছেন বেলা ১১ টার দিকে আর বিকেল চারটার সময় বন্ধ করে চলে যাচ্ছেন। সার যদি উন্মুক্ত বাজারে বিক্রি না হয় তাহলে চাষাবাদ করা দুরহ ব্যাপার। আমি সারের ¯ি¬প পেয়েছি ১২ নভেম্বর তারিখে সার পাচ্ছি ১৩ নভেম্বর তারিখে।এরপরও সার নেওয়ার জন্য চারজন শ্রমিক চার ঘণ্টা বসে ছিল।

তাহলে আমার একার লোকসান হল ১৬ ঘণ্টা। এভাবে যদি চলতে থাকে তাহলে সাধারন কৃষকের সমস্যার সমাধান কে করবে। শুধু বদের আলি না ফেসবুকে অনেক সচেতন কৃষকরা ডিলারদের গুদামে অভিযান চালানো এবং সারের চাহিদা মোতাবেক মোকাম থেকে তোলা হয়েছে কিনা এসব বিষয়ে কৃষি বিভাগকে পরিষ্কার করে জানাতে হবে।

ব্র্যাক বিজের ডিলার মাষ্টার শাহিনের দোকান রয়েছে তালন্দ বাজারে। তিনি জানান বীজের চাহিদা ৫০ মেঃটন পাওয়া গেছে ১৫০ মেঃটন কিভাবে সমস্যা দূর হবে।

সারের বিষয়ে কৃষি কর্মকর্তা শামিমুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান আমি ডিডিএলজির সাথে মিটিঙয়ে আছি কোন কথা বলার থাকলে সার ডিলার বাবুর সাথে কথা বলার পরামর্শ দেন তিনি।

ডিলার মহাম্মাদ আলী বাবু জানান চাহিদা মোতাবেক সার পাওয়া গেছে। তাহলে বাড়তি দাম কেন পাচ্ছেনা কেন জানতে চাইলে তিনি জানান কৃষকরা অতিমাত্রায় সার প্রয়োগের জন্য এঘটতির সৃষ্টি হয়েছে। তবে মিটিং হচ্ছে সমস্যাদি দূর হয়ে যাবে বলে দায় সারেন।

 

Surfe.be - Banner advertising service




নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

<a href=”https://surfe.be/ext/446180″ target=”_blank”><img src=”https://static.surfe.be/images/banners/en/240x400_1.gif” alt=”Surfe.be – Banner advertising service”></a>

via Imgflip

Surfe.be - Banner advertising service

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451