শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০২:৪৬ পূর্বাহ্ন

নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে “বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার” উদ্বোধন

জি-নিউজবিডি২৪ ডেস্ক :
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৮ মার্চ, ২০২১

বেসরকারী পর্যায়ে উচ্চ শিক্ষার পথপ্রদর্শক এবং বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়সমূহের মাঝে র‌্যাংকিং এ প্রথম স্থান অর্জনকারী নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির কেন্দ্রীয় লাইব্রেরীতে “বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার” এর উদ্বোধন করা হয়েছে এবং গবেষকদের মধ্যে গবেষণা স্বর্ণপদক ও সম্মাননা প্রদান ২০২১ সহ আলোচনা সভা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানটি নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ এ সরাসরি সম্প্রচার করা হয়।

টিভি উপস্থাপক এবং নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির জনসংযোগ অফিস এর পরিচালক জনাব জামিল আহমেদ এর সঞ্চালনায় এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাউথ ইস্ট ব্যাংক লিমিটেড এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, এফবিসিসিআই এর প্রাক্তন সভাপতি এবং নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান জনাব এম. এ. কাসেম, সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য, বীর মুক্তিযোদ্ধা লায়ন বেনজীর আহমেদ, জনাব আজিজ আল কায়সার, মিজ রেহানা রহমান এবং জনাব তানভীর হারুন।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে এনএসইউ নানা ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। সকাল ১১ টায় কেক কাটার মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। বঙ্গবন্ধুর শতবার্ষিকী উপলক্ষে এনএসইউ এর কেন্দ্রীয় লাইব্রেরীতে “বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার” এর উদ্বোধন করে।

এই নতুন বিভাগে মহান মুক্তিযুদ্ধের পাশাপাশি বঙ্গবন্ধুর জীবনীর উপর বিপুল সংখ্যক বই, সংরক্ষণাগার সামগ্রী এবং ছবির একটি চিত্তাকর্ষক সংগ্রহ রয়েছে। এনএসইউ বাংলাদেশের অন্যতম গবেষণা-সক্রিয় বিশ্ববিদ্যালয়। গবেষণাকে আরও উত্সাহিত করতে, এনএসইউ ৪ টি অনুষদ এর প্রত্যেকটির শীর্ষ ৩ জন গবেষককে কঠোর মূল্যায়নের মাধ্যমে গবেষণা পুরষ্কার (স্বর্ণপদক এবং নগদ পুরস্কার) এর বিজয়ী হিসেবে বাছাই করে এবং তাঁদের মাঝে স্বর্ণপদক এবং নগদ পুরস্কার বিতরন করে।

এনএসইউ শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও বিশ্ববিদ্যালয় মুঞ্জুরি কমিশন এর আয়োজিত ১০০ দিনের “বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কুইজ” এর গর্বিত নলেজ পার্টনার । এছাড়াও এনএস ইউ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শতবর্ষের স্মারক হিসেবে বঙ্গবন্ধুর ছবি সম্বলিত কলম তৈরি করেছে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান বলেন , আমি নিজে একজন সম্মুখ সারির মুক্তিযোদ্ধা ছিলাম, আমরা যারা মুক্তিযুদ্ধ করতে গিয়েছিলাম, আমরা যেটা চেয়েছিলাম সেটা হল আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম বাংলাদেশকে অন্য একটি পরিচয়ে বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে নিয়ে যায়।

আমি আজকে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে এসে অভিভূত, দেশের ইতিহাস না জানলে আমরা ভেসে যেতে পারি এজন্য ইতিহাসকে আমাদের চর্চা করতে হবে, আর বাংলাদেশের ইতিহাস যদি আমরা চর্চা করতে চাই তাহলে বঙ্গবন্ধু ছাড়া সম্ভব না এবং সে কাজটি নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি করেছে।

এ সময় তিনি, এনএসইউ এর বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার উদ্বোধন এবং বঙ্গবন্ধু এবং মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নতুন প্রজন্মকে জানানোর যে মহতী উদ্যোগ গ্রহণ করেছে সেজন্য এনএসইউ কর্তৃপক্ষের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং সেটি অন্যান্যদের জন্য অনুসরনীয় আদর্শ হতে পারে বলে উল্লেখ করেণ। এসময় তিনি বাংলাদেশের ডিজিটাল পদ্ধতি ব্যবহার করে অগ্রগতি ও উন্নয়নের কথা উল্লেখ করেণ।

অনুষ্ঠানে দ্বিতীয় পর্বে গবেষণা কাজে উৎসাহিত করার জন্য গবেষকদের মধ্যে গবেষণা স্বর্ণপদক ও সম্মাননা প্রদান ২০২১ আয়োজনকে মহৎ উদ্যোগে হিসেবে উল্লেখ করেন এবং এটি অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয় এর জন্য অনুস্মরণীয় বলে তুলে ধরেণ।

এনএসইউ এর ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান জনাব এম. এ. কাসেম বলেন, সর্ব কালের সর্ব শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে আমাদের গভীর শ্রদ্ধা ও প্রাণঢালা শুভেচ্ছা। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতির মুক্তি সংগ্রামের মহানায়ক ছিলেন। তিনি ছিলেন আমাদের স্বাধীনতার রূপকার। বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে ঊনসত্তরের অভ্যুত্থান পর্যন্ত গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তিনি নেতৃত্ব দিয়েছেন এবং ১৯৭১ সালের ২৬শে মার্চ এই মহান নেতা বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন।

তিনি শুধু নেতা নয় এই উপমহাদেশের অন্যতম একজন রাজনীতিবিদ। ব্যক্তিত্ব ও সাহসে এই মানুষটি হিমালয়ের সমান ছিলেন। বাংলাদেশের আজ যে উন্নয়ন অগ্রগতির মহাসড়কে তার সব অবদানই বঙ্গবন্ধুর। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে দেশের ১৬ কোটি মানুষের প্রত্যাশা অনেক বেশি। এই প্রত্যাশা পূরণে তিনি নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। এসময় তিনি “বঙ্গবন্ধু এবং মুক্তিযুদ্ধ কর্নার” এর শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে গবেষণায় স্বর্ণপদক ও সম্মাননা প্রদান ২০২১ অনুষ্ঠানে তিনি উল্লেখ করেন, এনএসইউ বিশ্বাস করে শিক্ষকতা এবং গবেষণা একে অপরের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। পৃথিবীর সব বড় বড় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার সাথে গবেষণাকে সমানভাবে গুরুত্ব প্রদান করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি গবেষণায় স্বর্ণপদক প্রদান ২০২১ এর উদ্বোধন করেছে। যাতে শিক্ষকবৃন্দ গবেষণায় আরো উৎসাহিত হয়।

তিনি আরো বলেন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে আমরাই প্রথম গবেষণায় উৎসাহিত করতে গবেষকদের মাঝে পুরস্কার প্রদানের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। আমি মনে করি আমাদের দেখে অনুপ্রাণিত হয়ে অন্যরাও এ ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করবে। এসময় তিনি আরও উল্লেখ করেন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি বঙ্গবন্ধুর উপরে একটি বই প্রকাশের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে এবং খুব শীঘ্রই বইটি প্রকাশ হবে।

বীর মুক্তিযোদ্ধা লায়ন বেনজীর আহমেদ বলেন, মুজিব বর্ষের মধ্যে সেন্ট্রাল লাইব্রেরীতে “বঙ্গবন্ধু এবং মুক্তিযুদ্ধ কর্নার উদ্বোধনী” করতে পেরে আমরা আনন্দিত। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে, গবেষণায় বিশেষ অবদান রাখার জন্য সম্মানিত শিক্ষকদের পুরস্কার প্রদানের মহতি উদ্যোগকে সাধুবাদ জানান এবং এ উদ্যোগে ভবিষ্যতে গবেষকদের আরও এ ধরনের গবেষণার কাজে মনোনিবেশ করতে উৎসাহ প্রদান করবে বলে উল্লেখ করেণ।

নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম বলেন, আমরা আন্তরিকভাবে চেষ্টা করছি, বঙ্গবন্ধুর জীবন, তার জীবন দর্শন, রাজনৈতিক চিন্তা, সামাজিক চিন্তা, এবং তাঁর জীবনের সে সব সংগ্রাম করেছেন, সব সংগ্রাম এর প্রত্যেকটি যেসব স্তরের ভিতর দিয়ে গিয়েছেন তা ছবি দিয়ে হোক, বই দিয়ে হোক, তথ্য দিয়ে হোক, আমরা পরবর্তী প্রজন্মের কাছে সেটি পৌঁছাব।

তারই প্রয়াসে আমরা নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে বঙ্গবন্ধু এবং মুক্তিযুদ্ধ কর্নারের উদ্বোধন করেছি। এসময় তিনি আরও বলেন শিক্ষকবৃন্দদের গবেষণায় আরো উৎসাহিত করতে গবেষণায় স্বর্ণপদক ও সম্মাননা প্রদান ২০২১ উদ্বোধন তাঁদের গবেষণায় আরও উৎসাহিত করবে বলে আমি মনে করি।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম. ইসমাইল হোসেন, স্কুল অব বিজনেস এন্ড ইকোনোমিক্স এর ডিন অধ্যাপক ড. আবদুল হান্নান চৌধুরী, স্কুল অব ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড ফিজিক্যাল সায়েন্সেস এর ডিন অধ্যাপক ড. জাবেদ বারী, স্কুল অব হিউম্যানিটিস এন্ড সোস্যাল সায়েন্সেস এর ডিন অধ্যাপক ড. আব্দুর রব খান, স্কুল অব হেলথ এন্ড লাইফ সায়েন্সেস এর ভারপ্রাপ্ত ডিন , অধ্যাপক ড. হাসান মাহমুদ রেজা, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি এর স্টুডেন্ট অ্যাফেয়ার্স অফিসের পরিচালক অধ্যাপক ড. গৌর গোবিন্দ গোস্বামী, অফিস অব রিসার্চ এর পরিচালক অধ্যাপক ড. নরম্যান কে. সোয়াজো, লাইব্রেরিয়ান ড. মোঃ জাহিদ হোসেন শোয়েব, শিক্ষকবৃন্দ এবং কর্মকর্তাবৃন্দ। এছাড়াও নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ থেকে সরাসরি সম্প্রচার এর মাধ্যমে সংযুক্ত ছিলেন বিপুল সংখ্যক অভিভাবক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ ।

Surfe.be - Banner advertising service

https://www.facebook.com/gnewsbd24

Leave a Reply

More News Of This Category
<script async src="https://pagead2.googlesyndication.com/pagead/js/adsbygoogle.js?client=ca-pub-3423136311593782"
     crossorigin="anonymous"></script>
© All rights reserved © 2011 Live Media
কারিগরি সহযোগিতায়: মোঃ শাহরিয়ার হোসাইন
freelancerzone