বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ০৪:৪৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
চিরিরবন্দর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতির ইন্তেকাল, বিভিন্ন মহলের শোক হাকিমপুর প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার কতৃক অবৈধ সিন্ধান্ত চাপিয়ে দেওয়ায় অভিযোগ আন্তর্জাতিক রেটিং দাবা প্রতিযোগিতা-২০২১: আট রাউন্ড শেষে শীর্ষে ফাহাদ অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরীর দায়ে হোটেল মালিকের জরিমানা এবার আক্কেলপুর ও ক্ষেতলাল পৌরসভা এলাকায় বিধিনিষেধ জারী কলাপাড়ায় যুবলীগ নেতা মুরসালিন আহমেদের পিতা লতিফ গাজী আর নেই মাদকের ভয়াবহতা বুঝে মাদক থেকে দূরে থাকতে হবে – তরিকুল ইসলাম মাগুরার মহম্মদপুরে পানিতে পড়ে একজনেন মৃত্যু ডোমারে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) বিশ্বদেব রায়ের বিদায় সংবর্ধনা মোড়েলগঞ্জে করোনায় আরও এক নারীর মৃত্যু, এ পর্যন্ত আক্রান্ত ৯৯ জন

Surfe.be - Banner advertising service

লালমনিরহাটে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে তদন্ত করলেন ইউএনও

লালমনিরহাট থেকে :
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৫ জুন, ২০২১
  • ৫৬ বার পঠিত

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে সপ্রাবি সহকারী শিক্ষক একাংশের দাখিলকৃত অভিযোগ তদন্ত করেছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পাটগ্রাম ইউএনও সাইফুর রহমান। গত বুধবার ( ২ জুন) দুপুরে তাঁর কার্যালয়ে বাদী- বিবাদীর উপস্থিতিতে এ তদন্ত কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয় বলে জানা গেছে।

পাটগ্রাম উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা( চ:দা:) আবুল হোসেন ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল গাফ্ফার এ সময় তদন্তকাজে সহযোগিতা করেন।

ইউএনও অফিস সুত্রে জানা যায়, পাটগ্রাম উপজেলার সপ্রাবি’ সহকারী শিক্ষক একাংশ ১৩ তম গ্রেড ফিক্সেশণ অনলাইন কাজে বিলম্ব ও হয়রানীর অভিযোগ তোলে প্রায় ১৪৩ জন সহকারী শিক্ষক স্বাক্ষরিত একটি অভিযোগ প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা বরাবর দাখিল করেন। পাটগ্রাম ইউএনও সাইফুর রহমানকে অভিযোগটি তদন্ত করে অতিদ্রুত রিপোর্ট পাঠাতে বলা হয়েছে।

তদন্তকালে অভিযোগকারী শিক্ষকদের প্রতিনিধি ছাটপানবাড়ি সপ্রাবি সহকারী শিক্ষক আব্দুর রহিম প্রামানিক লিবনকে বাদী এবং পাটগ্রাম উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলামকে বিবাদী পক্ষ হিসেবে মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

এছাড়াও সত্য মিথ্যা যাছাই-বাচাই করার জন্য অভিযোগপত্রে স্বাক্ষরকারী ১৪৩ জনের মধ্যে যে কোন ৩ জনের কাছে অভিযোগের বিষয়ে জানার সিদ্ধান্ত নেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।অভিযোগ পত্রের ১১০ ক্রমিকে বৈরাগীরহাট সপ্রাবি’র প্রধান শিক্ষক( চ:দা:) শামসুজ্জোহা প্রধান মিথুন এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, এ ধরনের কোন অভিযোগে স্বাক্ষর করেননি। তিনি আরও বলেন, হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ১৩ তম গ্রেড ফিক্সেশণ কাজ বিলম্বের অভিযোগ তো দূরের কথা দেড় দুই মাস ধরে তিনি উপজেলার ওদিকে যাননি। এ বিষয়ে কারও বিরুদ্ধে তার কোন অভিযোগ নেই বলে মন্তব্য করেন।

এরপর পাটগ্রাম উপজেলা শিক্ষা অফিসার ১৩ তম ক্রমিকে স্বাক্ষরকারী টংটিংডাঙ্গা সপ্রাবি’র সহকারী শিক্ষক শায়লা শাজনিন এর মোবাইলে কল করেন।শিক্ষা কর্মকর্তার এক প্রশ্নের জবাবে সেই শিক্ষক বলেন,১৩ তম গ্রেডের কথা বলে তার স্বাক্ষর নেয়া হয়েছে। হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ফাইল প্রতি ১ হাজার টাকার অভিযোগ করা হয়েছে মর্মে তার বক্তব্য চাইলে এ বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না বলে মন্তব্য করেন।

অপর এক সহকারী শিক্ষকের সহধর্মিণী বলে তার কাছে সত্য মিথ্যা যাছাই করাটাও একটি অন্যতম কারণ বলে বিবেচিত এমন তথ্য জানা গেছে।

বাদী পক্ষের প্রতিনিধি হিসেবে উপস্থিত সহকারী শিক্ষক আব্দুর রহিম প্রামানিক লিবন এ সময় তদন্তকারী কর্মকর্তা ইউএনও সাইফুর রহমানকে জানান, ১৩ তম গ্রেডিং কাজ বিলম্ব হচ্ছে বলে আমরা আন্দোলন করি। সে সময় হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম সহকারী শিক্ষক নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে রুঢ় আচরণের অভিযোগ করেন বলে সহকারী শিক্ষকরা তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ দাখিল করেছেন।

এমন জবাব অভিযোগের সাথে চরম সাংঘর্ষিক ও পরিপন্থী। বাদী -বিবাদী উভয়পক্ষের বক্তব্য শুনে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে সংগ্রহীত ভিডিও ফুটেজ দেখে তদন্ত রিপোর্ট পাঠানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে পাটগ্রাম ইউএনও সাইফুর রহমানের মোবাইলে বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি মোবাইল ফোন রিসিপ করেননি।

উপজেলা শিক্ষক সমিতি’র সভাপতি প্রধান শিক্ষক রেজানুর রহমান রেজা ও প্রধান শিক্ষক মহসিন আলমসহ সহকারী শিক্ষক অপর একাংশের নেতৃবৃন্দ অনেকে জানান,পাটগ্রামে এখন শিক্ষকরা বিভক্ত হয়ে পড়েছেন। হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ তদন্তকালে সহকারী শিক্ষকরা সাংঘর্ষিক বক্তব্য প্রদান করায় হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ঘুষ দুর্নীতি অনিয়মের সত্যতা মিলেনি। অভিযোগ প্রমান না হওয়ায় আন্দোলনরত সহকারী শিক্ষক একাংশের নেতৃবৃন্দের মাথায় হাত পড়েছে।

পাটগ্রাম উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম তাঁর বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন উল্লেখ করে এ প্রতিনিধিকে বলেন, ১৩ তম গ্রেডিং ফিক্সেশণ কাজটি সহকারী শিক্ষকদের প্রথম অনলাইন সংযুক্ত করার সময় ২০১৫ সালে কর্মস্থল বিদ্যালয়ের নামের স্থলে শিক্ষা অফিসের ঠিকানা ব্যবহার করার ত্রুটি থাকায় সেগুলো ডিলেট করে নতুন করে আইডি তৈরী করতে হচ্ছে।

এতে প্রযুক্তিগত সমস্যার কারণে বিলম্ব হচ্ছে। ৬৬ টি সপ্রাবি’র প্রধান শিক্ষকসহ ১৪৫ বিদ্যালয়ে ৭৩৬ জন শিক্ষকের মধ্যে প্রায় পৌনে ৭ ‘শ সহকারী শিক্ষক আছেন। ইতোমধ্যে বেশিরভাগ শিক্ষকের আইডি তৈরীর কাজ হয়ে গেছে। অল্প ক’দিনের মধ্যে বাকী কাজগুলোও শেষ হবে বলে ধৈর্য্য ধরার আহবান জানান তিনি।

Surfe.be - Banner advertising service

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

<a href=”https://surfe.be/ext/446180″ target=”_blank”><img src=”https://static.surfe.be/images/banners/en/240x400_1.gif” alt=”Surfe.be – Banner advertising service”></a>

via Imgflip

Surfe.be - Banner advertising service

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451