শুক্রবার, ২৩ জুলাই ২০২১, ১০:৫০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

Surfe.be - Banner advertising service

পীরগঞ্জে বনবীট কর্মকর্তার অনিয়ম, দুর্নীতি!

সরওয়ার জাহান, ভ্রাম্মমান প্রতিনিধি পীরগঞ্জ (রংপুর) ঃ
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন, ২০২১
  • ৩৫ বার পঠিত

পীরগঞ্জের কাদিরাবাদ বনবীট কর্মকর্তা আবু জার গাফ্ফারীর বিরুদ্ধে বনের গাছ চুরিসহ অনিয়ম, দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতির অভিযোগ এনে বীটের সুবিধাভোগী, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, জমির মালিক ও এলাকাবাসী সংশ্লিষ্ট বিভাগে একাধিক সুনির্দিষ্ট অভিযোগ এনে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

বন প্রহরী পদমর্যাদার আবু জার গাফ্ফারী কে ৪র্থ বারের মত ‘বীট কর্মকর্তা’র দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

অভিযোগে জানা গেছে, রংপুর বন বিভাগের মিঠাপুকুর রেঞ্জের অধীনে পীরগঞ্জের কাদিরাবাদ বনবীটটিতে কোটি টাকা মুল্যের বিভিণœ প্রজাতির লাখ লাখ গাছ এবং শত শত একর জমি রয়েছে।

ওই বন বীটে রহস্যজনক কারণে একজন বন প্রহরী আবু জার গাফ্ফারীকে এ পর্যন্ত ৪র্থ বার বীট কর্মকর্তার দায়িত্ব দেয়ায় বনবীট এলাকার মানুষ আবারো ক্ষোভে ফুঁসে উঠে। তার বিরুদ্ধে বনের শত শত গাছ কর্তনসহ সাধারন মানুষকে হয়রানি করা ছাড়াও বাৎসরিক অলিখিত চুক্তিতে অর্ধ শতাধিক লোককে বনের জমি চাষাবাদ ও পুকুর খনন করার সুযোগ দেয়ার অভিযোগ রয়েছে।

প্রায় ২ সপ্তাহ আগে আবু জার গাফ্ফারী বীট কর্মকর্তা হিসেবে কাদিরাবাদে ৪র্থ বার যোগদানের পূর্বের মতই পুরোনা কায়দায় হয়রানি শুরু করেছে। ফলে গত ৬ জুন বীট এলাকার মদনখালী ইউনিয়ন পরিষদের একাধিক জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, বনের সুবিধাভোগী, এলাকাবাসী এবং জমির মালিকরা ওই বীট কর্মকর্তা কর্তৃক অত্যাচার ও হয়রানির প্রতিবাদে বনবিভাগের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষসহ বিভিন্ন দফতরে লিখিত অভিযোগ করেছে।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, বনের জমির সাথে লাগোয়া অনেকের পৈত্রিক জমি থাকলেও বর্তমান বীট কর্মকর্তা কে বাৎসরিক টাকা দিয়ে জমি চাষাবাদ করতে হবে। আর ওই টাকা না দিলে হয়রানিমুলক গাছ কাটার মামলা দেন তিনি। যারা এ চুক্তিতে আসেনি, তাদের বিরুদ্ধে কেন বন আইনে মামলা করা হবে না এমন নোটিশও জারি করেছেন ওই কর্মকর্তা।

ইতিপূর্বেও ভুক্তভোগী পরিবারগুলো সহকারী বন সংরক্ষক ও রেঞ্জ কর্মকর্তাকে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পায়নি। ভুক্তভোগী খেতাবেরপাড়া গ্রামের মৃত. কেকরার ছেলে রাশেদুল ইসলাম জানায়, আমার পৈত্রিক জমিতে পুকুর খনন করলেও বীট কর্তা গত ১০ জুন আমাকে নোটিশ দিয়েছে যে, আমি বনের জমি খনন করেছি। আমাকে মামলারও হুমকি দিয়েছে। তিনি আরও বলেন, আমাকে ওই বনবীটের ফরেষ্ট গার্ড (এফজি) আবু হানিফ জানায়, স্যারের (বনবীট কর্মকর্তা) সাথে সিষ্টেমে আলাপ করে নিলে মামলাও হবে না, নোটিশও করবে না।

আর এক অভিযোগকারী জমির মালিক শহিদুল ইসলাম বাবু বলেন, মদনখালী মৌজার ২৬৯৪ দাগে আমার বাবার নামে ৬৮ শতক জমি থাকলেও গাফ্ফারী আমার এবং বাবার বিরুদ্ধে বন আইনে হয়রানিমুলক মামলা দেয়ায় আমার বাবা টেনশনেই মারা গেছেন।

মদনখালী ইউপি চেয়ারম্যান শামছুল আলম বলেন, বন কর্তারাই গাছ চুরির সাথে সম্পৃক্ত। আর মামলা দেয় সাধারন মানুষের বিরুদ্ধে। বীট কর্মকর্তা আবু জার গাফ্ফারী বলেন, উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বারবার আমাকে বীট কর্মকর্তার দায়িত্ব দিলে আমি কি করবো। মিঠাপুকুর রেঞ্জ কর্মকর্তা মঞ্জুরুল করিম বলেন, অভিযোগকারীরা ফায়দা লুটতে অভিযোগ করেছে। আর অভিযোগটি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

Surfe.be - Banner advertising service

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

<a href=”https://surfe.be/ext/446180″ target=”_blank”><img src=”https://static.surfe.be/images/banners/en/240x400_1.gif” alt=”Surfe.be – Banner advertising service”></a>

via Imgflip

Surfe.be - Banner advertising service

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451