শুক্রবার, ২৩ জুলাই ২০২১, ১২:২৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

Surfe.be - Banner advertising service

সীমান্তবর্তী বিরামপুরে দ্রুত বাড়ছে করোনার আক্রান্তের হার: লকডাউন জরুরী

মিজানুর রহমান মিজান, বিরামপুর প্রতিনিধি (দিনাজপুর) :
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন, ২০২১
  • ৩৫ বার পঠিত

দিনাজপুর জেলার বিরামপুর ও পাশর্^বর্তী হাকিমপুর (হিলি) উপজেলায় প্রায় ২২ কিলোমিটার সীমান্ত দিয়ে ঘেরা। ইমিগ্রেশন দিয়ে ভারত থেকে আগত যাত্রী। স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে আসা পণ্যবাহী ট্রাকের ড্রাইভার ও হেলপার এবং স্থানীয় ভাবে সরকারি বিধি নিষেধ উপেক্ষার ফলে দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে করোনা সংক্রামনের হার। এমনকি বাড়ছে মৃত্যুর ঘটনাও। ভারতীয় ভেরিয়েন্ট বিস্তৃারের আশঙ্খায় সীমান্তবর্তী মানুষের, নিয়ন্ত্রণে হিমসিম খাচ্ছে প্রশাসন। এমতবাস্তায় লকডাউন জরুরী।

উপজেলা ২টি ২২ কিলোমিটার সীমান্ত এলাকার মধ্যে হিলি ইমিগ্রেশন দিয়ে ভারত থেকে আগত যাত্রীদের ক্ষেত্রে সরকারি ভাবে স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও বাধ্যমূলক কোয়ারেন্টাইন ব্যবস্থা থাকলেও পণ্যবাহী ট্রাকের ড্রাইভার ও হেলপারদের ক্ষেএে শুধু প্রাথমিক ¯¦াস্থ্য বিষয়ে জিঞ্জাসাবাদই বিদ্যমান। পোর্ট অভ্যন্তরে ড্রাইভার ও হেলপারদের সংমিশ্রনে বাংলাদেশী শ্রমিকদের পণ্য খালাশ এবং জনসাধারণের মাঝে আরোপকৃত সরকারি বিধি নিষেধ যথাযথ ভাবে পালন না করা। সীমান্তবর্তী গ্রামগুলোতে অসচেতন ভাবে দুই পারের মানুষের মধ্যে অবাধ চলাফেরার কারণে একের পর এক বেড়েই চলেছে করোনা সংক্রমনের হার। এই পর্যন্ত ৬৮জন আক্রান্তের ফলে ভারতীয় ভেরিয়েন্টে ডেল্টার আশংকা, দিশেহারা সীমান্তবর্তী গ্রামাঞ্চলের মানুষ জন।

ইতিমধ্য ভারত হতে আগত কয়েক শত যাত্রীদের বিরামপুর ও হাকিমপুরের বিভিন্ন আবাসিক হোটেলে করা হয়েছে কোয়ারেন্টাইন। বিরামপুর স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ শ্যামল কুমার রায় জানান, কমপ্লেক্সেটি ডেডিকেটেড নয়। উপরন্ত ডাক্তার নার্সসহ ১০ জন করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় কিছুটা ভেঙ্গে পড়েছে চিকিৎসা ব্যবস্থা। ফলে করোনা পজেটিভ রোগীদের উন্নত চিকিৎসার জন্য জেলা পর্যায়ের হাসপাতালগুলোতে পাঠানো হচ্ছে।

এ বিষয়ে ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক(সিও) লে. কর্ণেল মো: শরিফ উল্লাহ আবেদ বলেন, বিরামপুর সীমান্ত এলাকাটি অবশ্যই অনেক ঝুঁকিপূর্ণ। তবে আমি আমার অধীনস্থ সকল বিজিবি ক্যাম্প কমান্ডারদের সর্তকতার সহিত দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দিয়েছি এবং আমরা সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থানে রয়েছি। সীমান্তের কোনো এলাকা দিয়ে কোনো ভারতীয় নাগরিক বাংলাদেশে প্রবেশ করলে সঙ্গে সঙ্গেই আমরা তাঁদের আইনের আওতায় নিয়ে আসছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পরিমল কুমার সরকার বলেন, সংক্রমনের ভয়াবহতা বৃদ্ধি রোধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার মাধ্যমে সচেতনতা সৃষ্টি ও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে স্থানীয় প্রশাসন।

এলাকায় সংক্রমনের ভয়াবহতা রোধে প্রশাসন, ডাক্তার, সচেতন মহলসহ সকলের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা এবং জরুরী লকডাউন জারীর মাধ্যমে নিয়ন্ত্রন করা হোক করোনা পরিস্থিতি। এমনটিই প্রত্যাশা সচেতম মহলের।

 

Surfe.be - Banner advertising service

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

<a href=”https://surfe.be/ext/446180″ target=”_blank”><img src=”https://static.surfe.be/images/banners/en/240x400_1.gif” alt=”Surfe.be – Banner advertising service”></a>

via Imgflip

Surfe.be - Banner advertising service

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451