শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ১০:৪৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান শিখরের সহযোগীতায় শ্রীপুরে হটলাইন টীমের যাত্রা শুরু ডোমার জোড়াবাড়ীতে বাবুই পাখিবাসা, কিচিকিছি শব্দে মুখোরিত পুরো এলাকা কলাপাড়ায় পাওনা টাকার শোক সইতে না পেরে মৃত্যু জয়পুরহাটে ২২ কেজি ওজনের গাঁজার গাছসহ বাবা-ছেলে আটক করোনা নিয়ন্ত্রণে স্বাস্থ্য খাতেরই চিকিৎসা প্রয়োজন…আ স ম রব মাগুরায় লকডাউনের দ্বীতিয় দিন প্রশাসন কঠোর তাহিরপুরে বোনকে ধর্ষনের চেষ্টা, লম্পট ভাই গ্রেফতার ঝিনাইদহে কঠোর লকডাউনেও মানুষের ঢিলেভাব সুনামগঞ্জে দুই হত্যা মামলায় ঘাতক স্বামী সহ হোটেল মালিক ও কর্মচারী গ্রেফতার মাগুরার সকল ইউনিয়নের জন্য উপজেলা পরিষদের ২০ টি অক্সিজেন সিলিন্ডার ক্রয় 

Surfe.be - Banner advertising service

মাগুরায় চিকিৎসা না নিয়ে বাড়িতেই মারা যাচ্ছে অনেক করোনা রোগী

সাইদুর রহমান, বিশেষ প্রতিনিধি মাগুরা :
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৯ জুলাই, ২০২১
  • ৯ বার পঠিত

করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা না নিয়ে মাগুরায় বাড়িতেই মারা যাচ্ছেন অনেক করোনা রোগী। করোনার উপসর্গ দেখা দিলেও হাসপাতালে না গিয়ে বাড়িতে বসে নিজে বা গ্রাম্য ডাক্তারের কাছে চিকিৎসা নিয়ে গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় তিন জনের মৃত্যুর তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন সিভিল সার্জন ডা. শহিদুল্লাহ দেওয়ান।

সিভিল সার্জন অফিস থেকে জানা গেছে, দেশের মধ্যে খুলনা বিভাগে করোনা পরিস্থিতি খারাপ হলেও দশ জেলার মধ্যে মাগুরায় শনাক্ত ও মৃত্যুর হার অপেক্ষাকৃত কম ছিল। সম্প্রতি মাগুরার পরিস্থিতি খারাপ হতে শুরু করেছে।

গত সপ্তাহে জেলায় মোট ৭ জন করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। এদের ৪জন মাগুরা ২৫০ শয্যার সদর হাসপাতাল ও বাকি তিনজনর বাড়িতে মৃত্যু হয়েছে।

বাড়িতে মারা যাওয়া ব্যক্তিরা হলেন মহম্মদপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের ধোয়াইল গ্রামের, গোলাম রব্বানী (৫৫), বিনোদপুরের খালিয়া গ্রামের নূরুল হক মোল্যা (৮০) ও একই গ্রামের হালিমা বেগম (৬০)।

নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হওয়ার পরও এসব রোগীরা হাসপাতালে না গিয়ে বাড়িতে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। পরিস্থতি জটিল হওয়ার পর বাড়িতেই মারা যান তারা বলে – সিভিল সার্জনের অফিসিয়াল ফেসবুক আইডিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

চিকিৎসকেরা বলছেন করোনার উপসর্গ নিয়ে পরীক্ষা না করিয়ে স্বাভাবিক চলাফেরা করছেন। ঘরে বাইরে সবার সাথে উঠাবসা -মেলামেশা করছে। কেউ কেউ শনাক্তের পর হাসপাতালে না এসে নিজে নিজে মনগড়া ওষুধ খেয়ে বিপদ ডেকে আনছে। অনেকে আবার করোনায় মারা যাওয়ার পরও আক্রান্তের কথা গোগন করছেন।

স্বাভাবিক নিয়মে মৃতদেহের জানাজা- গোসল- দাফন সম্পন্ন করায় সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার ঝুকি রয়েছে।

মহম্মদপুর উপজেলার বিনোদপুর ইউনিয়নের খালিয়া গ্রামের করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া হালিমা বেগম (৬০) এঁর দুইজন সজন নাম প্রকাশ না করে এই প্রতিবেদককে জানান, সর্দি কাশি ও জ্বর নিয়ে বাড়িতেই প্রায় দশদিন ধরে চিকিৎসা নেওয়ার পর গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে হাসপাতালে নেওয়ার পথেই তিনি মারা যান।

মহম্মদপুর উপজেলা স্বাস্থ ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মকসেদুল মোমিন জানান, সাধারণ সর্দি কাশি জ্বর ভেবে কিছু মানুষ করোনার উপসর্গ অবহেলা বা হালকাভাবে নিচ্ছেন। করোনা শনাক্তের পর হাসপাতালে এসে চিকিৎসা নিলে রোগ নিরাময় সম্ভব।

মাগুরার সিভিল সার্জন ডা. শহিদুল্লাহ দেওয়ান বলেন, ভয় ও গুজবের জন্য করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি হাসপাতালে না এসে নিজের বিপদ নিজেই ডেকে আনছেন। করোনা মানেই মৃত্যু নয়। রোগীর নানা অবস্থা বিবেচনা করে হাসপাতালেই সঠিক চিকিৎসা সম্ভব।আমরা এবিষযে মানুষকে সচেতন করছি।

উল্লেখ্য, মাগুরায় এ পর্যন্ত ১২ হাজার ২৫৭নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়েছেন ২ হাজার ৫৮৯ জন। মোট মৃত্যু হয়েছে ৪৬ জনের।

Surfe.be - Banner advertising service

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

<a href=”https://surfe.be/ext/446180″ target=”_blank”><img src=”https://static.surfe.be/images/banners/en/240x400_1.gif” alt=”Surfe.be – Banner advertising service”></a>

via Imgflip

Surfe.be - Banner advertising service

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451