সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১২:৪০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কালিয়াকৈরে পৌর ও ইউনিয়নে যারা নৌকার মাঝি, মিষ্টি বিতরণ-আনন্দ মিছিল সমর্থকদের গুজব ছড়ানোর দায় ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে নিতে হবে: তথ্যমন্ত্রী নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে “বঙ্গবন্ধু ব্যাটেল অব স্কিলস ২০২১” শীর্ষক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার সমাপনী অগ্নি সংযোগ, লুটপাট ও নির্যাতনের প্রতিবাদে ঝিনাইদহে হিন্দু সম্প্রদায়ের মানববন্ধন ভোলায় স্ত্রীর হাতে স্বামী খুন, আসামী গ্রেপ্তার দীপ্ত টিভিতে তুর্কি ধারাবাহিক ‘জননী জন্মভূমি‘ নামের মিল থাকায় ভোলায় বিনাদোষে কারাভোগ করছেন শাহাজান সুন্দরগঞ্জে ইউপি নিবার্চনে নৌকার হালধরতেচান ১৩ জন বিরামপুর উপজেলার ৬ ইউপিতে নৌকার মাঝি হলেন যারা বহুল প্রতীক্ষিত পায়রা সেতুর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

শোকের মাস আগস্ট- ১৪ তম দিন: বিমূর্ত বঙ্গবন্ধু অনিঃশেষ প্রেরণার উৎস

ড. আসাদুজ্জামান খান, সিনিয়র সাংবাদিক ঃ
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১৪ আগস্ট, ২০২১
  • ৭৮ বার পঠিত

॥ ড. আসাদুজ্জামান খান ॥
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে পঁচাত্তরের পনের আগস্ট নির্মমভাবে সপরিবারে হত্যা করা হয়। ঘাতকের বুলেট চিরদিনের জন্য ছিনিয়ে নিয়ে গেছে তাকে। যে নেতার জন্ম না হলে বাংলাদেশের জন্ম হতো না, সেই নেতাকে হত্যা করা হলো। আমাদের জাতীয় জীবনে এর চেয়ে বেদনাদায়ক এবং শোকের ঘটনা আর কিছু হতে পারে না। কেন তাকে হত্যা করা হলো এই প্রশ্ন অনেকের মতো আমারও মনে হয়েছে বার বার।

প্রচলিত যেসব কারণে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয়েছে বলা হয়ে থাকে আমি সে বিষয়ে অনুসন্ধান করে দেখেছি তার সবই মিথ্যা এবং প্রোপাগান্ডা। তবে এখন কিছুটা হলেও বুঝতে পারি কেন বঙ্গবন্ধুকে পৃথিবী থেকে বিদায় নিতে হলো। আসলে যারা বাঙালি জাতির মুক্তি চায়নি তারা কেমনে ভুলবে বঙ্গবন্ধু বাঙালি জাতিকে দাসত্বের শৃঙ্খল থেকে মুক্ত করে এ জাতিকে একটি স্বাধীন ও গৌরবময় জাতি হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন সেই কথা।

সাম্রাজ্যবাদের কোপানল থেকে মুক্ত রেখে এ জাতিকে একটি যথার্থ স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্রের মর্যাদায় প্রতিষ্ঠিত করার যে স্বপ্ন বঙ্গবন্ধু দেখেছিলেন, সেটাই কি ছিল তার অপরাধ? বিশ্ব মোড়ল এবং তাদের তাবেদারদের সঙ্গে আপোষ করেননি- সেটাই কি ছিল তার অপরাধ? গণতন্ত্র তথা দেশের ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সর্বস্তরের মানুষের সমঅধিকার প্রতিষ্ঠার উদার নীতিতে বিশ্বাসী হয়ে তিনি ধর্মভিত্তিক রাষ্ট্রের বদলে একটি আদর্শ ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র গঠনের বাস্তব পদক্ষেপ নিয়েছিলেন- এটাই কি তার অপরাধ? বঙ্গবন্ধুর ঘাতকদের কাছ থেকে ইতিহাসের এই নির্মম হত্যাকান্ডের কোনো যুক্তিসঙ্গত সদুত্তর আজো পাওয়া যায়নি।

তবে ঘাতক এবং তাদের মদদদাতা, সমর্থক, যাদের প্রায় সবাই বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরুদ্ধাচারণ করেছে। চুয়াত্তরের দুর্ভিক্ষের কথা, রক্ষীবাহিনী গঠন, বাকশাল কায়েমের বিষয়ে অনেকেই কথা বলেন।

যদি কোনো অভিযোগ থেকেই থাকে কারো তাহলে সে বিচারের ভার তো জনগণের। কিন্তু ষড়যন্ত্র করে, সাংবিধানিক প্রক্রিয়ার বাইরে গিয়ে এমনকি আত্মসমর্থনের কোনো সুযোগ না দিয়েই কেন সপরিবারে হত্যা করা হলো? বঙ্গবন্ধু হত্যায় সামরিক অথবা বেসামরিক কোনো নিয়ম নীতিই মানা হয়নি। এছাড়াও অসংখ্য প্রশ্ন জাগতে পারে- যারা খুনিদের সুবিধা দিল, পুরস্কৃত করল তাদের স্বার্থ আর খুনিদের স্বার্থ অভিন্ন।

রাজনীতির সঙ্গে সম্পর্কহীন বঙ্গবন্ধু পরিবারের অন্য সদস্যরা কী অপরাধ করেছিল? দশ বছরের শিশু রাসেল কী অন্যায় করেছিল? বঙ্গবন্ধুর আত্মীয়স্বজন তারাইবা কী অন্যায় করেছিল যে, সবাইকে ঘাতকরা হত্যা করল? আসলে গভীরভাবে চিন্তা করলেই বোঝা যায়- যে সামান্য কয়েকজন ঘাতক হত্যাকান্ডে জড়িত ছিল তারা তাদের বিবেক বুদ্ধি এবং বিবেচনাবোধ হারিয়ে নরপশুতে পরিণত হয়েছিল।

আসলে আমরা এমন অকৃতজ্ঞ জাতি যে, বার বার ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি করেছি। জাতির যিনি ত্রাণকর্তা, যার বদৌলতে একটা দেশ পেলাম। যার জন্য আজ অনেকেই অনেক কিছু হলো অথচ বঙ্গবন্ধুর মতো এক মহান নেতাকে হত্যা করতে দ্বিধা করল না। আসলে এদেশের কিছু কিছু মানুষ সত্যিকারের বাঙালি হতে পারেনি। যারা পারেনি তারাই অকৃতজ্ঞ।

রবীন্দ্রনাথ বাঙালি হওয়ার চেয়ে বেদুঈন হওয়াকেই শ্রেয় মনে করেছিলেন। রবীন্দ্রনাথ এমন কথাও বলেছিলেন যে, ‘বাঙালি চিরদিন দালালী করতেই পারে। কিন্তু দল গড়ে তুলতে পারেনা।’ বঙ্গবন্ধু বিশ্ব কবির সেই উক্তিকেও মিথ্যা প্রতিপন্ন করে বাঙালি জাতীয়তাবাদের আদর্শে এক সুগঠিত রাজনৈতিক দল গঠন করে বাঙালির স্বাধীনতাই এনে দিয়েছিলেন।

যে দল আজো এদেশের জনগণের জন্য নিবেদিতপ্রাণ। বাঙালির সমস্ত অর্জন এই দলটির মাধ্যমেই হয়েছে। আজো যারা বঙ্গবন্ধুর বিরোধিতা করেন, তাদের সঙ্গে তার খুনিদের বেশি পার্থক্য নেই।

বঙ্গবন্ধু আজ বেঁচে নেই। ক্ষমতার দ্বন্দ্ব, রাজনীতির কোলাহল সব কিছুরই ঊর্ধ্বে তিনি। পৃথিবীর এক বিস্ময়কর ইতিহাসের কালজয়ী স্রষ্টা আজ নিজেই এক বিমূর্ত ইতিহাস। যে কারণে জীবিত মুজিবের চেয়ে মৃত মুজিব আরো বেশি প্রেরণার। তাইতো কবি লিখেছিলেন- ‘তুমি জন্মেছিলে বলেই, জন্ম নিয়েছে দেশ, মুজিব তোমার আরেকটি নাম, স্বাধীন বাংলাদেশ।

আমরা ব্যথিত চিত্তে তাকে স্মরণ করি। শোকবিহ্বল আগস্টের অঙ্গীকার হোক- আমরা এবং আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম যেন জাতির পিতার মতো মহান দেশপ্রেমিক হয়ে উঠতে পারি।
লেখক ঃ ড. আসাদুজ্জামান খান, সাহিত্যিক ও সিনিয়র সাংবাদিক।

Surfe.be - Banner advertising service




নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

<a href=”https://surfe.be/ext/446180″ target=”_blank”><img src=”https://static.surfe.be/images/banners/en/240x400_1.gif” alt=”Surfe.be – Banner advertising service”></a>

via Imgflip

Surfe.be - Banner advertising service

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451