মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ১১:২৫ পূর্বাহ্ন

“বঙ্গবন্ধুর সমগ্র জীবনই সকলের জন্য একটা বার্তা”

জি-নিউজবিডি২৪ডেস্ক :
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৫ আগস্ট, ২০২১
  • ৫১ বার পঠিত

শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনটাই সবার জন্য একটা বার্তা বলে মন্তব্য করেছেন জার্মানির গুটেনবার্গ ইউনিভার্সিটি অব মাইনজ এর এমিরেটাস প্রফেসর ড. অজিৎ সিং সিকান্দ। রোববার (১৫ আগস্ট) সন্ধ্যায় প্রাইমএশিয়া ইউনিভার্সিটি কর্তৃক আয়োজিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আন্তর্জাতিক ওয়েবিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করতে গিয়ে তিনি বলেন, “বঙ্গবন্ধুর জীবন তরুণদের জন্য, বাঙালির জন্য, মানব জাতির জন্য একটি বার্তা।

মাহাত্মা গান্ধী যেমন বলেছে ‘মাই লাইফ ইজ মাই ম্যাসেজ।’ তেমনি বঙ্গবন্ধুর জীবন সবার জন্য একটি ম্যাসেজ। যার মধ্য দিয়ে তাঁর সমগ্র জীবনাচরণ, আদর্শ, মহানুভবতা এবং জীবন সংগ্রাম ফুটে ওঠে।” এসময় বঙ্গবন্ধুরকে মহাত্মা গান্ধী, মার্টিন লুথার কিং, নেলসন মেন্ডেলা, জহরলাল নেহেরু এর মতো বিশ্ব নেতাদের সঙ্গে তুলনা করেন প্রফেসর ড. সিং।

১৯৭৫ সালের পৈশাচিক হত্যাকান্ডের কথা স্মরণ করে তিনি বলেন, “আমরা কখনো সেই কুৎসিত ভয়ংকর রাতের কথা ভুলবো না। যে রাতে নৃশংসভাবে শেখ মুজিব আর তাঁর পরিবারকে হত্যা করা হয়েছে। সেটা মানুষের স্মৃতিতে চিরদিন থাকবে। যিনি স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন তাকে মনে রেখেই আগামীর পথ চলতে হবে। তাঁকে মনে রাখতে হবে তাঁর অবদান ও তাঁর ত্যাগের জন্য। মনে রাখতে হবে, তিনি চেয়েছিলেন ধর্ম নিরপেক্ষ গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র। আমাদের তাঁর সেই ভাবনা আর স্বপ্নের পথটাই বাস্তবায়ন করতে হবে।

শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনৈতিক দূরদর্শিতা তুলে ধরে তিনি বলেন, “বঙ্গবন্ধু খুব সাবলীল বক্তব্য দিতেন। মহত্মা গান্ধী ও শেখ মুজিব সাধারণ মানুষের ভাষা বুঝতে পারতেন। তারা সততা ও আদর্শ দিয়ে সাধারণ মানুষের খুব কাছে যেতে পারতেন। তাই সমসাময়িক রাজনৈতিক নেতাদের থেকে আলাদা গ্রহণযোগ্যতা ছিল নেতা মুজিবের। পাকিস্তানি মিলিটারিদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেছেন; তোমরা আমাদের ভাই। সুতরাং আমাদের বুকে গুলি চালাবে না।

ভারতীয় উপমহাদেশের প্রতি প্রীতির কথা জানিয়ে তিনি বলেন, “আমরা আলাদা হয়েছি ঠিকই কিন্তু হৃদয় থেকে আমরা এখনো এক। জার্মানীতে বাঙালি, পাঞ্জাবী বা ভারতীয় কারো সাথে দেখা হলে মনে হয় আমারই লোক, আমার শেকড়।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রেস অফিসার ও সাবেক রাষ্ট্রদূত এম. শফিউল্লাহ বঙ্গবন্ধু ও ১৯৭৫ এর সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা ও রূহের মাগফেরাত কামনা করে বলেন, “বঙ্গবন্ধু কূটনৈতিক ছিলেন না কিন্তু কূটনীতি খুব ভাল বুঝতে পারতেন। একবার তিনি কুয়েতের আমীরকে বলেছিলেন, ‘তুমি তেলের শেখ আর আমি হলাম পানির শেখ।’ মূলত বঙ্গবন্ধরু দূরদর্শিতার করণেই মধ্যপ্রাচ্য থেকে দ্রুত স্বাধীনতার স্বীকৃতি লাভ করে বাংলাদেশ।”

বিশ্ববিদ্যালয়ের মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) এর বঙ্গবন্ধু ফেলো-২০২১ প্রফেসর ড. আফজাল হোসেন তাঁর বক্তব্যে বলেন, “বঙ্গবন্ধু ধর্ম নিরপেক্ষ ও বৈশ্বিক শান্তি গড়তে চেয়েছেন যাতে সকল ধর্মের মানুষ সমান অধিকার ভোগ করতে পারে।

যুক্তরাজ্যের সেকুলার বাংলাদেশ মুভমেন্ট এর সভাপতি জনাবা পুষ্পিতা গুপ্তার লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ওয়েবিনার আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক স্কুল অব বিজনেসের ডিন প্রফেসর ড. নাশিদ কামাল।

পশ্চিম বঙ্গ ইতিহাস সংসদের সম্পাদক প্রফেসর ড. আশিস কুমার দাস এমন একটি আয়োজন করার জন্য প্রাইমএশিয়া বিশ্ববিদ্যালয়কে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, “বঙ্গবন্ধুকে দৈহিকভাবে হত্যা করা হয়েছে, কিন্তু তাঁর চেতনার মৃত্যু নেই। কারণ বঙ্গবন্ধু একটি নাম নয়, একটি আদর্শ। আর আদর্শ্যরে কখানো মৃত্যু হয় না।

আমাদেরকে অতীত বুঝা, জানা এবং এর প্রয়োগ সতর্কতার সাথে করতে হবে।” তিনি বলেন, “বাংলাদেশের ধর্ম, সমাজতন্ত্র, জাতীয়তা ও অসাম্প্রদায়িকতার সম্পর্কে যে ভাবনা সেটা কী ১৯৭৫ সালে থেমে গেল?” বাংলাদেশ যদি ইসলামিক রাষ্ট্রে পরিণত হয়, যদি ১৯৭১ এর চেতনা থেকে সরে আসে তাহলে কেন মুক্তিযুদ্ধ করেছে? প্রশ্ন রাখেন তিনি। শেখ মুজিব যে ধর্ম নিরপেক্ষতা, সমাজতন্ত্র ও গণতন্ত্রের কথা বলেছিলেন তা বাস্তবায়ন করাই আমাদের লক্ষ্য হওয়া উচিত বলেও মনে করেন তিনি।

এই আন্তর্জাতিক ওয়েবিনারের স্বাগত বক্তব্যে প্রাইমএশিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সহ-সভাপতি জনাব মো. রায়হান আজাদ সম্মানিত বক্তা, আয়োজক কমিটি, উপাচার্য ও সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, “আমরা সেই ভয়ংকর রাতের কথা ভুলে যাইনি। যে রাতে আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছিল। উনি শারীরিক ভাবে মারা গেছেন কিন্তু তাঁর আত্মা আজো বেঁচে আছে। তাঁর দূরদৃষ্টি সম্পন্ন রাজনীতি, দেশের জন্য সংগ্রাম-ত্যাগ সবকিছু নিয়ে তিনি সবার মাঝে জাগ্রত আছেন।”

উপ-উপাচার্য (মনোনীত) প্রফেসর ড. মো. নুরুন্নবী মোল্লা বলেন, “কিছু বিষয় নিয়ে আমরা কখনো আপোষ করি না। তা’হল আমাদের স্বাধীনতা, মু্িক্তযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু।” ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্টের স্মৃতি কল্পনা করে তিনি আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন এবং ১৫ আগস্টের শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. ইফফাত জাহান তাঁর বক্তব্যে বলেন, “বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করা হয়েছিল। কিন্তু প্রবাসে থাকায় তাঁর দু কন্যা সেদিন বেঁচে গিয়েছিলেন। তাঁরই সুযোগ্য কন্যা আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে বর্তমান বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে।”

ওয়েবিনারে প্রাইমএশিয়া ইউনিভার্সিটির মাননীয় উপাচার্য (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. মেসবাহ কামাল সভাপতির বক্তব্যে জাতির পিতার প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে বলেন, “আলোচকদের বক্তব্য শুনে যথেষ্ট সমৃদ্ধ হয়েছি। বঙ্গবন্ধু, মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ সম্পর্কে তারা বিস্তৃত আলোচনা করেছেন। আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধে অরিজিৎ সিং আরোরা ও ইন্দিরা গান্ধীর অবদান রয়েছে। তাঁদের অবদানের কথা আমরা একাগ্রচিত্তে স্মরণ করছি। এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আমরা ইতিহাসের অনেক সূত্র পেয়েছি।

যা দিয়ে গবেষণার কাজ করা যাবে।” বক্তাদের বক্তব্যের সারমর্ম তুলে ধরে তিনি বলেন, “আমরা অনেক চড়া দামে আমাদের স্বাধীনতা পেয়েছি। সুতরাং যে মূল উদ্দেশ্য বা মূলনীতি নিয়ে আমরা স্বাধীনতা লাভ করেছি তা রক্ষা করতে হবে। শেখ মুজিবর রহমানের দর্শন, চিন্তা চেতনাকে আমাদের বার বার বোঝার চেষ্টা করতে হবে।” আয়োজক কমিটি, আলোচকবৃন্দ ও সকলকে অনুষ্ঠান সফল করার জন্য ধন্যবাদ জানান মাননীয় উপাচার্য।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন প্রাইমএশিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব বিজনেসের ডিন প্রফেসর ড. নাশিদ কামাল ও স্কুল অব লিবারেল আর্টস অ্যান্ড সোশ্যাল সায়েন্সের ডিন ড. নাসরিন আক্তার।

এর আগে অনুষ্ঠানের শুরুতে ফয়েজ আহমেদ ফয়েজের লেখা গজল পরিবেশন করেন জান্নাত-ই ফেরদৌসী লাকী এবং শেষ করা হয় “যদি রাত পোহালে শোনা যেত বঙ্গবন্ধু মরে নাই” গান দিয়ে।

ওয়েবিনারে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন, ডিরেক্টর, চেয়ারপারসন, শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তাবৃন্দ ভার্চুয়ালি মধ্যে উপস্থিত ছিলেন। প্রাইমএশিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজে অনুষ্ঠানটি সরাসরি সম্প্রচার করা হয়।

Surfe.be - Banner advertising service




নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

<a href=”https://surfe.be/ext/446180″ target=”_blank”><img src=”https://static.surfe.be/images/banners/en/240x400_1.gif” alt=”Surfe.be – Banner advertising service”></a>

via Imgflip

Surfe.be - Banner advertising service

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451