সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:০৩ অপরাহ্ন

মহাদেবপুরে মাদরাসা শিক্ষককে মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে হয়রানির অভিযোগ

এম এম হারুন আল রশীদ হীরা, মান্দা প্রতিনিধি (নওগাঁ) :
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৭ আগস্ট, ২০২১
  • ৪৩ বার পঠিত

নওগাঁর মহাদেবপুরে ফুল তুলতে বাঁধা দেয়ায় এক মাদরাসা শিক্ষককে মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। ঘটনায় বাড়ি ছাড়া ওই শিক্ষক এখন পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।

অভিযোগে জানা গেছে, ঘটনার দিন ভোরে পুজার জন্য চুরি করে অন্যের মালিকাধীন বাড়ি থেকে জবা ফুল তুলছিলেন নওগাঁর মহাদেবপুরের গৃহবধূ শ্রীমতি দিপালী রায় (৪৫)। আর ঠিক সেই সময় সেখান দিয়ে ফজরের নামাজের জন্য মসজিদে যাচ্ছিলেন মাদরাসা শিক্ষক আবু বক্কর সিদ্দিক (৪৮)। এসময় ফুল তুলতে নিষেধ করাই কাল হলো ও-ই মাদরাসা শিক্ষকের। ফুল তোলাকে কেন্দ্র করে চরম বাক-বিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন উভয়ে।

তবে ফুল তুলতে না পারার আপেক্ষ্যে এ সময় ও-ই শিক্ষককে উচিত শিক্ষা দেওয়ার হুমকি দিয়ে চলে যান গৃহবধূ। এ ঘটনার সূত্র ধরে ওই মাদরসা শিক্ষককে ফাঁসাতে মিথ্যা অভিযোগে মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ করেছেন শিক্ষকের পরিবারের সদস্যরা। পরিবারের সদসরা বলছেন, মিথ্যা মামলায় হয়রানির শিকার হয়ে এখন বাড়ি ছাড়া। তারা এ-র প্রতিকার ও ন্যায় বিচারের জন্য হন্যে হয়ে ঘুরছেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায় , সনাতন ধর্মাবলম্বী ওই গৃহবধূকে জাপটে ধরাসহ মাদরাসা শিক্ষক তার স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেন এবং ধর্ষণের অপচেষ্টা করেন। এমনই অভিযোগে ওই গৃহবধূ নিজে বাদি হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ বলছে মামলার তদন্ত কাজ চলছে।

গৃহবধূ দিপালী উপজেলা সদরের ব্রাম্মণপাড়া মহল্লার শ্রী অমল রায়ের স্ত্রী। আর অভিযুক্ত আবু বক্কর সিদ্দিক উপজেলার হাতুড় ইউনিয়নের মির্জাপুর গ্রামের মৃত মনির উদ্দিনের ছেলে ও রামচন্দ্রপুর বাহারুল উলুম আলিম মাদরাসার সহকারী শিক্ষক।

মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে যে, প্রতিবেশি ওই শিক্ষক গত ১৩ আগস্ট ভোরে মহাদেবপুর সর্বমঙ্গলা উচ্চবিদ্যালয়ের পূর্বপার্শ্বে অবস্থিত অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ জিল্লুর রহমানের বাড়ির সামনে জবা ফুল তোলার সময় আবু বক্কর সিদ্দিক দিপালীকে জাপটে ধরেন। তার চিৎকারে অন্য মুসল্লিরা এগিয়ে এলে আবু বক্কর সেখান থেকে পালিয়ে যান।

এসআই সাইফুল ইসলাম জানান, কয়েকজন মুসল্লি তাকে জানিয়েছেন অন্যের বাগান থেকে না বলে ফুল তোলার প্রতিবাদ করায় শিক্ষক আবু বক্কর সিদ্দিকের সাথে গৃহবধূ দিপালী কথা কাটাকাটি ও বাক- বিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন। মামলার তদন্তভার পাবার পর সোমবার (১৬ আগস্ট) তিনি আসামীকে আটক করার জন্য তার বাড়ী ও আত্মীয় বাড়ীতে তল্লাশি চালান। কিন্তু তিনি পলাতক রয়েছেন।

মহাদেবপুর থানার কর্মকর্তা ইনচার্জের দায়িত্বে থাকা ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ জানান, মামলাটি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য এসআই সাইফুল ইসলামকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

Surfe.be - Banner advertising service




নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

<a href=”https://surfe.be/ext/446180″ target=”_blank”><img src=”https://static.surfe.be/images/banners/en/240x400_1.gif” alt=”Surfe.be – Banner advertising service”></a>

via Imgflip

Surfe.be - Banner advertising service

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451