শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১১:২২ পূর্বাহ্ন

শখ থেকেই আয়ের পথ

জহুরুল ইসলাম খোকন, সৈয়দপুর প্রতিনিধি (নীলফামারী) :
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ২৮ বার পঠিত

শখের বশে ৪ জোড়া দেশি কবুতর পালতে শুরু করেন ইমরান হোসেন। প্রায় ১৩ মাসে সাফল্য পেয়ে সম্প্রতি তিনি গড়ে তুলেছেন ৪০০ জোড়া দেশি-বিদেশী জাতের কবুতরের খামার। একই সাথে তার অপর ২টি খামারে রয়েছে অস্ট্রেলিয়া ও ফিজিয়ান ৬টি গরু সহ ৩০০ জোড়া শৌখিন পাখি। ৪০০ জোড়া কবুতর ও ৬টি বিদেশী গরুতে সাফল্য পেয়েই তিনি শৌখিন পাখি পালতে শুরু করেন। বর্তমানে তার ১টি খামারে রয়েছে প্রায় ৩০০ জোড়া শৌখিন পাখি। খামারগুলি দেখা-শোনা করেন তারা স্বামী-স্ত্রী মিলেই।

ইমরান হোসেনের বাড়ি সৈয়দপুর পৌরসভাধীন ৮নং ওয়ার্ডের বাঙ্গীপুর নিজপাড়া গ্রামের সবুজ সংঘ মাঠ সংলগ্ন এলাকায়। সৈয়দপুর রেলওয়ে পাওয়ার হাউস থেকে অবসরের পর বাবা এলাহি বক্স মারা যাওয়ায় প্রায় ২ বছর থেকে পশু-পাখি পালন করছেন ইমরান হোসেন। তিনি জানান, বাবা মারা যাওয়ার পর ৪ জোড়া কবুতর পালন শুরু করেন তিনি। এরপর সেখানে বিদেশী কবুতরও নিয়ে আসেন।

নিয়মিত খাদ্য ও ঔষুধ প্রয়োগে কবুতরের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় তার বাড়ি সংলগ্ন এলাকায় গড়ে তোলেন বড় ধরনের খামার। সে খামারে শোভা পাচ্ছে গ্রিবাজ, লোটন, ঝর্ণা শাটিন, লক্ষা, হেলমেট, বেয়ার হুমার, চিলা ও ময়না জ্যাকসহ বিভিন্ন জাতের কবুতর। নিজ খামারে উৎপাদিত ১ জোড়া বাচ্চা কবুতর বিক্রি করছেন ৬০০ টাকা থেকে ৪০০০ টাকা পর্যন্ত।

কবুতর খামারের পাশেই ১টি বিশাল মাপের ঘর তৈরি করেছেন দেশি-বিদেশী গরু পালনের জন্য। এর পাশে শৌখিন পাখি পালনের জন্য নেট দিয়ে ঘেড়া ঘড় করেছেন তিনি। সেখানে ৩০০ জোড়া শৌখিন পাখি পালন করে ভিশন লাভবান হচ্ছেন ইমরান হোসন। তিনি বলেন, ১ জোড়া শৌখিন পাখি বিক্রি হচ্ছে ৮০০ টাকা থেকে ২০০০ টাকা দরে। ৩০০ জোড়া শৌখিন পাখি ৪০ দিন বাদ প্রায় ১০০ জোড়া বাচ্চা দেয়। সেই হিসেবে ১০০ জোড়া শৌখিন পাখি থেকে গড়ে ৯০ হাজার টাকা বিক্রয়ে টাকা আসে।

৪০০ জোড়া কবুতর ৬টি বিদেশী গরু ও ৩০০ জোড়া পাখি পালন করতে খরচ হয় মাসে প্রায় ৩৫ হাজার টাকা। এছাড়া স্বামী-স্ত্রীর মজুরী বাবদ ১৫ হাজার টাকা মিলে সর্বমোট ৫০ হাজার টাকা খরচ হয়। সেখানে মাসে আয় হচ্ছে সর্বমোট ৫০/৬০ হাজার টাকা। এ আয় নিয়ে ২ সন্তানের পড়াশুনার পাশাপাশি মায়ের চিকিৎসার খরচ ও সংসার ভালভাবেই চলছে।

ইমরান বলেন, দেশে শিক্ষিত বেকার যুবকের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। সরকার যদি আমাদের মত খামারী ও বেকার যুবকদের সুদ মুক্ত এককালীন ৮-১০ লক্ষ টাকা ঋণ দিতেন তাহলে শিক্ষিত কোন যুবকই চাকুরীর পিছনে ছুটতো না। বেকারদের এভাবে সাহায্য করলে তাদের খামারে অনেক মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হতো।

সৈয়দপুর উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. রাশেদুল হক জানান, আমার জানা মতে ইমরান হোসেন গরুর খামার রয়েছে। তার খামার দেখে পুরষ্কৃত করা হয়েছে তাকে। কিন্তু কবুতর ও শৌখিন পাখির খামার করেছেন তিনি তা জানা ছিল না। অল্পদিনে ইমরান হোসেনের খামার পরিদর্শন করা হবে। পছন্দ হলে স্বাধ্যমত সহযোগীতা করবেন বলে জানান তিনি।

 

Surfe.be - Banner advertising service




নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

<a href=”https://surfe.be/ext/446180″ target=”_blank”><img src=”https://static.surfe.be/images/banners/en/240x400_1.gif” alt=”Surfe.be – Banner advertising service”></a>

via Imgflip

Surfe.be - Banner advertising service

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451