সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৬:০৮ পূর্বাহ্ন

নিউজিল্যান্ডের সামনেও উড়ে গেল কোহলিরা

ক্রীড়া ডেস্ক ঃ
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১ নভেম্বর, ২০২১
  • ৪৬ বার পঠিত

পাকিস্তানের পর এবার নিউজিল্যান্ডের কাছেও হারল ভারত। এ নিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে টানা দ্বিতীয় হার কোহলি-রোহিতদের। দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে রোববার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভের ম্যাচে নিউ জিল্যান্ডের জয় ৮ উইকেটে। গ্রুপের সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে হেরে গ্রুপ পর্ব থেকেই ছিটকে যাওয়ার উপক্রম ভারতের।

সেমিফাইনালের স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখতে তাই জয়ের বিকল্প ছিল না কারওরই। এমন সমীকরণই যেন ভয়াবহ চাপ হয়ে এল বিরাট কোহলি-রোহিত শর্মাদের ভারতের কাছে। এখন ভারতকে তাকিয়ে থাকতে হবে তিন দুধের শিশু আফগানিস্তান, নামিবিয়া ও স্কটল্যান্ডের দিকে।আগে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু থেকে রানের জন্য হাপিত্যেশ করে কোনোমতে ১১০ রান করতে পারে ভারত। বিস্ময়করভাবে, ১২০ বলের ইনিংসে মাঝে ৭০ বলে তারা মারতে পারেনি কোনো বাউন্ডারিই!

ড্যারিল মিচেলের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে কিউইরা জিতে যায় ৩৩ বল বাকি থাকতেই। ইনিংস শুরু করে ৩৫ বলে ৩ ছক্কা ও ৪টি চারে ৪৯ রান করেন তিনি।

ফেভারিটদের একটি হিসেবে আসর শুরু করে প্রথম দুই ম্যাচেই বড় হারের তেতো স্বাদ পেল ভারত। বিরাট কোহলিদের সেমি-ফাইনালে যাওয়ার পথও হয়ে গেল খুব কঠিন। আগের ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের কাছে ১০ উইকেটে হেরেছিল তারা।

পাকিস্তানের বিপক্ষে হেরে আসর শুরুর পর নিউ জিল্যান্ড পেল প্রথম জয়। আইসিসি টুর্নামেন্টে ভারতের বিপক্ষে তারা করল জয়ের হ্যাটট্রিক। ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপ সেমি-ফাইনালে ১৮ রানে ও গত টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালে ৮ উইকেটে জিতেছিল দলটি। সেই ধারাবাহিকতায় এবারের এই জয়।নিউ জিল্যান্ডের জয়ের ভিত গড়ে দেন মূলত বোলাররা। ৪ ওভারে ২০ রানে ৩ উইকেট নিয়ে তাদের সফলতম বোলার বোল্ট। ১৭ রানে ২ উইকেট নিয়ে ম্যাচের সেরা যদিও লেগ স্পিনার ইশ সোধি। বাঁহাতি স্পিনার মিচেল স্যান্টনার উইকেট না পেলেও ৪ ওভারে দেন স্রেফ ১৫ রান।

ভারতের ইনিংসে ৩০-এ যেতে পারেননি একজনও। ৩০ ছাড়ায়নি কোন জুটিও। সর্বোচ্চ ২৬ রানে অপরাজিত থাকেন রবীন্দ্র জাদেজা।

নিউজিল্যান্ডের সেরা বোলার ছিলেন বোল্টই। তিনি ৪ ওভারে ২০ রান দিয়ে নিয়েছেন ৩ উইকেট। সোধি ছিলেন আরও কৃপণ। তিনি ৪ ওভারে ২ উইকেট নিয়েছেন মাত্র ১৭ রান খরচ করে। আরেক কিউই পেসার টিম সাউদি ২৬ রান দিয়েছেন ৪ ওভারে, নিয়েছেন একটি উইকেট। একটি উইকেট নিয়েছেন অ্যাডাম১১১ রানের মামুলি লক্ষ্য। কিন্তু নিউজিল্যান্ডও শঙ্কায় ছিল। ভারতীয় পেস বোলার যশপ্রীত বুমরা হুমকি ছিলেন কিউইদের। তিনি তাঁর কাজটা ভালোই করেছেন। ১৯ রান দিয়ে নিয়েছেন ২ উইকেট। কিন্তু কেইন উইলিয়ামসন, মার্টিন গাপটিল, ড্যারেল মিচেলদের ব্যাট কথা বলেছে ভারতের অন্য বোলারদের বলে।

গাপটিলের শুরুটা ছিল ইতিবাচকই। তিনি ১৭ বলে ২০ রান করে বুমরার বলে মিসহিট করে শার্দুল ঠাকুরের হাতে ধরা পড়েন। গাপটিলের ফেরা আশা জাগিয়েছিল, কিন্তু উইলিয়ামসন আর ড্যারেল মিচেল সেই আশা শেষ করে দেন, দারুণ ব্যাটিংয়ে। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ৫৪ বলে ৭২ রানের জুটি গড়েই শেষ করে দেন ম্যাচটা।

মিচেলের অবশ্য আক্ষেপ হতেই পারে। এমন একটা ইনিংস খেলেও মাইলফলক ছোঁয়ার আনন্দটা পাননি বলে। দলের জয়টা যখন নিশ্চিতই, তখনই ৩৫ বলে ৪৯ রান করে বুমরার বলে লোকেশ রাহুলের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন তিনি। উইলিয়ামসন অবশ্য ছিলেন অবিচল। ৩১ বলে ৩৩ করে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন তিনি।

সংক্ষিপ্ত স্কোরভারত: ২০ ওভারে ১১০/৭ (রাহুল ১৮, কিষান ৪, রোহিত ১৪, কোহলি ৯, পান্ত ১২, পান্ডিয়া ২৩, জাদেজা ২৬*, শার্দুল ০, শামি ০*; বোল্ট ৪-০-২০-৩, সাউদি ৪-০-২৬-১, স্যান্টনার ৪-০-১৫-০, মিল্নে ৪-০-৩০-১, সোধি ৪-০-১৭-২)

নিউ জিল্যান্ড: ১৪.৩ ওভারে ১১১/২ (গাপটিল ২০, মিচেল ৪৯, উইলিয়ামসন ৩৩*, কনওয়ে ২*; বরুন ৪-০-২৩-০, বুমরাহ ৪-০-১৯-২, জাদেজা ২-০-২৩-০, শামি ১-০-১১-০, শার্দুল ১.৩-০-১৭-০, পান্ডিয়া ২-০-১৭-০)

কোহলীদের সামনে শেষ চারে ওঠার আপাতত একটাই অঙ্ক। নিজেদের বাকি তিনটি ম্যাচই জিততে হবে। আফগানিস্তান, নামিবিয়া ও স্কটল্যান্ডের মধ্যে কোনও একটি দলকে হারাতে হবে নিউজিল্যান্ডকে। কোহলীরা বাকি তিনটি ম্যাচ জিতলে ছয় পয়েন্টে শেষ করবে।

 

Surfe.be - Banner advertising service




নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

<a href=”https://surfe.be/ext/446180″ target=”_blank”><img src=”https://static.surfe.be/images/banners/en/240x400_1.gif” alt=”Surfe.be – Banner advertising service”></a>

via Imgflip

Surfe.be - Banner advertising service

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451