রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:১১ পূর্বাহ্ন

গাবতলীতে ফাসির দাবীতে গ্রামবাসীর উদ্যোগে মানববন্ধন

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ৬ আগস্ট, ২০২২

বগুড়া গাবতলীর রামেশ্বরপুর ইউনিয়নের পাঁচকাতুলী গ্রামের আব্দুর রহিম (৩২) হত্যাকান্ডে জড়িতদের দ্রæত গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবীতে গ্রামবাসীর উদ্যোগে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করা হয়েছে। গতকাল শনিবার বিকেলে পাঁচকাতুলী বাইপাস সড়কে (তবুর গাছতলা) শত শত নারী-পুরুষ, বৃদ্ধা-বৃদ্ধ ও শিশু-কিশোররা স্বতঃস্ফুর্তভাবে এই মানববন্ধনে অংশ নেয়। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন নিহত আব্দুর রহিমের স্ত্রী ফজিলা বেগম, বড় ছেলে রাশেদ (৯), ছোট ছেলে সিজান (৫), বড়বোন সূর্য ভান, চাচাতো ভাই লাল মোহাম্মাদ, স্থানীয়দের মধ্যে সাহাদত হোসেন, সুলতানা বেগম, আনু মিয়া, ঠান্ডু মিয়া, মোফা, দুলু মিয়া ও এনামুল হক। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, আব্দুর রহিমের খুনিদের মধ্যে ১জনকে গ্রেফতার করা হলেও অন্যান্য আসামীরা এখনও এলাকায় ঘুরে বেড়াচ্ছে। এই খুনিদের অতিদ্রæত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করেন তারা। নিহত রহিমের স্ত্রী ফজিলা বলেন, ২টি অবুঝ সন্তান নিয়ে খুব কষ্টে আছি। খুনিরা প্রতিনিয়ত বিভিন্নভাবে হুমকি-ধামকি দিয়ে যাচ্ছে। এই অবুঝ দুটি সন্তানকে যারা পিতৃহারা করেছে তাদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে ফাঁসির দাবী জানাচ্ছি। নিহত রহিমের অবুঝ ২টি সন্তানরাও পিতার হত্যাকারীদের বিচার চান।

উল্লেখ্য, গত ২৬ জুলাই রামেশ্বরপুর ইউনিয়নের পাঁচকাতুলী চরপাড়া গ্রামের মৃত খোকা মিয়ার ছেলে আব্দুর রহিম ও তার স্ত্রী ফজিলা বেগম রাত ৮টায় স্থানীয় মাদার তলা বাজার নামক স্থানে পায়ে হেটে যাওয়ার পথিমধ্যে পূর্ব শত্রæতার জের ধরে ৩/৪জন অজ্ঞাতসহ উল্লেখিত আসামীগন তাদের পথরোধ করে ও আব্দুর রহিমকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। এ সময় আব্দুর রহিম ও তার স্ত্রী ফজিলা প্রতিবাদ করলে মামলার ১নং আসামী আরিফুল ইসলাম রাঙ্গা (৩৮) হুকুম দেয় সালাকে জীবনে শেষ করে দে। হুকুম পাওয়ার পর পরই ৩নং আসামী অহেদ আলী (২৮) তার হাতে থাকা লোহার রড মিয়ে এলোপাতারীভাবে শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারপিট করে। এরপর অহেদ আলী মাথার পিছনে ছুরিকাঘাত করে রক্তাক্ত যখম করে এবং ২নং আসামী মাসুদ (২৪) রহিমের শ্বাস নালীতে ছুরিকাঘাত করে গুরুত্বরভাবে রক্তাক্ত যখম করে এবং অন্যান্যরা রহিমের মৃত্যু নিশ্চিত করতে মারপিট করে। এসময় রহিমের স্ত্রী ফজিলা চিৎকার করলে আশেপাশের লোকজন ছুটে এলে তারা পালিয়ে যায়।

আহত আব্দুর রহিমকে গুরুত্বর অবস্থায় উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১১টায় আব্দুর রহিম মৃত্যু বরণ করে। গত ২৭ জুলাই হত্যার ঘটনায় ভিকটিমের স্ত্রী ফজিলা বেগম বাদী হয়ে গাবতলী থানায় ১০জনের নাম উল্লেখসহ ৩/৪জনকে অজ্ঞাত করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে।

Surfe.be - Banner advertising service

https://www.facebook.com/gnewsbd24

More News Of This Category
<script async src="https://pagead2.googlesyndication.com/pagead/js/adsbygoogle.js?client=ca-pub-3423136311593782"
     crossorigin="anonymous"></script>
© All rights reserved © 2011 Live Media
কারিগরি সহযোগিতায়: মোঃ শাহরিয়ার হোসাইন
freelancerzone