সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:৪০ পূর্বাহ্ন

তানোরে সার নিয়ে নানা নাটকীয়তার পর অবশেষে ১৫ হাজার টাকা জরিমান 

তানোর(রাজশাহী)প্রতিনিধি
  • Update Time : সোমবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২

রাজশাহীর তানোরে চোরায় পথে বালাইনাশকের দোকানে এক ট্রাক ডিএপি সার নামিয়েছেন জসিম উদ্দিন। এঘটনায় কৃষি অফিসারের নানা নাটকীয়তা ও তদবিরের  পর অবশেষে মাত্র ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত । যাকে বলে গুরুতর অপরাধে লঘুদন্ড। ১৯ সেপ্টেম্বর সোমবার দুপুরের পরে তানোর পৌর এলাকার ধানতৈড় মোড়ে জসিম উদ্দিনের দোকানে ঘটে জরিমানার ঘটনাটি। তবে একট্রাক ডিএপি সারের কাগজপত্র যাচাই বাছাই করা হচ্ছে বলে নিশ্চিত করেন নির্বাহী মেজিষ্ট্রেট পংকজ চন্দ্র দেবনাথ। ফলে এমন জরিমানার ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়লে কৃষকদের মাঝে নানা প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। কারন জসিম পটাশ সংকটের সময় তার বাড়িতে কয়েক হাজার বস্তা রেখে রাতের আধারে পাচার করেন। আর তারমত সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীর এমন জরিমানা, কিছুই বলার নেই।

জানা গেছে, চলতি মাসের ১৮ সেপ্টেম্বর  রোববার বিকেল থেকে  সন্ধ্যা পর্যন্ত তানোর চাপড়া রাস্তার ধানতৈড় মোড়ে একট্রাক ডিএপি সার নামান বালাইনাশক ব্যবসায়ী জসিম উদ্দিন।

রোববার গিয়ে দেখা যায়, পৌর এলাকার ধানতৈড় মোড়ে রয়েছে জসিম উদ্দিনে বালাইনাশক ও ওয়ার্ড সাব ডিলারের দোকান। ট্রাক থামিয়ে অপেন সার নামাচ্ছেন কর্মচারীরা। সেখানেই ছিলেন ব্যবসায়ী জসিম, তার কাছে জানতে চাওয়া হয় কার সার এবং ট্রাকে করে নামানো যায় কিনা তিনি জানান, আমি নোয়াপাড়া মোল্লা ট্রেডার্স থেকে কিনেছি। সেখানে টাকা থাকলে সারের ওভাব নেই। আপনি এভাবে সার আনতে পারেন কিনা জানতে চাইলে তিনি দম্ভক্তি করেই বলেন আমিতো চুরি করে আনছিনা। টাকা দিয়েই আনছি। বিসিআইসির সার ডিলাররা চাহিদামত সার দিতে পারেনা।

ঘটনাস্থল থেকেই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পংকজ চন্দ্র দেবনাথকে অবহিত করা হলে তিনি জানতে চান সারগুলো কার কিংবা কোথায় থেকে এসেছে, ইউএনওকে জানানো হয় নোয়াপাড়া মোল্লা ট্রেডার্স থেকে। ইউএনও একটু পর জানান মোল্লা ট্রেডার্সের সার না, আমি কথা বলেছি,আর এখন রাজশাহীতে মিটিংয়ে আছি সোমবারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।  

সোমবার দুপুরের আগে নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে সারের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান,  আমি পরিক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শনে আছি। কৃষি অফিসারকে জানানো হচ্ছে। 

কৃষি অফিসার সাইফুল্লাহকে একাধিক বার ফোন দেওয়া হলে রিসিভ না করায় ডিডিকে মোবাইলে জানানো হয় বালাইনাশকে একট্রাক ডিএপি সার নামাতে পারে কিনা এবং ব্যবস্থা নেওয়া হবে কিনা ও পাচন্দর ইউনিয়নের বিসিআইসির ডিলার প্রনব সাহার সমস্যা হবে একথা বলছে কৃষি অফিসার বলতে পারে কিনা তিনি জানান কৃষি অফিসারের একথা বলার কোন অধিকার নেই, আমি কথা বলে ব্যবস্থা নিতে বলছি। একটু পরেই কৃষি অফিসার সাইফুল্লাহ সরকারী গাড়ী নিয়ে বের হওয়ার সময় কথা বলতে চাইলে তিনি কাচ লাগিয়ে দেন। জসিমের দোকানে এসে ভটভটিতে করে সার পাচার ধরে ফেললেও দোকানে ঘন্টাব্যাপী চলে রফাদফা। ছিলেন বিসিআইসির ডিলার প্রনব সাহা, তিনি জানান এসব আমার সার, আপনি এখানে কিভাবে নামালেন জানতে চাইলে তিনি জানান, একট্রাক নামিয়েছি সেটা কৃষি অফিসার জানে, তাহলে জরিমানা হল কেন প্রশ্ন করা হলে এসব অভ্যান্তরিন ব্যাপার বলে এড়িয়ে যান। 

এরআগে আপনার কয়েক হাজার বস্তা পটাশ সার জসিম পাচার করেছে জানতে চাইলে অকপটে সিকার করেন তিনি। প্রনব আরো বলেন জসিমকে তো জরিমানা দিত হল না দেওয়া লাগল আমাকে। জসিমের সার আপনি কেন জরিমানা দিবেন প্রশ্ন করলে উত্তরে বলেন ব্যবসা করতে হলে অনেক ত্যাগ সিকার করতে হয়।

কৃষি অফিসার সাইফুল্লাহকে পুনরায় ফোন দেওয়া হলে রিসিভ করেন নি।

নির্বাহী কর্মকর্তা পংকজ চন্দ্র দেবনাথ জানান, ১৫ হাজার টাকা জরিমান করা হয়েছে, সারের কাগজপত্র যাচাই বাছাই চলছে।

খোজ নিয়ে জানা গেছে, সম্প্রতি উপজেলায় সার ও বালাইনাশক ব্যবসায়ীদের নিয়ে সভা করে নীতিমালা অনুযায়ী এবং যার যেখানে ডিলার পয়েন্ট সেখানে সার নামাতে কঠোর নির্দেশ দেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। 

   প্রশ্ন উঠেছে কৃষি কর্মকর্তার সাথে কি এমন যোগসাজশ আছে প্রনবের এবিষয়ে জানতে কৃষি অফিসে গেলে কর্মকর্তা দ্রুত সরকারী গাড়ী নিয়ে জসিমের দোকানে আসেন হাজারো চেষ্টা করা হলে তিনি  কোন  কথায় বলেন নি এবং দোকান থেকে ব্যবসায়ীকে বলে আমাদের সরিয়ে যেতে , নাহলে সরকারী কাজে বাধা দেওয়া হয়েছে বলে মামলা হবে। একজন কর্মকর্তার এমন আচরনে হতবাক স্থানীয়রা।

অফিসারের কথার প্রেক্ষিতে জসিম বেপরোয়া কথা বলা শুরু করেন ও নানা ধরনের হুনকি দেন অফিসারের সামনে । তারপরও নিরব কৃষি অফিসার।

রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মোজদার হোসেন কে জানানো হয় বালাইনাশক ব্যবসায়ী জসিমের দোকানে অভিযান দিলে পাচন্দর ইউপির বিসিআইসির সার ডিলার প্রনবের নাকি সমস্যা হবে এধরনের কথা বলতে পারেন কিনা কৃষি অফিসার জানতে চাইলে তিনি জানান, একজন কর্মকর্তা কখনো এধরনের কথা বলতে পারেন না, যিনি অপরাধ করবেন তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে এটাই নিয়ম। আমি কৃষি অফিসারকে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে বলছি।

Surfe.be - Banner advertising service

https://www.facebook.com/gnewsbd24

More News Of This Category
<script async src="https://pagead2.googlesyndication.com/pagead/js/adsbygoogle.js?client=ca-pub-3423136311593782"
     crossorigin="anonymous"></script>
© All rights reserved © 2011 Live Media
কারিগরি সহযোগিতায়: মোঃ শাহরিয়ার হোসাইন
freelancerzone