সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ০৭:২৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ব্যবসা করার সূচকগুলি কঠোরভাবে মেনে চলা / সমর্থন করা উচিত করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট যাতে কোন ভাবেই দেশে প্রবেশ করতে না পারে – জেলা প্রশাসক বাগেরহাট ডিসির বদলি আদেশ স্থগিতের জন্য যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিবাদের ঝড় ঝিনাইদহের মহেশপুর সীমান্ত থেকে নারী ও শিশুসহ ৬ জন আটক মোড়েলগঞ্জে ৪৩ টি মুরগী জবাই করে হত্যা শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে ময়মনসিংহে সপ্তাহব্যাপি চিত্র প্রদর্শনী শুরু করোনায় যুক্তরাষ্ট্রে ৬ লাখ মৃত্যু ছাড়াল এই ঈদে বিনোদনস্পট যেন আত্রাই সেতু গোদাগাড়ীতে দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার আত্রাই শ্রমিকলীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান গ্রেপ্তার

২৪ কোটি টাকা মুল্যের অবিক্রিত চিনি গুদামে মজুদ

শফিক আল কামাল, পাবনা প্রতিনিধি :
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২৭ আগস্ট, ২০২০
  • ১২৩ বার পঠিত

পাবনা দাশুড়িয়া সুগার মিলের শ্রমিক কর্মচারিদের ৬ মাসের বেতন-ভাতাসহ আঁখ চাষিদের ১১ কোটি টাকা বকেয়ার পরিশোধের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে শ্রমিক কর্মচারী ও আঁখচাষীরা। বুধবার (২৬’ আগস্ট) সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়ে দুপুর পর্যন্ত সুগার মিলের প্রধান ফটকে ও অফিস কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন শ্রমিকরা। দফায় দফায় শ্রমিকরা মিছিল করে অফিস কার্যালয় ঘেরাও করে। বিক্ষোভ মিছিল শেষে অফিস কার্যালয়ের সামনে পথসভা অনুষ্ঠিত হয়।

বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য দেন শ্রমিক-কর্মচারি সংগঠনের সভাপতি সাজেদুল ইসলাম শাহীন, সহ-সভাপতি জাহিদুল ইসলাম, সাধারন সম্পাদক আশরাফুজ্জামান উজ¦ল, দাশুড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. বকুল সরদার সাংগঠনিক সম্পাদক এমদাদ হোসেন, দপ্তর সম্পাদক মাসুম হোসেন ও মিল শ্রমিক রহিমা খাতুন প্রমুখ। বক্তারা বলেন পাবনা সুগার মিলে বর্তমানে নিয়মিত শ্রমিক রয়েছে ৪শ জন, মৌসুমি শ্রমিক রয়েছে ২শ জন এবং চুক্তিভিত্তিক শ্রমিক রয়েছে প্রায় ১শ জন।

শ্রমিক ও কর্মচারিরা টানা ৬ মাস বেতন-ভাতা পাচ্ছেন না। শ্রমিক-কর্মচারিদের বকেয়া এসে দাঁড়িয়েছে ৮ কোটি টাকায়। আর যারা এই মিলের আঁখ চাষি রয়েছে তাদের পাওনা আরো ৩ কোটি টাকা। বকেয়া বেতন ও ভাতা না পেয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে এই চিনি মিলের শ্রমিক কর্মচারীরা। আগামি ৭ দিনের মধ্যে বকেয়া পাওনা পরিশোধ করা না হলে বৃহত্তর আন্দোলনসহ কঠোর কর্মসূচি দেওয়ার ঘোষণা দেন শ্রমিক নেতারা।

পাবনা সুগার মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাইফ উদ্দিন আহম্মেদ’র নিকট এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, ২৪ কোটি টাকার সম মূল্যের ৪ হাজার টন চিনি অবিক্রিত অবস্থায় গুদামজাত হয়ে আছে। এই গুদামজাতকৃত চিনি বিক্রি হয়ে গেলে শ্রমিকদের বকেয়ার টাকা পরিশোধ করা সম্ভব হতো। সংশ্লিষ্ট দপ্তরের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে শ্রমিকদের সমস্যা সমাধানের বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে। আশা করি কর্তৃপক্ষ যতদ্রুত সম্ভব এ বিষয়ে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহন করবেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

cover3.jpg”><img src=”https://www.bssnews.net/wp-content/uploads/2020/01/Mujib-100-1.jpg”>

via Imgflip

 

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451