শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ০৬:১৫ অপরাহ্ন

হোমনায় লকডাউনেও ঘারমোড়া গরুর হাট জমজমাট

মোর্শেদুল ইসলাম শাজু, হোমনা প্রতিনিধি (কুমিল্লা) :
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২১
  • ২৪ বার পঠিত

কুমিল্লার হোমনায় করোনা ভাইরাসজনিত রোগ কোভিড ১৯ -এর বিস্তার রোধে প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলাবাহিনী তৎপর থাকলেও থামছে না সাপ্তাহিত গরুর হাট বসিয়ে গণজমায়েত আয়োজনের। সার্বিক কার্যাবলী/চলাচলে বিধি নিষেধ আরোপ করে সরকার ঘোষিত সর্বত্র কড়া লকডাউনের মাঝে বসানো হয়েছে উপজেলার ঘারমোড়া বাজারে গরুর হাট। সারাদেশে এই গরুর হাটটি প্রসিদ্ধ। বাজারটি পরিচালনা করছেন ঘারমোড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মনিরুজ্জামান।

কাঁচাবাজার এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত উন্মুক্ত স্থানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রয়বিক্রির নির্দেশনা থাকলেও ঘারমোড়া বাজারে লকডাউন উপেক্ষা করে সকাল থেকেই বসানো হয়েছে সাপ্তাহিক গরুর হাটটি। এখানে প্রতি সোমবার সারাদেশ থেকে অসংখ্য পাইকার ট্রাকে করে গরু কেনাবেচার জন্য আসেন।

এর ফলে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে কয়েক হাজার মানুষের সমাগম ঘটে এই হাটে। সব ধরণের দোকানপাটে চলে হরদম বেচাকেনা। প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলাবাহিনী দিনরাত মাঠে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন; লকডাউন কার্যকর করতে চালাচ্ছেন মোবাইল কোর্টের অভিযানও। তথাপি থামছে না মানুষের অহেতুক জনসমাগম।

সোমবার দুপুরে সরেজমিনে ঘারমোড়া বাজারে গিয়ে ঢুকতেই চোখে পড়ে- ট্রাক, সিএনজি, অটো রিক্সার তীব্র যনজট। কোনোরকমে গা ঘেঁষেই একটু এগিয়ে হোমনা-মুরাদনগর সড়কের দুইপাশে নানান দ্রব্যাদি নিয়ে পসরা সাজিয়ে বসে আছেন দোকানীরা। গায়ে গায়ে লেপ্টে কেনাকাটা করছেন মানুষ। গরুর বাজারে ঢুকতেই চোখে পড়ে ইজারাদারদের কাউন্টার থেকে গাঁদাগাঁদি করে গরুর হাঁসুলি কাটছেন ক্রেতারা।

ওইদিকে গরুর ক্রেতা বিক্রেতাদের স্বাস্থ্যবিধি মানারও বালাই নেই। কারও মুখে মাস্ক নেই; আবার কারও পকেটে কিংবা থুতনিতে রেখে দিয়েছেন মাস্ক গরম লাগে বলে। এই অবস্থায় সরকারের করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনস্বাস্থ্য সুরক্ষায় লকডাউন কার্যক্রমে কতটুকু সাফল্য আসবে তা প্রশ্ন সাপেক্ষ।

সরকারের নিদের্শনা উপেক্ষা করে জনসমাগম ঘটিয়ে গরুর হাট বসানো প্রসঙ্গে ঘারমোড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বাজারের ইজারাদার মো. মনিরুজ্জামান বলেন, ‘সারা বাংলাদেশেই গরুর হাট বসছে। আমবাড়ি, দিনাজপুর, সিলেটে বাজার চলতেছে খবর লইয়া দেখেন। আমরা বাংলাদেশের মধ্যে না?- পাল্টা প্রশ্ন রেখে কথা শেষ করেন।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুমন দে বলেন, গণজমায়েত হচ্ছে খবর পাওয়ামাত্র আমি তাকে ফোন করেছিলাম। তিনি ফোন রিসিভ করনেনি। আমরা সেখানে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করছি। আমরা ওই বাজার বন্ধ করে দেব।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..

cover3.jpg”><img src=”https://www.bssnews.net/wp-content/uploads/2020/01/Mujib-100-1.jpg”>

via Imgflip

 

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি  © All rights reserved © 2011 Gnewsbd24
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazargewsbd451